ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ২৪ অগ্রহায়ণ ১৪২৮, ০৯ ডিসেম্বর ২০২১, ০৪ জমাদিউল আউয়াল ১৪৪৩

চট্টগ্রাম প্রতিদিন

স্ত্রী, ভাইসহ বিএনপি নেতা শামসুল আলমের বিরুদ্ধে গ্রেপ্তারি পরোয়ানা

স্পেশাল করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১৪৪৯ ঘণ্টা, মার্চ ৩, ২০১৪
স্ত্রী, ভাইসহ বিএনপি নেতা শামসুল আলমের বিরুদ্ধে গ্রেপ্তারি পরোয়ানা

চট্টগ্রাম: ২১ কোটি ৩৩ লক্ষ টাকার খেলাপি ঋণের মামলায় খ্যাতনামা শিল্প প্রতিষ্ঠান মেসার্স ইলিয়াছ ব্রাদার্সের (এমইবি গ্রুপ) কর্ণধার ও নগর বিএনপির সহ-সভাপতি মোহাম্মদ শামসুল আলম ও তার পরিবারের চার সদস্যসহ মোট পাঁচজনের বিরুদ্ধে অভিযোগ গঠন করেছেন আদালত। একইসঙ্গে আদালত পাঁচজনের বিরুদ্ধে গ্রেপ্তারি পরোয়ানা জারি করেন।



সোমবার চট্টগ্রাম মহানগর দায়রা জজ এস এম মুজিবুর রহমান পাঁচজনের বিরুদ্ধে অভিযোগ গঠন করেন। এর মাধ্যমে খেলাপি ঋণের মামলায় এমইবি গ্রুপের বিচার শুরু করলেন আদালত।

চট্টগ্রাম মহানগর পিপি অ্যাডভোকেট কামাল উদ্দিন আহমেদ বাংলানিউজকে বলেন, চেক প্রতারণার মাধ্যমে ঋণখেলাপিতে পরিণত হওয়ার একটি মামলায় এমইবি গ্রুপের বিরুদ্ধে আজ (সোমবার) অভিযোগ গঠনের দিন নির্ধারিত ছিল। আসামীদের হাজির হওয়ার জন্য আদালত নির্দেশ দিলেও তারা হাজির ছিলেন না। আদালত অভিযোগ গঠন করে আসামীদের গ্রেপ্তারের নির্দেশ দিয়েছেন।

অভিযুক্তরা হলেন, এমইবি গ্রুপের ব্যবস্থাপনা পরিচালক মোহাম্মদ শামসুল আলম ও তার স্ত্রী কামরুন নাহার, তার ভাই ও একই প্রতিষ্ঠানের চেয়ারম্যান নূরুল আবছার ও তার স্ত্রী তাহমিনা বেগম এবং আরেক ভাই ও একই প্রতিষ্ঠানের পরিচালক নূরুল আলম।

দু’ভাইয়ের স্ত্রী এমইবি গ্রুপের অন্যতম পরিচালক। একই মামলায় পরিচালক হিসেবে শামসুল আলমের মা জয়নাব বেগম আসামী হিসেবে থাকলেও মারা যাবার পর আদালত থেকে মামলা থেকে অব্যাহতি দেন।

আদালত সূত্রে জানা গেছে, ইষ্টার্ণ ব্যাংক থেকে নেয়া ঋণ পরিশোধের অংশ হিসেবে ২০১২ সালের ৩ এপ্রিল ন্যাশনাল ক্রেডিট এন্ড কমার্স ব্যাংকের আগ্রাবাদ শাখার বিপরীতে ২১ কোটি ৩৩ লক্ষ টাকার একটি চেক দেয় এমইবি গ্রুপ।

ওই বছরের ৪ এপ্রিল চেকের বিপরীতে টাকা উত্তোলন করতে গেলে ‘অপর্যাপ্ত তহবিলের’ জন্য চেক ডিজঅনার হয়। এরপর ৫ এপ্রিল তাদের প্রথম দফা নোটিশ দেয় ইষ্টার্ণ ব্যাংক কর্তৃপক্ষ।

কয়েক দফা লিগ্যাল নোটিশ দিয়েও ঋণগ্রহীতার সাড়া না পেয়ে ইষ্টার্ণ ব্যাংকের আগ্রাবাদ শাখার বিশেষ সম্পদ ব্যবস্থাপনা বিভাগের সহকারী ব্যবস্থাপক আরিফুল হক বাদি হয়ে ২০১২ সালের ৫ জুন আদালতে একটি মামলা দায়ের করেন।

উল্লেখ্য শামসুল আলম নগর বিএনপির সহ-সভাপতি। ২০০৮ সালের নির্বাচনের আগে আওয়ামী লীগের মনোনয়ন পেতে ব্যর্থ হয়ে শামসুল আলম বিএনপিতে যোগ দেন।

বাংলাদেশ সময়: ১৪০০ঘণ্টা, মার্চ ০৩,২০১৪

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa