ঢাকা, বুধবার, ১১ অগ্রহায়ণ ১৪২৭, ২৫ নভেম্বর ২০২০, ০৮ রবিউস সানি ১৪৪২

ইচ্ছেঘুড়ি

শান্তিপুরের রাজা-রানি (পর্ব-৩)

তাদের দেখা সাক্ষাতের বিষয়টি রানির ছেলের একজন বন্ধু আর রাজকুমারীর একজন বান্ধবী ছাড়া কেউই জানতো না। দুই রাজ্যের প্রজাদের

শ্রমিকের ঘাম | বাসুদেব খাস্তগীর

শ্রমিকেরা আছে বলে সুখে করি বাস শ্রমিকেরা আর নয় সেই ক্রীতদাস। এগিয়েছে পৃথিবীটা শ্রমিকের হাতে অধিকার পেলো তারা ঘাত-প্রতিঘাতে।

একদিন ভোরে রাশেদ | রানাকুমার সিংহ

তারা এই বাসায় নতুন। বড়জোর তিন মাস আগে বাসায় উঠেছে তারা। রাশেদের বাবা বনবিভাগের কর্মকর্তা। সেইসূত্রে জন্ম থেকেই বনজঙ্গলের সঙ্গে

প্লেনের গতিতে ওড়ে যেসব পাখি!

আজ জেনে নেওয়া যাক বিশ্বের ১০ আশ্চর্য গতির পাখির কথা, যাদের কেউ কেউ প্লেনের মতো দ্রুতগতিতে আকাশপথে ছুটতে পারে। ১০. ক্যানভাসব্যাক

রুদ্রমূর্তির গ্রীষ্ম | আবু আফজাল সালেহ

খাঁ খাঁ পথে চোখের পলক চিকিমিকি সাজে। গা ঝরিয়ে মিতু ভুতু শরীর করে কুতু কুতু দরদরিয়া ঘামে, ঝড় বাতাসে নারী-পুরুষ পথ আটকিয়ে করে বেহুঁশ

বই দিবসের ছড়া | আলেক্স আলীম 

বই তোমাকে আলো দেবে বই দেখাবে পথও। স্বপ্ন নিয়ে জাগো সবাই সভ্যতাতে ক্ষত! অন্ধকারে পথ হারালে বই জোগাবে দিশা। তুড়ি মেরে উড়িয়ে দেবে

ধরিত্রী কি থামে | আলেক্স আলীম

পাহাড় কেটে সভ্যতাকে ধ্বংস কেন করি। সাগরটা হোক গর্জনময় ঢেউয়ের ছড়াছড়ি। পরিবেশকে করতে দূষণ কেন দেবো ছাড়! সবার আগে ভাবতে হবে 

শান্তিপুরের রাজা-রানি (পর্ব-২)  

একদিন হাকিমপুরের রাজা পাশের কোন রাজ্যে যাওয়ার উদ্দেশে বের হয়েছিলেন। রাজার সঙ্গে পাইক, পেয়াদা, উজির, নাজির ছিল। সে সময় নূরনগরের রানি

কত বেগে দৌড়ায় চিতা-হরিণ-সিংহ?

চুতষ্পদ মানে চার পেয়ে প্রাণীদের মধ্যে চিতার গতিবেগই সবচেয়ে বেশি। এরা ঘণ্টায় ছুটতে পারে ১১০ থেকে ১২০ কিলোমিটার পর্যন্ত গতিতে। এ

বৈশাখী উৎসবে | আবু আফজাল সালেহ

চিবুক হাতে আল্পনায় চোখে মনে কল্পনায়, লালসবুজের শাড়িতে দাদু ভাইয়ের গাড়িতে হাত ভরিয়ে জুঁইশাখে মেতে উঠি বৈশাখে। বাংলাদেশ সময়: ১২৪০

বৈশাখী মেলায় | আলমগীর কবির 

নাগরদোলায় চড়বো আমি  অনেক দিনের ইচ্ছে,  খুশির পাখি বুকের ভেতর  কেবল সাড়া দিচ্ছে!  কার জন্য কি, কিনবো সে সব মেলায় গিয়ে ভাববো,

স্বপ্ন ফুটুক বৈশাখে | সুমন বিশ্বাস

বসন্ত আর বৈশাখী ফুল যা ফুটেছে কানন মাঝে, সবগুলো তার নাও গো সাথে হোক উপচার সকাল সাঁঝে।   কালবোশেখী ঝড়ের মতো দুঃখগুলো দাও উড়িয়ে,

বৈশাখে | শাহজাহান মোহাম্মদ

বৈশাখে উদাস ভূমি জলশূন্য নদীর চর বৈশাখে উজান ভাটি বাবুই পাখির সুখের ঘর। বৈশাখে উথাল পাথাল পাগলা হাওয়ার কোলাহল বৈশাখে আকাশ জুড়ে

খাবো না ইলিশ বৈশাখে | সৈয়দ ইফতেখার

এলো নতুন দিন, নতুন বাংলা সন কাটুক দারুণ আনন্দে আগামীর প্রতিক্ষণ। শোভাযাত্রা সফল হোক, কাটুক দেশে জরা সবাই যে মিলেমিশে, রঙিন করি ধরা।

পহেলা বৈশাখে প্রকাশিত হচ্ছে মাসিক ‘ইকরিমিকরি’

পত্রিকার এ ‘বৈশাখ সংখ্যা ১৪২৬’-তে লিখেছেন আব্দুল্লাহ আবু সায়ীদ, রফিকুন নবী, শাহাবুদ্দিন আহমেদ, ইমদাদুল হক মিলন, সুকুমার বড়ুয়া,

শান্তিপুরের রাজা-রানি (পর্ব-১)

তারপরও হাকিমপুর ও নূরনগর রাজ্য দুটির মাঝখানে কোনো একটি সুবিধাজনক স্থানে তারা গড়ে তোলে হাটবাজার, শিক্ষা প্রতিষ্ঠান, ধর্মীয়

সোনার বাংলাদেশ | খোন্দকার শাহিদুল হক

ঐখানে ঐ তরুতলায় শিউলিফুলের হাসি ঐ দেখ লাঙল কাঁধে ছুটছে মাঠে চাষি। মাঝপুকুরে হাঁসের ছানা সাঁতার কেটে চলে সন্ধ্যা হতেই আকাশজুড়ে

স্বাধীনতার আঁখি | শাহজাহান মোহাম্মদ

পাহাড় নদী ঝরনা সাগর আকাশ মেঘের সাথী স্বপ্ন নিয়ে রঙিন ভুবন স্বাধীনতার বাতি। দোয়েল কোকিল ময়না টিয়া শিশুর সাথে রাখি শাপলা শালুক

বীরের মতো | আলমগীর কবির 

রেসকোর্সে গর্জে উঠে  ঢেউ তো পাহাড় সমান,  দেশমাতাকে ভালবাসি করতে হবে প্রমাণ!  দেশের নামটি খুব যতনে লিখেছিলাম বুকে বীরের মতো

ছাব্বিশে মার্চ | জাকির আজাদ

ছাব্বিশে মার্চ একটি জাতির গঠন এবং গড়ন, বিশ্বের কাছে সমাধিকারে পরিচিতি করণ। ছাব্বিশে মার্চ দেশের মাটির ভালোবাসায় যতন, যে মাটির

এই বিভাগের সর্বাধিক জনপ্রিয়

Alexa