ঢাকা, মঙ্গলবার, ১৫ অগ্রহায়ণ ১৪২৮, ৩০ নভেম্বর ২০২১, ২৪ রবিউস সানি ১৪৪৩

জাতীয়

ব্যবসায়ীর মৃত্যু, স্ত্রী-সন্তানসহ দুই ভাই আটক    

ডিস্ট্রিক্ট করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১২৩১ ঘণ্টা, অক্টোবর ১৬, ২০২১
ব্যবসায়ীর মৃত্যু, স্ত্রী-সন্তানসহ দুই ভাই আটক    

নাটোর: নাটোরের নলডাঙ্গা উপজেলার মোমিনপুর গ্রামে মো. আব্দুর রাজ্জাক ওরফে কালু (৪০) নামে এক মুদি ব্যবসায়ীর রহস্যজনক মৃত্যু হয়েছে।  

এ ঘটনায় স্ত্রী সালমা বেগম (৩৫), ছেলে হৃদয় (১৬) ও ভাই সেন্টুসহ চারজনকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য থানায় নিয়ে আসা হয়েছে।

শুক্রবার (১৫ অক্টোবর) দিনগত রাত দেড়টার সময় এই মৃত্যুর ঘটনা ঘটে। তবে এ মৃত্যু নিয়ে রহস্য রয়েছে বলে স্থানীয়রা দাবি করেছেন।  
নিহত আব্দুর রাজ্জাক ওই গ্রামের আবদুল হামিদ খানের ছেলে।  

নলডাঙ্গা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. শফিকুল ইসলাম এ তথ্য নিশ্চিত করে বাংলানিউজকে জানান, আব্দুর রাজ্জাক পেশায় একজন মুদি দোকানি। পাশাপাশি কৃষি শ্রমিকের কাজ করতেন। তার এক ছেলে ও এক মেয়ে রয়েছে। শুক্রবার দিনগত রাতে দোকান থেকে ফিরে খাবার খেয়ে স্বামী-স্ত্রী একসঙ্গে ঘুমিয়ে পড়েন। রাত দেড়টার সময় স্ত্রী সালমা চিৎকার করে বলেন তার স্বামী মারা গেছেন।  

এ সময় পরিবারের লোকজনসহ প্রতিবেশীরা ছুটে এসে আব্দুর রাজ্জাককে মৃত অবস্থায় দেখতে পান। এ নিয়ে শুরু হয় তুমুল হইচই। স্ত্রী সালমা তার স্বামীকে হত্যা করেছে এমন অভিযোগ এনে স্থানীয় লোকজন তাকে আটকে রেখে পুলিশে খবর দেন। পাশাপাশি এ ঘটনাকে ঘিরে এলাকায় তুমুল হইচই শুরু হয়।  

খবর পেয়ে শনিবার সকালে ঘটনাস্থল থেকে আব্দুর রাজ্জাকের মরদেহ উদ্ধার করে পুলিশ। একইসঙ্গে এলাকাবাসী রাজ্জাকের স্ত্রী সালমা বেগমকে পুলিশে সোপর্দ করেন। পরে এ ঘটনার রহস্য জানতে ছেলে হৃদয় (১৬) ও  নিহতের দুই ভাইকে প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদের জন্য থানায় নিয়ে আসা হয়েছে। তাদের জিজ্ঞাসাবাদ করা হচ্ছে।  

তবে এখনো পর্যন্ত তার মৃত্যুর রহস্য জানা যায়নি। নিহতের মরদেহ ময়নাতদন্তের জন্য নাটোর সদর হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হচ্ছে। ময়নাতদন্ত রিপোর্ট পেলেই এর আসল রহস্য জানা যাবে। তবে প্রাথমিক তদন্তে দেখা গেছে নিহতের গলায় আঘাতের চিহ্ন রয়েছে। এটি স্বাভাবিক মৃত্যু না শ্বাসরোধে হত্যা তা এখনো নিশ্চিত হওয়া যায়নি। স্ত্রী-ছেলে ও ভাইদের জিজ্ঞাসাবাদ করা হচ্ছে। তাদের স্বীকারোক্তি মোতাবেক এবং পরিবারের লোকজনের তথ্যমতে মৃত্যুর কারণ জানা গেলে পরবর্তীতে পদক্ষেপ নেওয়া হবে।  

ওসি বলেন, এ ঘটনায় এখনও কেউ থানায় কোনো অভিযোগ করেননি। অভিযোগ পেলে তদন্ত সাপেক্ষে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।  

স্থানীয়দের বরাত দিয়ে ওসি আরো বলেন, আব্দুর রাজ্জাকের স্ত্রী সালমা বেগমের সঙ্গে একই গ্রামের আহমদ আলী নামে একজন ব্যক্তির পরকীয়া সম্পর্ক রয়েছে বলে জানা গেছে। এরই পরিপ্রেক্ষিতে রাজ্জাকের মৃত্যু হয়েছে কিনা সে বিষয়টি খতিয়ে দেখা হচ্ছে।  

এদিকে নিহতের বাবা আব্দুল হামিদ খান অভিযোগ করে বাংলানিউজকে বলেন, তার ছেলের সঙ্গে সংসার করতে চাইত না সালমা। এ নিয়ে মাঝেমধ্যে তাদের মধ্যে ঝগড়া-বিবাদ হতো। স্ত্রী হয়ে স্বামীকে নির্যাতন করতো এবং মাঝেমধ্যে স্বামীর সঙ্গে এক ঘরে ঘুমাতো না। পরকীয়ার অভিযোগ করে তিনি আরও বলেন, তার ছেলেকে শ্বাসরোধে হত্যা করা হয়েছে। এ ব্যাপারে তিনি আইনগত ব্যবস্থা নেবেন।  

বাংলাদেশ সময়: ১২২৮ ঘণ্টা, অক্টোবর ১৬, ২০২১  
আরএ

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa