Alexa
ঢাকা, বুধবার, ১০ ফাল্গুন ১৪২৩, ২২ ফেব্রুয়ারি ২০১৭
bangla news
symphony mobile

বান্দরবানে পাথর উত্তোলন বন্ধের নির্দেশ

রিয়াসাদ সানভী | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ২০১৭-০২-১২ ৭:১৩:০৭ পিএম
বান্দরবানে অবৈধ পাথর উত্তোলন

বান্দরবানে অবৈধ পাথর উত্তোলন

বান্দরবানে পরিবেশগতভাবে স্পর্শকাতর বিভিন্ন ঝিরি, ঝর্না ও খাল থেকে পাথর উত্তোলন বন্ধের নির্দেশ দিয়েছে জেলা প্রশাসন। অবৈধ পাথর উত্তোলনের বিষয়ে বাংলানিউজে সংবাদ প্রকাশের পর এ নিয়ে দৃষ্টি গোচর হয় জেলা প্রশাসনের।

রোববার (১২ ফেব্রুয়ারি) জেলা প্রশাসকের সম্মেলন কক্ষে আইন-শৃঙ্খলা বিষয়ক এক বৈঠক শেষে এ সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়।

বান্দরবানের নেজারত ডেপুটি কালেক্টর (এনডিসি) হোসাইন মুহাম্মদ আল মুজাহিদ বাংলানিউজকে জানান, পাথর উত্তোলনের ব্যাপারে বৈঠকে বিস্তারিত আলোচনা হয়েছে। বেশকিছু দিন ধরেই বান্দরবানের বিভিন্ন উপজেলায় অবৈধভাবে পাথর উত্তোলন করা হচ্ছিলো। এ নিয়ে বাংলানিউজে সংবাদ প্রকাশের পর প্রশাসন এটি আমলে নেয়।  

বৈঠকে রুমা উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মুহাম্মদ শরীফুল ইসলাম বিষয়টি তুলে ধরেন। এর প্রেক্ষিতে জেলা প্রশাসন অবিলম্বে পাথর উত্তোলন বন্ধের নির্দেশনা দেয়।

এছাড়া রুমা-বগালেক রাস্তা নির্মাণে রুমা খাল থেকে পাথর উত্তোলনের ব্যাপারে তিনি বলেন, পাথর উত্তোলন সম্পূর্ণ বন্ধের নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। কোথা থেকে এখানে পাথর ব্যবহার করা হবে সেটি বড় বিষয় না।

বৈঠকে বান্দরবানের সব উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা, উপজেলা চেয়ারম্যানসহ নেতৃস্থানীয় ব্যক্তিরা উপস্থিত ছিলেন।

দীর্ঘদিন ধরেই বান্দরবানসহ পার্বত্য চট্টগ্রামের অপর দুই জেলা খাগড়াছড়ি এবং রাঙ্গামাটি থেকে অবৈধভাবে পাথর উত্তোলন করা হচ্ছিলো। বিশেষ করে অপরূপ সৌন্দর্যের রুমা খাল, মরিয়মপাড়া, চম্পাঝিরি, রুংরাং ঝিরি, গোদারঝিরি, ব্যাঙ ঝিরি, মিয়ংঝিরি, রোয়াংছড়ি উপজেলার অংতং খুমিপাড়া, ঘেরাউ, হেডম্যানঝিরি, প্রাংসা ঝিরি, কানাইজো ঝিরি, সদর উপজেলার টংকবর্তী, গেজমনিপাড়া, রেইছা, থানচি উপজেলার নাইক্ষংঝিরি, শিলা ঝিরি, তিন্দুমুখসহ বিভিন্ন এলাকায় চলেছে অবৈধ পাথর উত্তোলনের মচ্ছব।

এ ব্যাপারে আইনুন নিশাতের মতো আন্তর্জাতিক খ্যাতি সম্পন্ন পরিবেশ ও পানি বিশেষজ্ঞও বাংলানিউজের কাছে মতামত ব্যক্ত করেছিলেন। এছাড়া বিভিন্ন ফেসবুক ভিত্তিক ভ্রমণ গ্রুপের পক্ষ থেকেও অবৈধ পাথর উত্তোলনের বিপক্ষে প্রচারণা চালানো হচ্ছিল।

বাংলাদেশ সময়: ১৯০৯ ঘণ্টা, ফেব্রুয়ারি ১২, ২০১৭
এমজেএফ

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

You May Like..