ঢাকা, শনিবার, ১২ অগ্রহায়ণ ১৪২৮, ২৭ নভেম্বর ২০২১, ২১ রবিউস সানি ১৪৪৩

চট্টগ্রাম প্রতিদিন

কারচুপি, কেন্দ্র দখলের অভিযোগ

সীতাকুণ্ডে ৫ কেন্দ্রে পুন:নির্বাচন দাবি পরাজিত প্রার্থীর

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ২১০৬ ঘণ্টা, মার্চ ১৬, ২০১৪
সীতাকুণ্ডে ৫ কেন্দ্রে পুন:নির্বাচন দাবি পরাজিত প্রার্থীর বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম

চট্টগ্রাম: ভোট কারচুপি ও কেন্দ্র দখলের অভিযোগ এনে সীতাকুণ্ড উপজেলায় পাঁচ কেন্দ্রে পুনরায় নির্বাচনের দাবি জানিয়েছেন বিএনপি সমর্থিত পরাজিত উপজেলা চেয়ারম্যান প্রার্থী কাজী মো.সালাহ উদ্দিন।

রোববার রাতে চট্টগ্রাম প্রেসক্লাবে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে এ দাবি জানান তিনি।

গত শনিবার অনুষ্ঠিত উপজেলা নির্বাচনে সরকার দলীয় প্রার্থী কেন্দ্র দখল, ভোট কেন্দ্রে হামলা, ব্যবসা প্রতিষ্ঠান ও বাড়িতে অগ্নিসংযোগ, ভোটারদের উপর হামলা-নির্যাতনের অভিযোগে এ সংবাদ সম্মেলন করা হয়।

লিখিত বক্তব্যে সালাহ উদ্দিন অভিযোগ করেন, নির্বাচনে ৮৬জন প্রিজাইডিং অফিসারের মধ্যে ২৫জনকে বাদ দিয়ে নতুনভাবে অনভিজ্ঞদের দলীয় বিবেচনায় নিয়োগ দেওয়া হয়। এছাড়া প্রার্থীদের সরবরাহকৃত ভোটার তালিকার সঙ্গে কেন্দ্রের ভোটার তালিকার মিল ছিল না। অন্যদিকে সরকার দলীয় প্রার্থীর কাছে যে তালিকা ছিল তা কেন্দ্রের তালিকার সঙ্গে হুবহু মিল।

তিনি বলেন, নির্বাচনী তফশীল ঘোষণার পর থেকে সরকার দলীয় প্রার্থী নির্বাচনে ভরাডুবি আঁচ করতে পারে। তাই তখন থেকেই নির্বাচনী ফলাফল তাদের অনুকূলে নিতে নানা রকম ফন্দি আঁটে। তারই ধারাবাহিকতায় এসব অনিয়ম করা হয়েছে।

ভোট কারচুপির ছকের মাধ্যমে সরকার দলীয় প্রার্থীকে জয়ী করার নির্বাচন সম্পন্ন করা হয়েছে উল্লেখ করে তিনি বলেন, নির্বাচনী আচরণ বিধি লঙ্ঘনের অভিযোগ করা হলেও তা আমলে নেয়নি নির্বাচন কমিশন।

‘সরকার দলীয় প্রার্থী এস এম আল মামুনের সমর্থকদের ভোট কেন্দ্র দখল, ব্যালট বাক্স ছিনতাইয়ের চেষ্টা, জাল ভোট প্রদান, ভোট কেন্দ্রে যেতে বাধা দিলে তা প্রশাসনকে মৌখিক ও লিখিতভাবে অভিযোগ করা হলেও কোন ব্যবস্থা নেওয়া হয়নি। ’

সংবাদ সম্মেলনে ১৫ থেকে ১৬টি কেন্দ্রে এ ধরণের ঘটনা ঘটেছে বলে উল্লেখ করা হলেও পাঁচ কেন্দ্রে পুনরায় নির্বাচনের দাবি জানানো হয়েছে।

কেন্দ্রগুলো হলো- ছিন্নমূল বহুমুখি উচ্চ বিদ্যালয়, ইমাম নগর ফোরকানিয়া মাদ্রাসা, কেদারখিল সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় ও ফকিরহাট সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় কেন্দ্র।

শনিবার অনুষ্ঠিত উপজেলা নির্বাচনকে প্রহসন ও জালিয়াতির নির্বাচন আখ্যায়িত করে সালাউদ্দিন পাঁচ কেন্দ্রে পুন:ভোট গ্রহণের দাবি জানান।

তিনি বলেন, প্রহসনের এ নির্বাচন বাতিল করে পাঁচ কেন্দ্রে পুনরায় ভোট গ্রহণ করতে হবে। নৈরাজ্য সৃষ্টিকারী সন্ত্রাসীদের শাস্তির ব্যবস্থা করতে হবে। অন্যথায় নির্বাচন বাতিলের দাবিতে আন্দোলন কর্মসূচি ঘোষণা করা হবে।

দাবি আদায় না হলে কি ধরণের আন্দোলন কর্মসূচি আসতে পারে সাংবাদিকদের এমন প্রশ্নের উত্তরে সালাউদ্দিন বলেন, হরতাল, অবরোধ, নির্বাচন কার্যালয় ঘেরাওসহ বিভিন্ন কর্মসূচি আসতে ঘোষণা করা হবে।

সংবাদ সম্মেলনে অন্যান্যের মধ্যে উত্তর জেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক আসলাম চৌধুরী, সীতাকুণ্ড উপজেলা নির্বাচনে ভাইস চেয়ারম্যান প্রার্থী জহুরুল আলম, সীতাকুণ্ড উপজেলা বিএনপির অ্যাডভোকেট নাছিমা আক্তার ডলি, উত্তর জেলা স্বেচ্ছাসেবক দলের যুগ্ম আহ্বায়ক মুরসালিন, সীতাকুণ্ড উপজেলা ছাত্রদলের সভাপতি আওরঙ্গজেব মোস্তফা, সাধারণ সম্পাদক জাহেদুল আলম প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

বাংলাদেশ সময়:২০৪৫ঘণ্টা, মার্চ ১৬, ২০১৪ 

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa