ঢাকা, মঙ্গলবার, ৩১ শ্রাবণ ১৪২৯, ১৬ আগস্ট ২০২২, ১৭ মহররম ১৪৪৪

জাতীয়

সারা রাত লাইনে দাঁড়িয়েও টিকিট পাননি নারীরা

নিশাত বিজয়, স্টাফ করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১৩০৩ ঘণ্টা, জুলাই ৩, ২০২২
সারা রাত লাইনে দাঁড়িয়েও টিকিট পাননি নারীরা ঈদের আগাম টিকিট নিতে কমলাপুর রেলস্টেশনে আগের দিন রাত থেকে অপেক্ষা করেছেন অনেক নারী | ছবি: ডিএইচ বাদল

ঢাকা: সারা রাত কমলাপুর রেলস্টেশনে কাটিয়ে, প্রায় ২০ ঘণ্টা ধরে লাইনে দাঁড়িয়ে থেকেও টিকিট পাননি কমলাপুর রেলস্টেশনে ঈদের আগাম টিকিট কাটতে আসা নারীরা। টিকিট না পেয়ে কমলাপুর রেলস্টেশন ম্যানেজারের কক্ষে গিয়ে ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন তারা।

টিকিটপ্রত্যাশী এক নারী ক্ষোভ প্রকাশ করে বলেন, রাতভর কমলাপুর রেলস্টেশনে লাইনে দাঁড়িয়ে অপেক্ষা করেছি। তবুও টিকিট মেলেনি। অল্প কয়েকজনকে টিকিট দেওয়ার পর বলছে টিকিট শেষ হয়ে গেছে!

রোববার (৩ জুলাই) সকাল কমলাপুর রেলস্টেশন ম্যানেজারের কক্ষে টিকিট না পাওয়া নারী যাত্রীদের ক্ষোভ প্রকাশ করতে দেখা যায়।



কমলাপুর রেলস্টেশনে মোট ১০টি কাউন্টার থেকে টিকিট বিক্রি করা হচ্ছে। এর মধ্যে নয়টি কাউন্টার থেকে পুরুষদের টিকিট দেওয়া হচ্ছে। আর মাত্র একটি কাউন্টার থেকে দেওয়া হচ্ছে নারীদের টিকিট। নারীদের জন্য বরাদ্দ কাউন্টার থেকেই শারীরিক প্রতিবন্ধীদের টিকিটও বিক্রি করা হচ্ছে।

শারমিন নামে এক যাত্রী বলেন, গতকাল থেকে লাইনে দাঁড়িয়ে আছি। এরপরও টিকিট পাইনি। নারীদের লাইনে খুব কম টিকিট দেওয়া হচ্ছে। আমাদের একজনকে টিকিট দিয়ে পুরুষদের ৫-৬ জনকে দেওয়া হয়ে যাচ্ছে।

আরেক নারী বলেন, এতগুলো নারীর জন্য মাত্র একটা কাউন্টার। তার ওপর এখানে শারীরিক প্রতিবন্ধীদেরও টিকিট দেওয়া হচ্ছে। আমাদের ওপর জুলুম করা হচ্ছে! এত কষ্ট করেও টিকিট না পেলে আমরা বাড়ি যাব কীভাবে?

তবে এসব অভিযোগ অস্বীকার করেছেন কমলাপুর রেলস্টেশন ম্যানেজার মাসুদ সারওয়ার। তিনি বলেন, নারীদের জন্যে আলাদা লাইন করে দেওয়া হয়েছে। সেজন্য সংকট তৈরি হওয়া স্বাভাবিক। তবে কিছু অব্যবস্থাপনা আছে বলেও স্বীকার করেন তিনি।



সংশ্লিষ্ট সূত্র জানিয়েছে, এবার ঈদে ছয় জোড়া বিশেষ ট্রেন পরিচালনা করা হচ্ছে। গতবারের মতো এবারও ৫০ শতাংশ টিকিট কাউন্টারে এবং বাকি ৫০ শতাংশ টিকিট মিলছে অনলাইনে।

রোববার (৩ জুলাই) দেওয়া হচ্ছে ৭ জুলাইয়ের আগাম টিকিট। ৪ জুলাই দেওয়া হবে ৮ জুলাইয়ের টিকি এবং ৫ জুলাই দেওয়া হবে ৯ জুলাইয়ের টিকিট।

স্টেশন সূত্রে জানা গেছে, প্রতিদিন সকাল ৮টা থেকে বিকেল ৪টা পর্যন্ত কাউন্টারে এবং অনলাইনে টিকিট বিক্রি করা হবে। জাতীয় পরিচয়পত্র বা জন্ম নিবন্ধনের ফটোকপি দেখিয়ে টিকিট কাটতে হবে যাত্রীদের।

ঢাকার কমলাপুর স্টেশনে সমগ্র উত্তরাঞ্চলগামী আন্তঃনগর ট্রেনের টিকিট, কমলাপুর শহরতলী প্ল্যাটফর্ম থেকে রাজশাহী ও খুলনাগামী ট্রেনের টিইকট পাওয়া যাচ্ছে।

এবারই প্রথম ঈদুল আজহা উপলক্ষে গার্মেন্টস শ্রমিকদের জন্য ঈদে গাজীপুরের জয়দেবপুর থেকে বিশেষ ট্রেন পরিচালনা করা হবে। ‘বীর মুক্তিযোদ্ধা সিরাজুল ইসলাম ঈদ স্পেশাল’ নামের ওই ট্রেন গাজীপুরের জয়দেবপুর থেকে পঞ্চগড় পর্যন্ত চলাচল করবে। তবে রংপুর ও লালমনিরহাটের যাত্রীরা পার্বতীপুর থেকে কানেকটিং ট্রেনে ফিরতে পারবেন। জয়দেবপুর এবং কমলাপুরে এই বিশেষ ট্রেনের টিকিট বিক্রি করা হবে।

অন্যদিকে, ঈদের ফেরতি টিকিট বিক্রি শুরু হবে ৭ জুলাই। ঈদ শেষে ফিরতি ট্রেনের ক্ষেত্রে ১১ জুলাইয়ের টিকিট পাওয়া যাবে ৭ জুলাই, ১২ জুলাইয়ের ট্রেনের টিকিট ৮ জুলাই, ১৩ জুলাইয়ের টিকিট ৯ জুলাই এবং ১৪ ও ১৫ জুলাইয়ের টিকিট পাওয়া যাবে ১১ জুলাই।

বাংলাদেশ সময়: ১২৪০ ঘণ্টা, জুলাই ০৩, ২০২২
এনবি/এমজেএফ

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa