ঢাকা, শুক্রবার, ২ আশ্বিন ১৪২৮, ১৭ সেপ্টেম্বর ২০২১, ০৮ সফর ১৪৪৩

বাজেট

বাজেট নিয়ে সাধারণ মানুষের মধ্যে মিশ্র প্রতিক্রিয়া 

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ২১৪৫ ঘণ্টা, জুন ৩, ২০২১
বাজেট নিয়ে সাধারণ মানুষের মধ্যে মিশ্র প্রতিক্রিয়া 

ঢাকা: জাতীয় সংসদে বাংলাদেশের ইতিহাসের সবচেয়ে বড় বাজেট অর্থাৎ আগামী ২০২১-২০২২ অর্থ বছরের বাজেট উপস্থাপন করছেন অর্থমন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামাল। এবারের বাজেটে নিয়ে সাধারণ মানুষের মধ্যে রয়েছে মিশ্র প্রতিক্রিয়া।

অনেকেই বলছেন, নিত্যপ্রয়োজনীয় দ্রব্যমূল্য যেন ক্রয় ক্ষমতার মধ্যে থাকে।

বৃহস্পতিবার (৩ জুন) বিকেল ৩টায় সংসদ অধিবেশন শুরু হওয়ার পর অর্থমন্ত্রী তার বাজেট বক্তৃতা শুরু করেন। এর আগে মন্ত্রিসভার বৈঠকে ৬ লাখ ৩ হাজার ৬৮১ কোটি টাকার এই বাজেট অনুমোদন দেওয়া হয়।

বাজেট নিয়ে ব্যবসায়ী জসিমউদদীন বাংলানিউজকে বলেন, এবার দেশে ইতিহাসের সবচেয়ে বড় বাজেট উপস্থাপন করা হয়েছে। বিশ্বের সব দেশই প্রতি বছর বাজেট হয়। কিন্তু বাজেট বাস্তবায়ন অনেক কঠিন। মানুষ তো অনেক বড় বড় স্বপ্ন দেখেন। কিছু পূরণ হয় আর কিছু অধরাই থেকে যায়। সরকারের বাজেট অনেকটা স্বপ্নের মতো মনে হচ্ছে।  

শুল্ক মওকুফের কথা উল্লেখ করে তিনি বলেন, সরকার মূলত বাজেটটা করে থাকে শুল্কের ওপর ভিত্তি করে। কিন্তু বিভিন্ন ব্যবসায়ীরা বিভিন্ন খাতে শুল্ক মওকুফের কথা বলেন। সরকার বিভিন্ন ক্ষেত্রে শুল্ক মওকুফ করে। মওকুফ করার ফলে এর প্রভাব বাজেটে গিয়ে পড়ে। এছাড়াও বাজেটে বিভিন্ন প্রকল্পের টাকা বরাদ্দ দেওয়া হয়। দেশে অনেক প্রজেক্ট আছে আমলাতান্ত্রিক জটিলতায় প্রকল্পগুলো বাস্তবায়ন হয় না।  

সচিবদের দুর্নীতির কথা উল্লেখ করে এই ব্যবসায়ী আরও বলেন, দেশের অনেক প্রকল্পে টাকা দুর্নীতি করা যায় না। দুর্নীতি না করতে পারার কারণে সচিবরা এসব প্রজেক্ট স্থগিত করে রাখেন দিনের পর দিন। এসব কারণে প্রতি অর্থবছরে বাজেট সঠিকভাবে বাস্তবায়ন করতে পারে না সরকার।

ডেলি মার্টের কর্ণধার শাহাদাত হোসেন বাংলানিউজকে বলেন, প্রতি বছরে বছরে সরকার বড় বড় বাজেট ঘোষণা করে এতে আমাদের মতো সাধারণ ব্যবসায়ী ও মানুষের কোনো লাভ হয় না। এই বড় বাজেটে শুধু লাভ হয় সরকারের দুর্নীতিবাজরা সংসদ সদস্য, মন্ত্রী ও সচিবদের।

বাজেট নিয়ে প্রত্যাশা জানিয়ে তিনি বলেন, বাজেট ঘোষণার আগেই বাজারে সকল পণ্যের দাম বাড়তে শুরু করেছে। বাজারের এই দ্রব্যমূল্যের ঊর্ধ্বগতি কাম্য নয়। বাজারে দ্রব্যমূল্য যেন সাধারণ মানুষের ক্রয় ক্ষমতার মধ্যে থাকে এটাই আমার সরকারের কাছে চাওয়া।

বেসরকারি কর্মকর্তা মমিনুল ইসলাম বাদল বলেন, বাজেটের আগেই এবার বেড়ে গেছে নিত্য প্রয়োজনীয় অনেক পণ্যের দাম। সরকারের কাছে শুধু একটিই চাওয়া নিত্যদিনের পণ্য যেন সাধারণ মানুষের ক্রয় ক্ষমতার মধ্যে থাকে। কিছু অসাধু ব্যবসায়ী বাজেট বাস্তবায়ন হওয়ার আগেই বাজারে পণ্যের দাম বাড়িয়ে দিয়েছে। এই বিষয়গুলো যেন সরকার সুস্থভাবে নজরদারি করে।

লিফট ব্যবসায়ী মোল্লা মোহাম্মদ আল-আমিন পণ্ডিত বাংলানিউজকে বলেন, করোনা মহামারিকালে সাধারণ মানুষ অর্থনৈতিকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। সাধারণ মানুষ তাদের ক্ষতি পুষিয়ে নিতে পারে সেভাবেই যেন এবারের বাজেট বাস্তবায়ন করে সরকার। এবারের বাজেটে সর্বোচ্চ গুরুত্ব দিতে হবে শিক্ষা, স্বাস্থ্য ও কৃষি খাতে। এছাড়াও সাধারণ মানুষের কর্মসংস্থানেরও ব্যবস্থা করতে হবে।

তিনি আরও বলেন, শিক্ষা স্বাস্থ্য ও কৃষি খাতে সরকার ভর্তুকি দিলে সাধারণ মানুষ আরও সমৃদ্ধ ও সচ্ছল হবে। একই সঙ্গে দেশ এগিয়ে যাবে।

বাংলাদেশ সময়: ২১৪৩ ঘণ্টা, জুন ০৩, ২০২১
এমএমআই/জেআইএম

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa