ঢাকা, শনিবার, ২১ মাঘ ১৪২৯, ০৪ ফেব্রুয়ারি ২০২৩, ১২ রজব ১৪৪৪

জাতীয়

‘সরকারের একার পক্ষে দেশের উন্নয়ন করা সম্ভব নয়’

সিনিয়র করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ০০৩৮ ঘণ্টা, ডিসেম্বর ৪, ২০২২
‘সরকারের একার পক্ষে দেশের উন্নয়ন করা সম্ভব নয়’

ঢাকা: সাবেক সংস্কৃতিমন্ত্রী আসাদুজ্জামান নুর বলেছেন, দেশ যখন অগ্রসর হয়, সেই দেশ যদি হয় ১৮ কোটি মানুষের দেশ, সরকারের একার পক্ষে উন্নয়ন সম্ভব নয়। সরকারের সঙ্গে জনগণের সহযোগিতা লাগে।

একসঙ্গে অগ্রসর হতে হয়। বিভিন্ন জনের বিভিন্ন সমস্যা আসে। সরকার চেষ্টা করে যাচ্ছে দেশের মানুষের ভাগ্যের পরিবর্তনের জন্য।   

শনিবার (৩ ডিসেম্বর) দুপুরে এসডিজি বাস্তবায়নে নাগরিক প্ল্যাটফর্ম আয়োজিত ‘জাতীয় উন্নয়ন এবং স্থানীয় বাস্তবতা’ শীর্ষক জনশুনানি অনুষ্ঠানে বিভিন্ন এলাকা থেকে আগত নাগরিক ও সুশিল সমাজের প্রতিনিধিদের বক্তব্যের জবাবে তিনি এ কথা বলেন।  

রাজধানীর কৃষিবিদ ইনস্টিটিউশনে এ শুনানি অনুষ্ঠিত হয়।  

আসাদুজ্জামান নুর বলেন, এখানে যেসব সমস্যার কথা বলা হয়েছে, এগুলোর ব্যাপারে সরকারের অনেকগুলো উদ্যোগ আছে; সমাধান করছে। এখানে আপনারাই বলেছেন, অনেকগুলো সরকারকে জানানো হয়নি। অথবা যারা এগুলো বাস্তবায়নের দায়িত্বে আছেন, আমলারা আছেন, জনপ্রতিনিধিরা আছেন; তারা দায়িত্ব সঠিকভাবে পালন করতে পারছেন না।

প্রান্তিক মানুষের সমস্যা সমাধানে সরকারের উদ্যোগ যথেষ্ট নয়, এমন বক্তব্যের জবাবে তিনি বলেন, সরকারের সুযোগ-সুবিধা ব্যাপক। একজন জনপ্রতিনিধি ইচ্ছা করলে সেই সুযোগগুলো নিয়ে অনেক কাজ করতে পারেন। আজকে এখানে যে যে সমস্যার কথা বলা হলো তার অনেকগুলোই আমার এলাকায় বাস্তবায়ন করতে পেরেছি। এগুলো সম্ভব। এ সুযোগ-সুবিধা সরকার করে দিয়েছে। এগুলো নিতে হবে। নেওয়ার ক্ষেত্রে যদি সমস্যা হয় তাহলে ভিন্ন কথা। আর সেজন্যই সমালোচনাগুলো ভেসে আসে। দেশ এগিয়েছে। দেশ উন্নত হয়েছে। উন্নয়নের পাশাপাশি অনেকগুলো সমস্যাও রয়েছে। এগুলো বাস্তবতা। এগুলো আমরা অস্বীকার করি না।  

একইসঙ্গে সব জায়গা অগ্রগতি সাধন করা যায় না উল্লেখ করেন তিনি বলেন, সরকারের সমালোচনা হতেই পারে। এ ব্যাপারে আমার বলার কিছু নেই। এখানে বলা হলো কথা বলতে পারি না, কথা বললেই ভয়-ভীতি দেখানো হয়। কথা না বলতে পারলে এখানে কিভাবে কথা বললেন। যারা কথা বললেন তাদের মধ্যে কোনো ভীতি লক্ষ্য করলাম না। সবাই তো শক্তভাবেই কথা বলছিলেন। সরকারের পরিকল্পিত উন্নয়ন কার্যক্রমের ফলে উত্তরাঞ্চল দুঃখ মঙ্গা আর নেই।  

আসাদুজ্জামান নুর বলেন, আমার এলাকা নীলফামারী মঙ্গা পীড়িত ছিল। সেখানে মানুষ না খেয়ে থাকতো। আমাদের এলাকায় একটি কথা প্রচলিত, হাতি ঠ্যালা যায় কিন্তু কার্তিক ঠ্যালা যায় না। আশ্বিন, কার্তিক, অগ্রায়ন- এই তিন মাস খাদ্যের অভাব হতো। এ খাদ্যের অভাব দুর্ভিক্ষের কারণে নয়, কর্মের অভাব হতো। মানে কাজ থাকতো না, উপার্জন থাকতো না বলে মানুষ মঙ্গার এই তিনটা মাস আমাদের কাছে দুর্বিসহ ছিল। উত্তরাঞ্চলের কোনো কিশোরকে জিজ্ঞাসা করলে বলতে পারবে না মঙ্গা কি। মঙ্গা এখন একটা জাদুঘরের বিষয় বস্তু। আমাদের এ রকম অর্জন অনেক।  

বাংলাদেশ সময়: ০০৩৩ ঘণ্টা, ডিসেম্বর ০৪, ২০২২
জেডএ/এএটি

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa