ঢাকা, শুক্রবার, ৭ মাঘ ১৪২৮, ২১ জানুয়ারি ২০২২, ১৭ জমাদিউস সানি ১৪৪৩

আন্তর্জাতিক

নেশা যখন বৈদ্যুতিক বাতি খাওয়ার !

আন্তর্জাতিক ডেস্ক | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ০৫৩৩ ঘণ্টা, জুলাই ২৫, ২০১০
নেশা যখন বৈদ্যুতিক বাতি খাওয়ার !

চীনের নাগরিক ওয়াং জিয়ানজুন দেখতে হয়তো ততটা উজ্জ্বল নন। তবে যে জিনিসটি তিনি প্রায় প্রতিদিনিই খেয়ে থাকেন তা যথেষ্ঠ উজ্জল আলো ছড়ায়।

জিনিসটি হলো বৈদ্যুতিক বাতি। ওয়াং নিজেই স্বীকার করেছেন যে তিনি নেশাগ্রস্তের মত বৈদ্যুতিক বাতি খেয়ে থাকেন।

২৫ বছর বয়সী ওয়াং এ পর্যন্ত এক হাজার কাঁচের আলোর বাল্ব কড়মড় করে চিবিয়ে খেয়েছেন বলে দ্য সান পত্রিকা জানায়। সাধারণত তিনি মাসে ২৫ টির মতো বাল্ব খেয়ে থাকেন।

তিনি বলেন, “১২ বছর বয়সে আমি আমার জীবনের প্রথম বৈদ্যুতিক বাতিটি খাই। বন্ধুদের সঙ্গে বাজি ধরেই আমি একাজটা করেছিলাম।   তবে সত্যি কথা বলতে কি, খাওয়ার পর আমার বেশ ভালই লাগছিল। এ অনুভূতি ছিলো খুবই সন্তোষজনক। ”

তবে ওয়াং এর পরিবারের অনুভূতি তাঁর সঙ্গে মিলে না। এ উদ্ভট স্বভাবের জন্য তাঁর পরিবারের উদ্বেগ ক্রমেই বাড়ছে। আরো দুর্ভগ্যজনক ঘটনা হলো, বৈদ্যুতিক বাতি খাওয়ার নেশার কারণে ওয়াং এর বিয়েও ভেঙ্গে গিয়েছে।

ওয়াং বলেন, “আমার স্ত্রী মূলত এ কারণেই আমাকে ছেড়ে চলে যায়। তার কাছে এটা খুবই অস্বাভাবিক বলে মনে হতো। আমি স্বীকার করি যে বিয়ের সময় বৈদ্যুতিক বাতি খাওয়ার নেশার বিষয়টা আমি চেপে গিয়েছিলাম। বিয়ের পর আমি গোপনে বাতি খেতাম! কিন্তু একদিন সে আমাকে হাতেনাতে ধরে ফেলে। এর কিছুদিন পরই সে আমাকে ছেড়ে চলে যায়। ”

ভালো সংবাদটি হলো এ খাদ্যাভাসের কারণে এখনো পর্যন্ত ওয়াং এর গুরুতর কোন শারীরিক পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া দেখা দেয়নি। কাজেই ওয়াং আনন্দসহকারেই চালিয়ে যেতে পারেন তাঁর বৈদ্যুতিক বাতি খাওয়ার অভ্যাস!

বাংলাদেশ স্থানীয় সময়: ১৫১৮ ঘণ্টা, জুলাই ২৫, ২০১০

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa