ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ৬ মাঘ ১৪২৮, ২০ জানুয়ারি ২০২২, ১৬ জমাদিউস সানি ১৪৪৩

চট্টগ্রাম প্রতিদিন

তারেককে নিয়ে মানুষের ধারণা সত্য

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১৯০৯ ঘণ্টা, ফেব্রুয়ারি ১২, ২০১৪
তারেককে নিয়ে মানুষের ধারণা সত্য ছবি: বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম

চট্টগ্রাম: বিএনপির সিনিয়র ভাইস চেয়ারম্যান তাকের রহমানকে নিয়ে বাংলাদেশের মানুষের যে ধারণা উইকিলিকসের তার বার্তায় তা শতভাগ সত্য প্রমাণিত হয়েছে বলে মন্তব্য করেছেন খাদ্যমন্ত্রী এডভোকেট কামরুল ইসলাম।

বুধবার বিকেলে চট্টগ্রাম সার্কিক হাউসে অনুষ্ঠিত এক সভা শেষে সাংবাদিকদের প্রশ্নের উত্তরে এ মন্তব্য করেন তিনি।



চট্টগ্রাম বিভাগের কর্মরত খাদ্য কর্মকর্তাদের সঙ্গে এ মতবিনিময় সভার আয়োজন করে খাদ্য বিভাগ।

সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে খাদ্যমন্ত্রী কর্মকর্তাদের উদ্দেশ্যে বলেন, গত পাঁচ বছরে সরকার চেষ্টা করেছে খাদ্য উদবৃত্ত দেশে পরিণত করার। সেটা অনেকটা সফলও হয়েছে।

তিনি বলেন, সরকার যে কোনভাবে খাদ্য উদবৃত্ত দেশে পরিণত করবে। সুখের বিষয় হলো বর্তমানে খাদ্য আমদানি করতে হয় না। ওএমএস সার্ভিসও সব সময় চালাতে হয় না।

দুর্নীতির ব্যাপারে জিরো টলারেন্স:
দুর্নীতির ব্যাপারে সরকার জিরো টলারেন্স উল্লেখ করে কর্মকর্তাদের হুশিয়ার করে খাদ্যমন্ত্রী বলেন,‘দুর্নীতির ব্যাপারে আমাদের সরকার জিরো লটারেন্স। দুর্নীতিকে কোন প্রশ্রয় দেয়া হবে না। ‘

‘খাদ্য নষ্ট হবে, অপচয় হবে, নিম্ন মানের চাল-গম আমদানি করবেন, এসব আমি শুনতে রাজি না। আমি বিশ্বাস করি আপনারা সততার সাথে কাজ করেন। ‘

মন্ত্রী কর্মকর্তাদের উদ্দেশ্যে বলেন, আপনারা সততা, আন্তরিকতা ও নিষ্ঠার সাথে কাজ করলে আমরা লক্ষ্যে পৌঁছাতে পারবো।

চট্টগ্রামে হবে সাইলো খাদ্য গুদাম:
চট্টগ্রামে অত্যাধুনিক সাইলো খাদ্য গুদাম নির্মাণ করা হবে বলে জানিয়েছেন খাদ্যমন্ত্রী কামরুল ইসলাম।

খাদ্যে স্বয়ংসম্পূর্ণতা আনতে পারায় বর্তমান সরকারের সফলতা তুলে ধরে খাদ্যমন্ত্রী বলেন, আমরা এখন খাদ্যে স্বয়ংসম্পূর্ণ। অতিরিক্ত খাদ্য মজুদ করতে খাদ্য গুদাম নির্মাণ করা হচ্ছে।

তিনি বলেন, এসব আগেও হতে পারতো। কিন্তু তখনকার সরকার করেনি। ফলে সাইলো খাদ্য গুদাম নির্মাণ হয়নি।

ফাইলবন্দী থাকবে না:
খাদ্য বিভাগের কোন সমস্যা আর ফাইলবন্দী হয়ে থাকবে না জানিয়ে খাদ্যমন্ত্রী বলেন, এ বিভাগে যেসব সমস্যা আছে তা দ্রুত সমাধানের চেষ্টা করবো।

পুরনো গুদামের মেরামত দ্রুত করা হবে জানিয়ে তিনি কর্মকর্তাদের উদ্দেশ্যে বলেন, গুদামের অবস্থা নাজুক হলে বা পানি পড়লে তার তালিকা পাঠান। সমস্যা দ্রুত সমাধান করা হবে।

‘পানি পড়ে বলে খাদ্য নষ্ট হয়েছে সে অভিযোগ আমি শুনতে চাই না। সমস্যা থাকলে তা পাঠাবেন। যে কোন সমস্যা দ্রুত সমাধানের চেষ্টা করা হবে। কোন সমস্যা এখন আর ফাইলবন্দী হয়ে থাকবে না। ’

রাজশাহী ও রংপুর বিভাগে খাদ্য সংগ্রহের লক্ষ্যমাত্রা অর্জন হলেও চট্টগ্রামে সংকট রয়েছে জানিয়ে মন্ত্রী বলেন, এখানে কিছুটা সংকট থাকলেও লক্ষ্যমাত্রা অর্জন হচ্ছে।

ওএমএস ‍ডিলারদের কোন অনিয়ম ধরা পড়লে সঙ্গে সঙ্গে তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা গ্রহণের নির্দেশ দিয়েছেন খাদ্য অধিদপ্তরের মহাপরিচালক আহমেদ হোসেন খান।

সভায় অন্যান্যের মধ্যে খাদ্য মন্ত্রণালয়ের যুগ্ম সচিব আতিউর রহমান, আঞ্চলিক খাদ্য নিয়ন্ত্রক আব্দুল আজিজ মোল্লা এবং চট্টগ্রাম বিভাগের ১১ জেলার খাদ্য নিয়ন্ত্রকরা মতবিনিময় সভায় উপস্থিত ছিলেন।

বাংলাদেশ সময়: ১৯১৪ ঘণ্টা, ফেব্রুয়ারি ১২, ২০১৪

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa