ঢাকা, মঙ্গলবার, ১১ আশ্বিন ১৪২৯, ২৭ সেপ্টেম্বর ২০২২, ০০ রবিউল আউয়াল ১৪৪৪

জাতীয়

খেলার মাঠে বাগবিতণ্ডার জেরে জনসম্মুখে কিশোরকে ছুরিকাঘাত!

ডিস্ট্রিক্ট করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ০৯৫৭ ঘণ্টা, আগস্ট ১৩, ২০২২
খেলার মাঠে বাগবিতণ্ডার জেরে জনসম্মুখে কিশোরকে ছুরিকাঘাত!

পঞ্চগড়: পঞ্চগড়ে মাঠে ফুটবল খেলা নিয়ে বিরোধের জেরে জনসম্মুখে ছুরিকাঘাতে এক কিশোরকে গুরুতর আহত করা হয়েছে। সোহেল রানা (১৯) নামের আহত কিশোরকে উন্নত চিকিৎসার জন্য পাঠানো হয়েছে ঠাকুরগাঁও সদর হাসপাতালে।

শুক্রবার (১২ আগস্ট) সন্ধায় জেলার আটোয়ারী উপজেলার বলরামপুর ইউনিয়নের লিলারমেলা নামক বাজারে এ ঘটনা ঘটে। আহত সোহেল রানা একই ইউনিয়নের বলরামপুর এলাকার বরকাতুল্লার ছেলে।

এদিকে ঘাতক কিশোর ফরহাদ হোসেন (১৮) ঠাকুরগাঁও-এর দেবীপুর ইউনিয়নের শ্যামাগাঁও গ্রামের মৃত নুরল হকের ছেলে।  

স্থানীয় ও ইউনিয়ন পরিষদ সূত্রে জানা যায়, বলরামপুর ইউনিয়ের লিলারমেলা দাখিল মাদরাসা মাঠে বৃহস্পতিবার (১১ আগস্ট) ফুটবল খেলায় টাকা দিয়ে বাজি ধরার কথা বলে ফরহাদ। এ নিয়ে দুজনের মধ্যে বাগবিতণ্ডা হয়। পরে শুক্রবার সকালে মাদরাসা মাঠে দুজনে খেলতে গিয়ে মাঠ ভাগাভাগি নিয়ে ঝগড়ায় শুরু করে। উপস্থিত যুবকদের সহায়তায় তাদের সেখান থেকে আলাদা করা হয়।  

এদিকে সন্ধায় লিলারমেলা বাজারে কোনো কিছু বুঝে ওঠার আগেই ফরহাদ একটি ছুরি সোহেলের পেটে ঢুকিয়ে দিয়ে পালানোর চেষ্টা করে। এক পর্যায়ে সোহেল রক্তাক্ত অবস্থায় পড়ে গেলে তার সহপাঠী ও স্থানীয়রা ফরহাদকে ধাওয়া করে। এসময় ঘাতক ফরহাদ একটি দোকানে ঢুকে স্থানীয়দের হাত থেকে নিজেকে আত্মরক্ষার জন্য নিজের হাতের আঙ্গুল কেটে দেয়। পরে স্থানীয়রা তাকে অবরুদ্ধ করে ইউপি চেয়ারম্যানকে খবর দেয়।  

অন্যদিকে সোহেলকে দ্রুত উদ্ধার করে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নেওয়া হয়। অবস্থার অবনতি হওয়ায় চিকিৎসক তাকে উন্নত চিকিৎসার জন্য রাতেই ঠাকুরগাঁও সদর হাসপাতালে পাঠান চিকিৎসক।  

প্রত্যক্ষদর্শীরা বাংলানিউজকে বলেন, বাজারে কেউ কোনো কিছু বুঝে উঠার আগেই পুরো ফিল্মি স্টাইলে ছুরি মারা হয় সোহেলকে।  
এ ঘটনায় আহত সোহেলের পরিবার ও স্থানীয়রা অপরাধীকে আইনের আওতায় এনে কঠোর শাস্তির দাবি জানিয়েছেন।  

বলরামপুর ইউনিয়ন পরিষদের (ইউপি) চেয়ারম্যান দেলোয়ার হোসেন বিষয়টি নিশ্চিত করে বাংলানিউজকে বলেন, প্রথমে জুয়া খেলা, এরপর খেলার মাঠ ভাগাভাগি নিয়ে তাদের মধ্যে ঝগড়া হয়। শুক্রবার সন্ধায় বাজারে ফরহাদ সোহেলের পেটে ছুরি মেরে দেয়। তাকে দ্রুত উদ্ধার করে চিকিৎসার জন্য হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। এদিকে ছুরিকাঘাতকারী ফরহাদকে পুলিশের হাতে তুলে দিয়ে তাকেও পঞ্চগড় আধুনিক সদর হাসপতালে চিকিৎসা দেওয়া হচ্ছে।

আটোয়ারী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) সোহেল রানা বাংলানিউজকে বলেন, খবর পেয়ে রাতে ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছি। অভিযোগের আগেই আমরা তদন্ত ও আইনি ব্যবস্থা নিয়েছি। তবে গুরুতর আহত সোহেলের পরিবারের পক্ষ থেকে থানায় অভিযোগ করা হলে মামলা নেওয়া হবে।  

বাংলাদেশ সময়: ০৯৫৯ ঘণ্টা, আগস্ট ১৩, ২০২২
এসএ

    
 

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa