ঢাকা, বুধবার, ১৫ অগ্রহায়ণ ১৪২৯, ৩০ নভেম্বর ২০২২, ০৫ জমাদিউল আউয়াল ১৪৪৪

চট্টগ্রাম প্রতিদিন

চট্টগ্রামের পর্যটন সম্ভাবনা কাজে লাগাতে উদ্যোগ নিয়েছে সরকার: বিমান প্রতিমন্ত্রী

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট  | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১৯৫৩ ঘণ্টা, সেপ্টেম্বর ২৪, ২০২২
চট্টগ্রামের পর্যটন সম্ভাবনা কাজে লাগাতে উদ্যোগ নিয়েছে সরকার: বিমান প্রতিমন্ত্রী

চট্টগ্রাম: চট্টগ্রামের পর্যটন সম্ভাবনা কাজে লাগাতে বিভিন্ন  মেয়াদী পরিকল্পনা হাতে নিয়েছে বলে জানিয়েছেন বেসামরিক বিমান পরিবহন ও পর্যটন প্রতিমন্ত্রী মাহবুব আলী এমপি।

শনিবার (২৪ সেপ্টেম্বর) হোটেল আগ্রাবাদের ৫০ বছর পূর্তি উপলক্ষ্যে আয়োজিত সুবর্ণ জয়ন্তীর অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এ কথা বলেন।

মন্ত্রী বলেন, সরকার বাংলাদেশের পর্যটন সম্ভাবনাকে কাজে লাগাতে বিভিন্ন মেয়াদী পরিকল্পনা গ্রহণ করেছে। এরই লক্ষে ব্যাপক উন্নয়ন কর্মকাণ্ড চালিয়ে যাচ্ছে। চট্টগ্রামের ঐতিহাসিক স্থাপনা, প্রাকৃতিক বৈচিত্র ও সমুদ্রকে পর্যটকদের কাছে আকর্ষনীয় করতে বহুমূখী যোগাযোগ ব্যবস্থা গড়ে তোলা হচ্ছে। কর্ণফুলি ট্যানেল, এলিভেটেড এক্সপ্রেসওয়ে, দোহাজারী-ঘুমধুম রেল সম্প্রসারণ, বিমান বন্দরের আধুনিকায় ও সম্প্রসারণ, আউটার রিং রোড, বায়েজিদ লিংক রোড, চট্টগ্রামের পর্যটন শিল্পকে আরো সমৃদ্ধ করবে। বাড়বে দেশী বিদেশী পর্যটক ও ব্যবসায়ী প্রতিনিধিদের আনাগোনা। তাই আরো অধিক হারে আন্তর্জাতিকমানের হোটেল মোটেল গড়ে তোলা প্রয়োজন। কেবলমাত্র সরকারী উদ্যোগে পর্যটনকে এগিয়ে নেওয়া সম্ভব নয়। সরকার নীতিমালা তৈরি করবে। পরিকল্পনা বাস্তবায়নে সরকারের পাশাপাশি বেসরকারি উদ্যোক্তাদের এগিয়ে আসতে হবে। এক্ষেত্রে হোটেল আগ্রাবাদ চট্টগ্রামের হোটেল-মোটেল ব্যবসার পথিকৃৎ হয়ে কাজ করছে এবং আগামীতেও করবে বলে আমার বিশ্বাস।

বিশেষ অতিথির বক্তব্যে বিভাগীয় কমিশনার মো. আশরাফ উদ্দিন বলেন, পর্যটক ও বিনিয়োগকারীদের আকৃষ্ট করতে সুষ্ঠু ও সুন্দর পরিবেশ, নিরাপত্তা বিশেষ উল্লেখযোগ্য বিষয়। এ ব্যাপারে শিল্প পুলিশ ও ট্যুরিস্ট পুলিশকে দিন দিন আরও শক্তিশালী করা হচ্ছে।

অনুষ্ঠানে হোটেল আগ্রাবাদ লিমিটেডের ব্যবস্থাপনা পরিচালক এইচ এম হাকিম আলী বলেন, আজ থেকে পঞ্চাশ বছর আগে সর্বোচ্চ সুযোগ সুবিধা সম্বলিত হোটেল আগ্রবাদ প্রতিষ্ঠা করা ছিল মরহুম আলহাজ্ব সবদার আলীর একটি সাহসী ও দুরদর্শী পদক্ষেপ। কঠিন ও গৌরবময় পথচলায় যারা এ হোটেলের পাশে ছিলেন সকলের প্রতি রইল আমাদের আন্তরিক কৃতজ্ঞতা ও শুভেচ্ছা।

সভায় বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন দৈনিক আজাদীর সম্পাদক এম এ মালেক। অন্যান্যের মধ্যে আরও বক্তব্য রাখেন চট্টগ্রাম উইমেন চেম্বার অব কমার্স অ্যান্ড ইন্ডাষ্ট্রিজের সভাপতি ড. মনোয়ারা হাকিম আলী, এফবিসিসিআইএ’র পরিচালক ড. মুনাল মাহাবুব।  

এছাড়া সাবেক মহিলা সাংসদ সাবিহা মুছা, সিডাব্লিউসিসিআই এর প্রথম সহ-সভাপতি আবিদা মোস্তাফা, হোটেলের এজিএম হাসানুল ইসলাম, মানব সম্পদ ও প্রশাসনিক ব্যবস্থাপক সাইফুর রহমান, রুম ডিভিশন ম্যানেজার রায়হান কায়সার, সিনিয়র ফুড অ্যান্ড বেভারেজ ম্যানেজার মনিরুল আলম সরকার, সিনিয়র হিসাব ব্যবস্থাপক জামাল হোসেন, ফ্রন্ট ডেস্ক ম্যানেজার এ কে এম শাহরিয়ার, সেলস অ্যান্ড মার্কেটিং ম্যানেজার মোরশেদুল আলম এসময় উপস্থিত ছিলেন।

বাংলাদেশ সময়: ১৯৪৮ ঘণ্টা, সেপ্টেম্বর ২৪, ২০২২
এমআর/টিসি
 

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa