ঢাকা, শনিবার, ১ কার্তিক ১৪২৮, ১৬ অক্টোবর ২০২১, ০৮ রবিউল আউয়াল ১৪৪৩

অপার মহিমার রমজান

চার শিশুর প্রথম রোজার অনুভূতি

| বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ০৯৫১ ঘণ্টা, জুন ৩, ২০১৭
চার শিশুর প্রথম রোজার অনুভূতি জুবায়ের আহমদ, সাদানা আমীন আফনান, আইমান ইসলাম ও সাইয়্যেদা তাইফা নূর

জীবনের যেকোনো কিছুর প্রথম মানেই অন্যরকম ভালোলাগা, আলাদা অনুভূতি। তবে, সেই প্রথমের বিষয়টা যদি রোজা হয়- তাহলে তো কথাই নেই। অনুভূতির মাত্রাটা হয় সম্পূর্ণ আলাদা।

‘অপার মহিমার রমজান’ আজকের আয়োজনে এমনই কয়েকজন শিশুর ‘প্রথম রোজার অনুভূতি’ প্রকাশ করা হলো।

জুবায়ের আহমদ
জুবায়ের আহমদ।

সাত বছর বয়সে জীবনের প্রথম রোজা রেখেছে। জামিয়া রাহমানিয়া আরাবিয়ায় হেফজ বিভাগে অধ্যয়নরত এই শিশু। এরই মধ্যে ১১ পারা পবিত্র কোরআন মুখস্থ করেছে।

তার গ্রামের বাড়ি মানিকগঞ্জ জেলার গোকলনগর গ্রামে। পিতার নাম হাফেজ মাওলানা ইসমাঈল হোসেন। জামিয়া রাহমানিয়ার আগে মানিকগঞ্জ সিঙ্গাইরের মাদরাসা আবু হুরায়রায় বাবার কাছে মক্তব ও নাজেরা পড়েছে।

প্রথম রোজার অনুভূতিটা তার এমন- ‘রোজা রেখে আমার দারুণ ভালো লেগেছে। প্রথম রোজা রাখতে পেরে আমি খুশি। কিছুটা কষ্ট হয়েছে, ক্ষুধা লেগেছে। তারপরও প্রতিদিন রোজা রাখতে ইচ্ছে করে, কিন্তু উস্তাদ ঘুম থেকে উঠতে দেয় না। সাহরি আর ইফতার খাওয়া অনেক আনন্দের। এই রমজানে আরও চারটা রোজা রাখতে চাই আমি। ’

ভবিষ্যতে হাফেজ, মাওলানা ও মুফতি হয়ে বড় আলেম হতে চায় জুবায়ের। নিজের পড়াশোনা এবং বাবা-মার জন্য সকলের কাছে দোয়া প্রার্থী।

সাদানা আমীন আফনান
সাদানা আমীন আফনান। আট বছর বয়সে জীবনের প্রথম রোজা রেখেছে সে। ঢাকা মোহাম্মদপুরের মাদরাসাতুল বানাত আল ইসলামিয়ায় হিফজ বিভাগে পড়াশোনা করছে সাদানা। ইতোমধ্যে ৫ পাড়া কোরআনে কারিম মুখস্থ করেছে সাদানা আমীন।  

তার গ্রামের বাড়ি কিশোরগঞ্জের ভৈরবে। পিতা মাওলানা আতাউল্লাহ আমীন।  

প্রথম প্রথম রোজা রেখে কেমন লাগছে? এমন প্রশ্নে সাদানা জানায়, ‘প্রথম রোজা রাখতে পেরে খুব ভালো লেগেছে। রাতে ঘুমানোর সময় আম্মুকে খুব করে বলে রেখেছিলাম, সাহরির সময় যেন আমাকে ডেকে তুলেন। আম্মু ডেকে তুলেছেন। সবার সঙ্গে সাহরি খেয়ে আমি রোজা রেখেছি। সারাদিন খুব বেশি কষ্ট হয়নি, তবে ক্ষুধা পেয়েছে, কয়েকবার পানি পিপাসাও লেগেছে; তাও খাইনি। সন্ধ্যায় সবার সঙ্গে ইফতার করে অনেক ভালো লেগেছে।

সাদানা জানায়, ‘অন্যদিন রোজা না রাখলেও আব্বু-আম্মুর সঙ্গে ইফতার করি। ইফতার আমার ভালো লাগে। এই রমজানে আরও ছয়টি রোজা রাখব আমি। ’

সাদানা হাফেজ হয়ে মাওলানা হতে চায়। তারপর অন্যকে কোরআন-হাদিসের শিক্ষা দিয়ে সমাজ আলোকিত করতে চায়। নিজের পড়াশোনা ও বাবা-মার জন্য দোয়া প্রার্থী সে।

আইমান ইসলাম
আইমান ইসলাম। ১০ বছর বয়সে জীবনের প্রথম রোজা রেখেছে। জামিয়াতুল আযীয আল ইসলামিয়ায় পবিত্র কোরআন পড়ছে সে। তার গ্রামের বাড়ি কেরাণীগঞ্জের উত্তর বাহিরচরে। পিতা মুহাম্মদ আজিজুল হক।

প্রথম রোজার অনুভূতি জানতে চাইলে আইমান বলে, ‘এ রমজান থেকে রোজা রাখছি আমি। এখন পর্যন্ত পাঁচটি রোজা রেখেছি। সামনের রোজাগুলোও রাখব- ইনশাআল্লাহ। রোজা রাখলে অনেক সওয়াব। তাই আমি রোজা রাখি। ’

সাহরি-ইফতার খেতে কেমন লাগে- এমন প্রশ্নের উত্তরে সে বলে, ‘সাহরির সময় ভাত খেতে ইচ্ছে করে না। তবুও রোজা রাখার জন্য খাই। তবে ইফতার ভালো লাগে। আনন্দের সঙ্গে সবাই মিলে ইফতার করি। ’

কোরআন-হাদিস পড়ে বড় আলেম হতে চায় আইমান। নিজের পড়াশোনা এবং বাবা-মার জন্য সবার কাছে দোয়া প্রার্থী।

সাইয়্যেদা তাইফা নূর
তাইফা নূর। সাইয়্যেদা তাইফা নূর ৭ বছর বয়সে প্রথম রোজা রেখেছে। তার পিতা এস এম আবদুল হান্নান এবং মাতা কোহিনুর ইয়াসমিন লিপি। সে বাদশাহ ফয়সল তাহফিজুল কোরআন একাডেমীর হিফজ বিভাগে অধ্যয়নরত এবং ইংলিশ ভার্সনের প্রথম শ্রেণীর ছাত্রী। তাইফাকে সবাই দুপুরে খেয়ে দিনে দু’টো করে রোজা রাখতে বললে, সে বলে সবাই একটি রাখে আমিও একটি রোজা রাখব। সে কড় হয়ে হাফেজে কোরআন হতে চায়। সে নিজের জন্য এবং আব্বু-আম্মুর জন্য সকলের দোয়া প্রার্থী।

ইসলাম বিভাগে লেখা পাঠাতে মেইল করুন: [email protected]

বাংলাদেশ সময়: ১৫৫২ ঘণ্টা, জুন ০৩, ২০১৭
এমএইউ/

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa