ঢাকা, শুক্রবার, ১৩ অগ্রহায়ণ ১৪২৭, ২৭ নভেম্বর ২০২০, ১০ রবিউস সানি ১৪৪২

বিএনপি

আ’লীগকে সংগঠিত রাখতে আব্দুল্লাহর ভূমিকা গুরুত্বপূর্ণ

স্পেশাল করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ২০৫৪ ঘণ্টা, জুন ১৪, ২০২০
আ’লীগকে সংগঠিত রাখতে আব্দুল্লাহর ভূমিকা গুরুত্বপূর্ণ

ঢাকা: জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে সপরিবারে হত্যার পর কঠিন দুর্দিনে গোপালগ্গ্ঞ্জ আওয়ামী লীগকে সংগঠিত রাখতে শেখ মো. আব্দুল্লাহ গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করেন।

ধর্মপ্রতিমন্ত্রীর মুত্যুতে রোববার(১৪ জুন) জাতীয় সংসদে উপস্থাপিত শোক প্রস্তাবে এ কথা বলা হয়। স্পিকার ড. শিরীন শারমিন চৌধুরীরর সভাপতিত্বে এ অধিবেশন অনুষ্ঠিত হয়।

শোক প্রস্তাবে বলা হয়, ধর্ম প্রতিমন্ত্রী আলহাজ অ্যাডভোকেট শেখ মো. আব্দুল্লাহ ১৯৪৫ সালের ৮ সেপ্টেম্বর গোপালগঞ্জ জেলার মধুমতী নদী তীরবর্তী কেকানিয়া গ্রামের এক সম্ভ্রান্ত ধার্মিক মুসলিম পরিবারে জন্মগ্রহণ করেন। তার পিতা মরহুম আলহাজ শেখ মো. মতিউর রহমান এবং মাতা মরহুমা আলহাজ্ব মোসাম্মৎ রাবেয়া খাতুন। চার ভাই তিন বোনের মধ্যে তিনি দ্বিতীয়।

আলহাজ অ্যাডভোকেট শেখ মো. আব্দুল্লাহ গত বছরের ৭ জানুয়ারি সরকারের ধর্ম বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের প্রতিমন্ত্রীর দায়িত্ব লাভ করেন।

তিনি গওহরডাঙ্গা হাফেজিয়া মাদ্রাসায় পবিত্র কোরআন হেফজের মাধ্যমে শিক্ষা জীবন শুরু করেন। তিনি সুলতানশাহী কেকানিয়া হাই স্কুল থেকে ১৯৬১ সালে মাধ্যমিক এবং খুলনার আযম খান কলেজ থেকে ১৯৬৩ সালে উচ্চ মাধ্যমিক ও ১৯৬৬ সালে বিকম (অনার্স) ডিগ্রি সম্পন্ন করেন। পরবর্তীতে তিনি ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে ১৯৭২ সালে এমকম ও ১৯৭৪ সালে অর্থনীতিতে এমএ এবং ১৯৭৭ সালে ঢাকা সেন্ট্রাল ‘ল’ কলেজ থেকে এলএলবি ডিগ্রি অর্জন করেন।

জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের আদর্শ ধারণ করে শেখ মো. আব্দুল্লাহ খুলনার আযম খান কমার্স কলেজ ছাত্র সংসদের প্রথম ভিপি নির্বাচিত হন। ১৯৬৬ সালের ছয়দফা আন্দোলনে অংশগ্রহণের ধারাবাহিকতায় তিনি ১৯৬৯ সালের গণঅভ্যূত্থান আন্দোলনে সক্রিয়ভাবে অংশ নেন। ১৯৭১ সালের মুক্তিযুদ্ধের অন্যতম গুরুত্বপূর্ণ ফ্রন্ট মুজিব বাহিনীতে সরাসরি সম্পৃক্ত হয়ে মুক্তিযুদ্ধে অংশগ্রহণ করেন। ১৯৭৫ সালের ১৫ আগস্ট জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে সপরিবারে হত্যার পর কঠিন দুর্দিনে গোপালগঞ্জ জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক হিসেবে জেলা আওয়ামী লীগকে সংগঠিত রাখতে শেখ মো. আব্দুল্লাহ গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করেন।

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নির্বাচনী এজেন্ট হিসেবে প্রতিবার আলহাজ শেখ মো. আব্দুল্লাহ তার পক্ষে অত্যন্ত দক্ষতার সাথে সকল নির্বাচনী কার্যক্রম পরিচালনা করেন। তিনি নির্বাচন পরবর্তী সময়ে প্রধানমন্ত্রীর নির্বাচনী এলাকার সংসদীয় প্রতিনিধি হিসেবে সততা, নিষ্ঠা ও সুনামের সাথে দায়িত্ব পালন করে আসছিলেন।

আলহাজ অ্যাডভোকেট শেখ মো. আব্দুল্লাহ দীর্ঘ দিন ধরে ইসলামিক ফাউন্ডেশনের বোর্ড অব গভর্ণরসের গভর্নর ও ১৯৯৬-২০০১ সাল পর্যন্ত অগ্রণী ব্যাংক লিমিটেডের পরিচালকের দায়িত্ব পালন করেন। বর্তমান সরকার দেশের কওমি মাদ্রাসা বোর্ডগুলোর শিক্ষা সনদের যে সরকারি স্বীকৃতি দিয়েছে, তা অর্জনে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করেন তিনি।

বাংলাদেশ সময় : ২০৩৫ ঘণ্টা, জুন ১৪, ২০২০
এসকে/এনটি

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa