ঢাকা, শুক্রবার, ২৮ শ্রাবণ ১৪২৯, ১২ আগস্ট ২০২২, ১৩ মহররম ১৪৪৪

আইন ও আদালত

স্ত্রীর মামলায় জেলে, অবশেষে কাবিন হলো বিচারকের খাস কামরায়

ডিস্ট্রিক্ট করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ২১৩৬ ঘণ্টা, জুলাই ৬, ২০২২
স্ত্রীর মামলায় জেলে, অবশেষে কাবিন হলো বিচারকের খাস কামরায়

ব্রাহ্মণবাড়িয়া: দীর্ঘদিনের প্রেম। তারপর কাবিন ছাড়াই ধর্মীয় রীতিতে হয় বিয়ে।

বিয়ের পর কথা ছিল বরপক্ষ কাবিন করবে। কিন্তু পরে বরপক্ষ নানা টালবাহানা শুরু করে। কনেপক্ষ বার বার কাবিনের প্রসঙ্গ টানলেই তা এড়িয়ে যায়। তাই বাধ্য হয়ে মামলা করা হয় আদালতে। সব শুনে বিচারক নিজেই দায়িত্ব নিয়ে খাস কামরায় বিয়ের কাবিননামা সম্পন্ন করেন। চঞ্চল্যকর এ ঘটনা ঘটেছে ব্রাহ্মণবাড়িয়া সিনিয়র জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে।  

খোঁজ নিয়ে জানা যায়, প্রেমের সম্পর্ক থাকায় ২০২১ সালের ১২ ফেব্রুয়ারি ধর্মীয়ভাবে জেলার আশুগঞ্জ উপজেলার চরচারতলা গ্রামের ইকবাল মিয়ার মেয়ে সাদিয়া আক্তার (১৮) ও একই গ্রামের আব্দুল খালেকের ছেলে রাসেল মিয়ার (২৪) বিয়ে সম্পন্ন হয়। তবে তখন বিয়ে রেজিস্ট্রেশন করা হয়নি।  

কিন্তু বিয়ের ক’দিন যেতে না যেতেই স্বামী রাসেল মিয়া কাবিন করা নিয়ে নানা টালবাহানা করতে থাকেন। এ ঘটনায় সাদিয়া এ বছরের ৫ এপ্রিল আদালতে মামলা দায়ের করেন। আসামি হাজিরা দিয়ে জামিন চাইলে, তার জামিন না মঞ্জুর করে আদালত তাকে কারাগারে পাঠান। বুধবার ছিল এ মামলার তারিখ। এদিন আদালতে আসামি হাজির হলে সিনিয়র জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আফরিন আহমেদ হ্যাপী নিজে উদ্যোগ নিয়ে তাদের কাবিন করিয়ে দেন। আর রাসেলকে বুঝিয়ে খাস কামরায় ডেকে দুই লাখ টাকা দেনমোহরে কাবিননামা করে পুনরায় দু’জনের বিয়ে দেন। বিচারক নিজে কনেকে শাড়ি ও বিয়ের অন্যান্য উপহার দেন। আদালতের এমন উদ্যোগে উপস্থিত সবাই খুশি।  

বাংলাদেশ সময়: ২১২২ ঘণ্টা, জুলাই ০৬, ২০২২
এসআই

 

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa