ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ৬ মাঘ ১৪২৮, ২০ জানুয়ারি ২০২২, ১৬ জমাদিউস সানি ১৪৪৩

অর্থনীতি-ব্যবসা

হজ মৌসুমে সাউদিয়ার ভাড়া-বাণিজ্য রোধে সরকার নিষ্ক্রিয়

ইশতিয়াক হুসাইন | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ০৭৪১ ঘণ্টা, আগস্ট ২, ২০১০
হজ মৌসুমে সাউদিয়ার ভাড়া-বাণিজ্য রোধে সরকার নিষ্ক্রিয়

ঢাকা : প্রতি বছর হজ মৌসুমে বাংলাদেশি হজ যাত্রীদের কাছ থেকে সাধারণ ফাইটের চেয়ে অতিরিক্ত ভাড়া আদায় করে থাকে সাউদিয়া এয়ারলাইন্স। অথচ বিদেশি এ এয়ারলাইন্সটির ভাড়া বাণিজ্যরোধে কোনো কার্যকর পদক্ষেপ নিচ্ছে না সরকার।

 

খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, বছরের অন্য সময় ঢাকা-জেদ্দা রুটে টিকেটের মূল্য ৭শ’ থেকে ৮ শ’ ডলারের মধ্যে থাকে। হজের সময় বাংলাদেশি হজযাত্রীদের বহন করতে পারে মাত্র দু’টি এয়ারলাইন্স। এক দ্বিপাক্ষিক চুক্তি অনুযায়ী এ দায়িত্ব পায় বিমান ও সাউদিয়া।

এ সুযোগে দুটো এয়ারলাইন্সই এ সময় ভাড়া বাণিজ্যে নামে। এতে করে ভাড়া বেড়ে ১২শ’ থেকে ১৪শ’ ডলারে গিয়ে দাঁড়ায়।  

তবে হজ মৌসুম এলে বাংলাদেশ বিমান অবশ্য বিশেষ ফাইটের ব্যবস্থা করে। কিন্তু সাউদিয়া সেটি না করে সাধারণ ফাইটেই বিশেষ ফাইটের ভাড়া আদায় করে। এর ফলে ৫শ’ থেকে ৬শ’ ডলার বেশি গুণতে হয় হজযাত্রীদের।

হজ এজেন্সিজ অ্যাসোসিয়েশন অব বাংলাদেশ (হাব)’র সভাপতি ইব্রাহিম বাহার বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম.বিডি কে জানান, সাউদিয়ার এমন অভিনব ভাড়া আদায়ের বিষয়টি তারা আন্তঃমন্ত্রণালয়ের সভাতেই তুলেছেন এবং এর সমাধানের দাবি জানিয়েছেন।

তিনি বলেন, ‘অবশ্যই হজ যাত্রীদের বিমানভাড়া যৌক্তিক পর্যায়ে নামিয়ে আনতে হবে। প্রয়োজনে বিমান ও সাউদিয়ার বাইরে (থার্ড ক্যারিয়ার) অন্য কোনো এয়ারলাইন্সকে হজযাত্রী পরিবহনের কাজ দিতে হবে। ’

বেসামরিক বিমান পরিবহন ও পর্যটন মন্ত্রণালয়ের ভারপ্রাপ্ত সচিব শফিক আলম মেহেদী বলেন, ‘বাংলাদেশের হজ যাত্রীরা যাতে নিরাপদে ও স্বল্প খরচে সৌদি আরবে যেতে পারেন সেদিকে আমরা সর্বোচ্চ দৃষ্টি দেব। ’

আগামী কয়েক দিনের মধ্যে হজ সংক্রান্ত সভায় সাউদিয়ার ভাড়াবাণিজ্য নিয়ে আলোচনা করা হবে বলে তিনি জানান।  
সাউদিয়া এয়ারলাইন্সের সেলস ম্যানেজার ইরফান আহমেদের সঙ্গে যোগাযোগ করা হলে ব্যস্ততার কথা বলে তিনি ফোন রেখে দেন।

অভিযোগ আছে, সাউদিয়ার এ অনিয়মের বিরুদ্ধে বিভিন্ন সময়ে অভিযোগ করা হলেও অজ্ঞাত কারণে সরকার থেকে কখনই ব্যবস্থা নেওয়া হয় না।

এজন্য হজ সংস্থাগুলো দীর্ঘ দিন ধরেই যাত্রী পরিবহনে তৃতীয় কোনো এয়ারলাইন্সকে যুক্ত করার দাবি জানিয়ে আসছে।

এ বিষয়ে বিমানের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা জাকিউল ইসলাম বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম.বিডি কে জানান, সাউদিয়ার বিষয়টি তাদের এখতিয়ারের বাইরে।

আর হজের সময় বিমানের অতিরিক্ত ভাড়া আদায়ের কারণ জানতে চাইলে নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক বিমানের একাধিক কর্মকর্তা বলেন, হজের সময় সৌদি আরব গিয়ে ফিরতি ফাইটে যাত্রী ছাড়াই আসতে হয়। তাই নির্ধারিত ফাইটের চেয়ে এ সময় বেশি ভাড়া আদায় করে বিমান।

আর বিমানের অতিরিক্ত আদায়ের অভিযোগ এক কথায় উড়িয়ে দিয়ে জাকিউল ইসলাম বলেন, ‘বাংলাদেশ বিমান যৌক্তিক ভাড়াই নিয়ে থাকে। ’

বাংলাদেশ সময় : ১৭৪৯ ঘণ্টা, আগস্ট ২, ২০১০

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa