ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ১৮ অগ্রহায়ণ ১৪২৮, ০২ ডিসেম্বর ২০২১, ২৬ রবিউস সানি ১৪৪৩

বিনোদন

সিটিসেল-চ্যানেল আই মিউজিক অ্যাওয়ার্ডস

মোগল ঐতিহ্যে পুরস্কার প্রদান

তোফাজ্জল লিটন | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১৪২৬ ঘণ্টা, ডিসেম্বর ৪, ২০১০
মোগল ঐতিহ্যে পুরস্কার প্রদান

নাটকীয়, রাজকীয় এবং ঐতিহাসিক উপস্থাপনায় ৩ ডিসেম্বর শুক্রবার রাতে লালবাগ কেল্লায় প্রদান করা হলো ৬ষ্ঠ সিটিসেল-চ্যানেল আই মিউজিক অ্যাওয়ার্ডস। প্রবেশ তোরন থেকে শুরু করে প্রহরী, পোশাক, মঞ্চসহ অনুষ্ঠানের সব পরিবেশনায় ছিল মোগল ঐতিহ্যের ছোঁয়া।

দেশের সঙ্গীত জগতের শিল্পী ও কলাকুশলীকে সম্মাননা জানিয়ে ১৪টি ক্যাটগরিতে পুরস্কার দেওয়া হয়। এ বছর আজীবন সম্মাননা প্রদান করা হয় বরেণ্য নজরুল সঙ্গীতশিল্পী ফিরোজা বেগম।

তলোয়ারের ঝংকার, ঘোড়ার হ্র্রষা আর যুদ্ধের দামামার ঝংকারে শাহজাদা সেলিম আসেন লালবাগ কেল্লায়। যুদ্ধবাজ যুবককে শান্ত করতে শাহজাদার মা আয়োজন করেন নাচ-গানের আসর। মোগল সাম্রাজ্যের সেরা নর্তকী-গায়েনরা জড়ো হন শাহজাদার মনোরঞ্জনে।   শাহজাদা দেখেন আলো-ছায়ায় ভেতর সেরা বাঈজী আনারকলিকে। মুগ্ধ হন তার রূপ আর প্রতিভায়। কথা হয় দুজনের দুজনার সাথে। ইতিহসে যুক্ত হয় আরেক প্রণয় উপাখ্যান। সে খবর পৌঁছে যায় পিতা সম্রাট আকবরের কাছে।

সম্রাট আকবরের আদেশে আনারকলি হারিয়ে যান অজানায়। কিন্তু হারিয়ে যায় না তার শিল্প সাধনা। আনারকলির মতো হারিয়ে যাওয়া অসংখ্য শিল্পীর রেখে যাওয়া কর্মের বিবর্তনই আমাদের আজকের সংস্কৃতি।

অনুষ্ঠানের শুরুতে দর্শকরা উপভোগ করেন অভূতপূর্ব লাইট এবং সাউন্ড শো’র মাধ্যমে মোগল আমলের ঐতিহাসিক কিছু চরিত্র। তারপর আফজাল হোসেনের সঞ্চালনায় শুরু হয় মূল অনুষ্ঠানের।

স্বাগত বক্তব্য প্রদান করার জন্য মঞ্চে আসেন ইমপ্রেস টেলিফিল্মস লিমিটেড ও চ্যানেল আইয়ের ব্যবস্থাপনা পরিচালক ফরিদুর রেজা সাগর। তার বক্তব্যের পর সিটিসেলের সিইও মেহবুব চৌধুরী বক্তব্য রাখেন। এবারের আয়োজনে আজীবন সম্মাননায় ভূষিত ফিরোজা বেগমের হাতে এসময় তারা পুরস্কার তুলে দেন। তারপর শুরু হয় দেশসেরা সঙ্গীতশিল্পীদের সঙ্গীত পরিবেশনা এবং বিভিন্ন ক্যাটাগরিতে পুরস্কার প্রদান পর্ব।

পুরস্কার পেলেন যারা
উচ্চাঙ্গ সঙ্গীত (যন্ত্র) : সমালোচক পুরস্কার এবং পপুলার চয়েজ পুরস্কার পেয়েছেন গাজী আবদুল হাকিম। তার হাতে পুরস্কার তুলে দেন মোস্তফা জামান আব্বাসী ও ওস্তাদ খুরশীদ খান।

উচ্চাঙ্গ সঙ্গীত (কণ্ঠ) : সমালোচক পুরস্কার এবং পপুলার চয়েজ পুরস্কার পেয়েছেন ফেরদৌসী রহমান। তার হাতে পুরস্কার তুলে দেন তার বড় ভাই মোস্তফা জামান আব্বাসী।

রবীন্দ্র সঙ্গীত : সমালোচক পুরস্কার পেয়েছেন সাদী মহম্মদ এবং পপুলার চয়েজ পুরস্কার পেয়েছেন লিলি ইসলাম। তাদের হাতে পুরস্কার তুলে দেন রেজওয়ানা চৌধুরী বন্যা ও অজিত রায়।

নজরুল সঙ্গীত : সমালোচক পুরস্কার পেয়েছেন খায়রুল আনাম শাকিল এবং পপুলার চয়েজ পুরস্কার পেয়েছেন শহীদ কবীর পলাশ। তাদের হাতে পুরস্কার তুলে দেন সুধীন দাস এবং সাদিয়া আফরিন মল্লিক।

লোকগীতি (পল্লী/মরমী) : সমালোচক পুরস্কার পেয়েছেন শিমুল ইসসুফ এবং পপুলার চয়েজ পুরস্কার পেয়েছেন ফকির টুনটুন শাহ। তাদের হাতে পুরস্কার তুলে দেন ফরিদা পারভীন এবং ড. করুণাময় গোমস্বামী।

আধুনিক গান : সমালোচক পুরস্কার পেয়েছেন এ্যান্ড্রো কিশোর এবং পপুলার চয়েজ পুরস্কার পেয়েছেন সীথি। তাদের হাতে পুরস্কার তুলে দেন আবদুল হাদী ও খুরশীদ আলম।

ছায়াছবির গান : থার্ড পারসন সিঙ্গলার নাম্বার পেয়েছে সমালোচক পুরস্কার এবং পপুলার চয়েজ পুরস্কার পেয়েছে দ্যা ডিরেক্টর। এ দুটি ছবির কর্তৃপরে কাছে পুরস্কার তুলে দেন আবেদ খান ও শাইখ সিরাজ।

ব্যান্ড সঙ্গীত : ওয়ারফেজ পেয়েছে সমালোচক পুরস্কার এবং পপুলার চয়েজ পুরস্কার পেয়েছে শূণ্য। এ দুটি ব্যান্ড দলের পারফরমারদের হাতে পুরস্কার তুলে দেন নকিব খান ও শাফিন আহমেদ।

গীতিকার : সমালোচক পুরস্কার পেয়েছেন দীপ্ত এবং পপুলার চয়েজ পুরস্কার পেয়েছে রবিউল ইসলাম জীবন। তাদের হাতে পুরস্কার তুলে দেন গাজী মাজহারুল আনোয়ার এবং রফিকুজ্জামান।
নবাগত গায়ক/গায়িকা : পরশমণি পেয়েছেন সমালোচক পুরস্কার এবং পপুলার চয়েজ পুরস্কার জিতেছেন নাজু। তাদের হাতে পুরস্কার তুলে দেন সুবীর নন্দী এবং তপন চৌধুরী। পরশের পুরস্কার গ্রহণ করেন তার বোন ফাহমিদা শান্তা।

সাউন্ড ইঞ্জিনিয়ারিং : সমালোচক পুরস্কার এবং পপুলার চয়েজ পুরস্কার পেয়েছেন শাকিল রেজা। তার হাতে পুরস্কার তুলে দেন মাকসুদ জামিল মিন্টু এবং ডিইউক।

কভার ডিজাইন : সমালোচক পুরস্কার পেয়েছে ওভাল কমিউনিকেশন্স এবং পপুরার চয়েজ পেয়েছেন সব্যসাচী হাজরা। তাদের পুরস্কার তুলে দেন হাশেম খান এবং মনিরুজ্জামান।

সঙ্গীত পরিচালক :  বাপ্পা মজুমদার পেয়েছেন সমালোচক পুরস্কার এবং পপুলার চয়েজ পুরস্কার পেয়েছেন এস পুলক। তাদের হাতে পুরস্কার তুলে দেন আলম খান এবং শেখ সাদী খান।

মিউজিক ভিডিও ডিরেক্টর : সমালোচক পুরস্কার পেয়েছেন আফজাল হোসেন এবং পপুলার চয়েজ পুরস্কার পেয়েছেন গাজী শুভ্র। তাদের হাতে পুরস্কার তুলে দেন মোস্তফা মনোয়ার এবং আবদুর রহমান।

অনুষ্ঠানের নানা পরিবেশনা

অনুষ্ঠানে পুরস্কার প্রদানের পাশাপাশি নাচের সঙ্গে পঞ্চকবির গান পরিবেশন করেন রেজওয়ানা চৌধুরী বন্যা, মৃদুল কান্তি চক্রবর্তী, লিলি ইসলাম, সাদী মহম্মদ ও সাদিয়া আফরিন মল্লিক। একই ধারায় আরও সঙ্গীত পরিবেশন করেন ফকীর আলমগীর, পিলু মমতাজ, ফেরদৌস ওয়াহিদ, আরফিন রুমী, নীলা, কনা, বালাম, ইন্দ্রমোহন রাজবংশী, দিলরুবা খান, কিরন চন্দ্র রায়, ফরিদা পারভীন, শাফিন আহমেদ, ইমন শাহ, মিলা, বাপ্পা মজুমদার, ফাহমিদা নবী ও আগুন। শিল্পীদের পরিবেশন করা গানগুলোর সঙ্গীত পরিচালনায় ছিলেস ইবরান টিপু, বালাম, অদিত, ফুয়াদ এবং আরেফিন রুমী। অনুষ্ঠানের মূল সঞ্চালক আফজাল হোসেনকে উপস্থাপনায় সহযোগিতা করেন মৌসুমী বড়–য়া।    
   
৬ষ্ঠ সিটিসেল-চ্যানেল আই মিউজিক অ্যাওয়ার্ডসের ধারণকৃত অনুষ্ঠানটি ১০ডিসেম্বর, চ্যানেল আই’র পর্দায় বেলা ২টা ৪০ মিনিটে সম্প্রচার করা হবে।

বাংলাদেশ স্থানীয় সময় ১৩৫০, ডিসেম্বর ০৪, ২০১০

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa