ঢাকা, বুধবার, ২৬ শ্রাবণ ১৪২৯, ১০ আগস্ট ২০২২, ১১ মহররম ১৪৪৪

জলবায়ু ও পরিবেশ

দাঁতবিহীন হাঙর!

সানজিদা সামরিন, ফিচার রিপোর্টার | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১৮১৫ ঘণ্টা, জানুয়ারি ৩১, ২০১৫
দাঁতবিহীন হাঙর!

সমুদ্রদানব হাঙর তীর বেগে ছুটে বেড়াবে সমুদ্রে। তীক্ষ্ণ ভয়াল দাঁত বের করে কব্জা করবে তার শিকারকে- এটাই স্বাভাবিক।

কিন্তু একবার চিন্তা করে দেখুন তো- একটা হাঙর, তার নেই কোনো দাঁত! ঠিক মানাচ্ছে না, ব্যাপারটা তাইতো!

হয়তো ভাবছেন দাঁত ছাড়া হাঙর হয় নাকি? আর হলেও সেটা আবার কেমন হাঙর? সম্প্রতি সব কল্পনা অতীত করে প্রকাশ্যে এসেছে দাঁতহীন এই হাঙর।


২৮ জানুয়ারি ফিলিপাইনের অলবাই প্রদেশের সমুদ্র সৈকতে পাওয়া গেছে দাঁতবিহীন বিশাল চোয়াল বিশিষ্ট হাঙরের মৃতদেহ।

আকারে ১৫ ফুট দৈর্ঘ্যের এ হাঙরটি ষাটের দশকের হতে পারে বলে ধারণা করা হচ্ছে। কারণ এত বড় চোয়ালবিশিষ্ট প্রাণী মানুষের কাছে এখনো সেভাবে পরিচিত নয়।

হাঙরটি সে সময়কার বলে ধারণা করার মূল কারণ হলো ১৯৭৬ সালে যুক্তরাষ্ট্রের একটি জাহাজের নোঙরে এমন একটি প্রাণী ধরা পড়ে। অন্যদিকে ১৯৯০ সালের গবেষণা অনুযায়ী হাঙর বেশিরভাগ সময়ে পানির ৪০০ থেকে ৫০০ মিটার গভীরে চলাফেরা করে।

হাঙরটির চেহারার মধ্যে একধরনের অস্বাভাবিকতা ও ডাকাতি ভাব আছে বলে ১৯৯৬ সালে আট বছরের এক শিশু এই হাঙরের নাম দিয়েছিল মেগামাউথ শার্ক।

অলবাইতে পাওয়া এই হাঙরটিকে টুথলেস বা দাঁতহীন হাঙর নাম দেওয়া হয়েছে। অনেকেই আবার একে মেলানোর চেষ্টা করছেন পৌরাণিক কোনো কল্পকাহিনী বা সিনেমার সাথে। হাউ টু টেইন ইয়র ড্রাগন সিরিজের প্রাণীর সঙ্গেও মেলাতে চাইছেন অনেকেই।

টুথলেস হাঙরটি ফিলিপাইনে পাওয়া পনেরোতম মেগামাউথ শার্ক। গবেষণার জন্য হাঙরটিকে দেশের বিফার বিকল সংস্থা বরফ দিয়ে সংরক্ষণ করে রেখেছে।

বাংলাদেশ সময়: ১৮১৫ ঘণ্টা, জানুয়ারি ৩১, ২০১৫

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa