ঢাকা, রবিবার, ১৭ আশ্বিন ১৪২৯, ০২ অক্টোবর ২০২২, ০৫ রবিউল আউয়াল ১৪৪৪

রাজনীতি

ইয়াবাসহ আটকের পর ছাত্রলীগ নেতাকে ছেড়ে দিলো র‌্যাব!

ডিস্ট্রিক্ট করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ২০৪৫ ঘণ্টা, ফেব্রুয়ারি ১৩, ২০২১
ইয়াবাসহ আটকের পর ছাত্রলীগ নেতাকে ছেড়ে দিলো র‌্যাব!

মানিকগঞ্জ: মানিকগঞ্জের সিংগাইর উপজেলার ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক ফারুক হোসেন মিরু ও তার সহযোগী জালাল উদ্দিনকে ১৩৫ ইয়াবাসহ  আটকের পর ছেড়ে দেওয়ার অভিযোগ উঠেছে মানিকগঞ্জ র‌্যাবের বিরুদ্ধে।  

শনিবার (১৩ ফেব্রুয়ারি) দুপুর ২টার দিকে উপজেলার সিঙ্গাইর-সিরাজপুর সড়কের আজিমপুর নয়াডাঙ্গি এলাকা থেকে তাদের আটকের পর ছেড়ে দেন বলে জানান স্থানীয়রা।

তবে অভিযানে নেতৃত্বদানকারী র‌্যাব-৪ মানিকগঞ্জের কোম্পানি কমান্ডার সিপিসি-৩ এর এএসপি অনু মং ইয়াবাসহ মিরুকে আটকের কথা স্বীকার করে বলেন, শত্রুতাবশত কেউ তার মোটরসাইকেলের ভেতর ইয়াবা রাখতে পারে। তারা ইয়াবা বিক্রির সঙ্গে সম্পৃক্ত নন। এমনটা মনে হওয়ায় তাদের ছেড়ে দেওয়া হয়।  

প্রত্যক্ষদর্শী ও স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, শনিবার দুপুর ২টার দিকে র‌্যাব-৪ মানিকগঞ্জ জেলা কোম্পানি কমান্ডার সিপিসি-৩ এর এএসপি অনু মংয়ের নেতৃত্বে একদল র‌্যাব সদস্য সিঙ্গাইর-সিরাজপুর সড়কের আজিমপুর নয়াডাঙ্গি এলাকায় অভিযান চালায়। এসময় সিঙ্গাইর উপজেলা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক ফারুক হোসেন মিরু ও তার সহযোগী সোহেল ওরফে জালাল উদ্দিনকে আটক করে র‌্যাব।  

আটকের পর স্থানীয় লোকজনের উপস্থিতিতে ফারুক হোসেন মিরুর ব্যবহৃত মোটরসাইকেলের হ্যান্ডেলের ভিতরে বিশেষ কায়দায় রাখা ১৩৫ পিস ইয়াবা উদ্ধার করেন। এ ঘটনার আধাঘণ্টা পর উদ্ধার হওয়া ইয়াবা রেখে মিরু ও তার সহযোগী জালাল উদ্দিনকে ছেড়ে দিয়ে চলে যায় র‌্যাব।

এ ব্যাপারে ফারুক হোসেন মিরুর সঙ্গে মোবাইলে কথা হলে তিনি বাংলানিউজকে বলেন, তার সঙ্গে র‍্যাবের কারো দেখা হয়নি।

র‌্যাব-৪ মানিকগঞ্জ জেলার কোম্পানি কমান্ডার সিপিসি-৩ এর এএসপি অনু মং ইয়বা জানান, গোপন সংবাদের ভিত্তিতে সিঙ্গাইর পৌর এলাকার আজিমপুর নয়াডাঙ্গি এলাকায় অভিযান চালানো হয়। অভিযান চলাকালে উপজেলা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক ফারুক হোসেন মিরুর ব্যবহৃত মোটরসাইকেলের হ্যান্ডেলের ভিতরে বিশেষ কায়দায় রাখা ১৩৫ পিস ইয়াবা পাওয়া যায়।  

এসময় মিরু ও তার সহযোগীকে আটক করে জিজ্ঞাসাবাদ করা করা হয়। তাদের সঙ্গে কথা বলে মনে হয়েছে, ইয়াবা বিক্রির সঙ্গে তারা সম্পৃক্ত নন। অসৎ উদ্দেশে কেউ মিরুর মোটরসাইকেলের হ্যান্ডেলের ভিতর ইয়াবা রেখে দিয়েছিল। এমন ধারণা থেকে ইয়াবা রেখে মিরু ও তার সহযোগী জালাল উদ্দিনকে ছেড়ে দেওয়া হয়।

বাংলাদেশ সময়: ২০৪৩ ঘণ্টা, ফেব্রুয়ারি ১৩, ২০২১
এনটি

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa