ঢাকা, বুধবার, ১১ কার্তিক ১৪২৮, ২৭ অক্টোবর ২০২১, ১৯ রবিউল আউয়াল ১৪৪৩

নির্বাচন ও ইসি

আ'লীগের আয় কমেছে ৫১ শতাংশ, ব্যয় বেড়েছে ২১ শতাংশ

ইকরাম-উদ দৌলা, সিনিয়র করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১৩০৯ ঘণ্টা, আগস্ট ২৯, ২০২১
আ'লীগের আয় কমেছে ৫১ শতাংশ, ব্যয় বেড়েছে ২১ শতাংশ

ঢাকা: ক্ষমতাসীন দল বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের আয় আগের বারের চেয়ে ৫১ শতাংশ কমেছে। আর ব্যয় বেড়েছে ২১ শতাংশ।

তবে আয়ের তুলনায় দলটির ব্যয় বেশি না হওয়ায় বর্তমানে ঘাটতিতে নেই আওয়ামী লীগ।

রোববার (২৯ আগস্ট) নির্বাচন কমিশনে (ইসি) বার্ষিক আয়-ব্যয়ের হিসাব জমা দেওয়ার পর দলটির প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক আবদুস সোবহান গোলাপ এ তথ্য জানান।

তিনি বলেন, ২০২০ পঞ্জিকা বছরে বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের মােট আয় হয়েছে ১০ কোটি ৩৩ লাখ ৪৩ হাজার ৫৩৩ টাকা। ২০১৯ পঞ্জিকা বছরের আয়ের তুলনায় ১০ কোটি ৬৮ লাখ ৯৭ হাজার ৭৯৭ টাকা কম। ২০১৯ পঞ্জিকা বছরের তুলনায় আয় কমেছে ৫১ শতাংশ।

আয় কমে যাওয়ার কারণ হলাে- ২০২০ পঞ্জিকা
বছরে মনােনয়ন ফরম বিক্রয় বাবদ প্রাপ্ত অর্থ পূর্বের বছরের তুলনায় কম হয়েছে এবং ২০১৯-এ আয়ের অন্যতম একটি খাত ছিল বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের ত্রি-বার্ষিকী কাউন্সিল বাবদ প্রাপ্ত অর্থ।

আয়ের প্রধান খাতসমূহ- বিভিন্ন পর্যায়ের সদস্যদের দেওয়া চাঁদা, মনােনয়ন ফরম বিক্রি ও বিভিন্ন ব্যক্তি/প্রতিষ্ঠান প্রদত্ত অনুদান প্রভৃতি।

এদিকে ২০২০ পঞ্জিকা বছরে বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের মােট ব্যয় হয়েছে ৯ কোটি ৯৪ লাখ ৪৯ হাজার ৯৩১ টাকা।

পঞ্জিকা বছর ২০১৯ এর তুলনায় ব্যয় বৃদ্ধি পেয়েছে ১ কোটি ৭৩ লাখ ৪৮ হাজার ৩ শত ৫৬ টাকা। পঞ্জিকা বছর ২০১৯ এর তুলনায় ব্যয় বৃদ্ধি পেয়েছে ২১ শতাংশ।

২০২০ পঞ্জিকা বছরে করােনা পরিস্থিতিতে
ত্রাণ কার্যক্রম পরিচালনা, বিভিন্ন পর্যায়ে দলীয় প্রার্থীদের প্রতি প্রদত্ত অনুদান, পত্রিকা-প্রকাশনা ও সংশ্লিষ্ট খরচ বাবদ ব্যয় বৃদ্ধি পাওয়ার কারণে পূর্বের বছরের তুলনায় ব্যয় বৃদ্ধি পেয়েছে।

ব্যয়ের প্রধান খাতগুলো হলো- অফিস রক্ষণাবেক্ষণ ও কর্মকর্তা-কর্মচারীদের বেতন-ভাতা বাবদ ব্যয়, সংগঠন পরিচালনা ব্যয় ও ত্রাণ সামগ্রী বিতরণ কার্যক্রম পরিচালনা ব্যয়।

২০১৯ সালের তুলনায় আয় কম এবং ব্যয় বেশি থাকলেও চলতি বছর (২০২০ পঞ্জিকা) বছরের ব্যয় আয়ের চেয়ে কম ছিল। ২০২০ পঞ্জিকা বছর শেষে স্থিতি ৩৮ লাখ ৯৩ হাজার ৬০১ টাকা। তার আগে পঞ্জিকা বছর ২০১৯ পর্যন্ত সর্বমােট স্থিতি ছিল ৫০ কোটি ৩৭ লাখ ৪৩ হাজার ৫৯৩ টাকা।

পঞ্জিকা বছর ২০২০-এ স্থিতি প্রায় ০.৮ শতাংশ বৃদ্ধি পেয়ে সর্বমােট স্থিতি হয়েছে ৫০ কোটি ৭৩ লাখ ৩৭ হাজার ১৯৪ টাকা।

প্রতি বছর ৩১ জুলাইয়ের মধ্যে আগের পঞ্জিকা বছরের হিসাব নির্বাচন কমিশনে দাখিল করতে হয়। করোনার কারণে ৩১ আগস্ট পর্যন্ত সময় বাড়িয়েছে ইসি। এ পর্যন্ত পাঁচটির মত দল হিসাব জমা দিয়েছে।

বাংলাদেশ সময়: ১৩০৬ ঘণ্টা, আগস্ট ২৯, ২০২১
ইইউডি/এসআই

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa