ঢাকা, রবিবার, ২১ অগ্রহায়ণ ১৪২৮, ০৫ ডিসেম্বর ২০২১, ০০ জমাদিউল আউয়াল ১৪৪৩

চট্টগ্রাম প্রতিদিন

চট্টগ্রাম চেম্বারে ত্রিপক্ষীয় বৈঠক

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ২২১৬ ঘণ্টা, মার্চ ১৫, ২০১৪
চট্টগ্রাম চেম্বারে ত্রিপক্ষীয় বৈঠক বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম

চট্টগ্রাম: লাইসেন্স সংক্রান্ত উদ্ভূত পরিস্থিতি এবং সনদ গ্রহণে উদ্বুদ্ধকরণের লক্ষ্যে চিটাগাং চেম্বার অব কমার্স এন্ড ইন্ডাষ্ট্রির উদ্যোগে বাংলাদেশ স্ট্যান্ডার্ডস এন্ড টেস্টিং ইন্সটিটিউশন (বিএসটিআই) এবং বিভিন্ন উৎপাদন ও সেবা প্রদানকারী প্রতিষ্ঠানের মধ্যে ত্রিপক্ষীয় বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়।

শনিবার সকালে চেম্বার মিলনায়তনে চট্টগ্রাম চেম্বার সভাপতি মাহবুবুল আলমের সভাপতিত্বে বৈঠকে বক্তব্য রাখেন বিএসটিআই’র উপ-পরিচালক (মেট) ও আঞ্চলিক অফিস প্রধান মো. শওকত ওসমান, উপ-পরিচালক (সিএম) ইঞ্জিনিয়ার এস এম ইসহাক আলী, চেম্বার পরিচালক মাজহারুল ইসলাম চৌধুরী, মাহফুজুল হক শাহ, এম এ মোতালেব, মো. অহীদ সিরাজ চৌধুরী (স্বপন), মো. জহুরুল আলম, মো. সিরাজুল ইসলাম, মো. জাহাঙ্গীরসহ বিএসটিআই উর্ধ্বতন কর্মকর্তারা।


 
চেম্বার সভাপতি মাহবুবুল আলম বলেন, দেশের অর্থনীতির অগ্রগতির চলমান ধারা ও রপ্তানি প্রবৃদ্ধিতে বেসরকারী খাতের উদ্যোক্তাদের চালিকাশক্তি। এ খাতের উন্নয়নে প্রতিবন্ধক নয় বরং উৎসাহিত করতে বিএসটিআইকে অনুরোধ জানান।

তিনি ব্যবসায়ীদের দেশীয় ভোক্তা সাধারণের সন্তুষ্টি অর্জনের পাশাপাশি বিদেশেও পণ্যের বাজার সম্প্রসারণে সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের আইএসও সনদসমূহ গ্রহণের আহবান জানান।

চেম্বার সভাপতি বলেন, লাইসেন্সের শর্তাবলী ও প্রক্রিয়া আরো সহজ, স্বচ্ছ, হয়রানিমুক্ত ও জবাবদিহিমূলক করে এটি ব্যবসা এবং শিল্পবান্ধব করতে হবে। ভবিষ্যতে বিএসটিআই ও ব্যবসায়ী সমাজ একে অপরের অংশীদার। উদ্ভূত সমস্যার সমাধানে চিটাগাং চেম্বার, বিএসটিআই ও বিভিন্ন সেক্টরের প্রতিনিধিদের সমন্বয়ে একটি ত্রিপক্ষীয় কমিটি গঠনের প্রস্তাব করেন।  

বিএসটিআই আঞ্চলিক অফিস প্রধান মো. শওকত ওসমান বলেন, বিএসটিআই পরিচালিত হয় কাউন্সিলের মাধ্যমে। তাই  লাইসেন্স ফিস কমানোর ব্যাপারে কাউন্সিলের প্রস্তাব অনুযায়ী একমাত্র সরকারই সিদ্ধান্ত নিতে পারে। লাইসেন্স গ্রহণ বা নবায়ন না করার কারণে ব্যবসায়িক বৈষম্য সৃষ্টির পাশাপাশি প্রতিযোগিতার সক্ষমতাও নষ্ট হচ্ছে। তিনি বিএসটিআই লাইসেন্স এবং সনদ গ্রহণে ব্যবসায়ীদের উদ্বুদ্ধ করতে চেম্বারের সহযোগিতা কামনা করেন।

উপ-পরিচালক ইঞ্জিনিয়ার এস এম ইসহাক আলী বলেন, বিএসটিআই সেবামূলক প্রতিষ্ঠান। কোন ব্যবসা বা শিল্প প্রতিষ্ঠানকে অযথা হয়রানি বা মামলা করা এর উদ্দেশ্য নয়। কতিপয় বৃহৎ শিল্প মালিকদের লাইসেন্স গ্রহণ বা নবায়নে অনীহা রয়েছে। শিল্পায়নের ধারা অব্যাহত রাখতে তুলনামূলক সুলভমূল্যে নরওয়েজিয়ান অ্যাক্রিডিটেশন অথরিটি কর্তৃক বিএসটিআই’র ম্যানেজমেন্ট সিস্টেম সার্টিফিকেট গ্রহণ করতে সকলকে অনুরোধ জানান।

সভায় অন্যান্যদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন- চেম্বার পরিচালক মাহফুজুল হক শাহ ও এম এ মোতালেব, চিটাগাং ড্রিংকিং ওয়াটার ম্যানুফ্যাকচারার্স  এসোসিয়েশন’র সাধারণ সম্পাদক গৌতম কান্তি চন্দ, জিপিএইচ ইস্পাতের সিএফও কামরুল ইসলাম, বেকারী সমিতির সাধারণ সম্পাদক দেলোয়ার হোসেন, সাবেক চেম্বার পরিচালক আফসার হাসান চৌধুরী (জসিম)।

বাংলাদেশ সময়: ২২০৫ঘণ্টা, মার্চ ১৫, ২০১৪

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa