ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ৬ মাঘ ১৪২৮, ২০ জানুয়ারি ২০২২, ১৬ জমাদিউস সানি ১৪৪৩

আন্তর্জাতিক

নোবেল বিজয়ী জিয়াওবোকে মুক্ত করার আহ্বান ওবামার

আন্তর্জাতিক ডেস্ক | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১২৫৭ ঘণ্টা, অক্টোবর ৯, ২০১০
নোবেল বিজয়ী জিয়াওবোকে মুক্ত করার আহ্বান ওবামার

ওয়াশিংটন: শান্তিতে নোবেল জয়ী মানবাধিকারকর্মী লিউ জিয়াওবোকে মুক্ত করতে শুক্রবার চীনের কাছে আহ্বান জানিয়েছেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট বারাক ওবামা। এসময় তিনি লিউকে চীনের উত্তরসূরি হিসেবে উল্লেখ করেন।



লিখিত এক বিবৃতিতে ওবামা লেখক ও গণতান্ত্রিক প্রচারক লিউর নোবেল জয়ের বিষয়টিকে স্বাগত জানান।

ওবামা বলেন, ‘গত বছরই আমি বলেছিলাম যে যারা এ পুরস্কার অর্জন করবেন তারা আমার তুলনায় অনেক বেশি বিসর্জন দিয়েছেন। আর এ তালিকায় এখন যোগ হলো লিউ’র নাম যিনি তার বিশ্বাসকে প্রতিষ্ঠার জন্য নিজের স্বাধীনতা বিসর্জন দিয়েছেন। ’

তবে নোবেল কমিটির এ সিদ্ধান্তের কারণে ওবামা বর্তমানে জটিল রাজনৈতিক অবস্থানে আছেন। কেননা, চীন-যুক্তরাষ্ট্র সম্পর্ক বজায় রাখার কূটনীতিক বাস্তবতার বিরুদ্ধে নোবেল বিজয়ী হিসেবে এখানে তার নৈতিক দায়িত্ব পালনের মধ্যে ভারসাম্য প্রতিষ্ঠা করতে হবে।

ওবামা বলেন, ‘গত ৩০ বছরের মধ্যে চীন অর্থনৈতিক পুনর্গঠনে নাটকীয় অগ্রগতি সাধন করেছে এবং লক্ষ লক্ষ মানুষের দারিদ্র দূর করে তাদের জীবনের উন্নতি করেছে। তবে এ পুরস্কার আমাদের এটাই মনে করিয়ে দিচ্ছে যে দেশটির রাজনৈতিক পুনর্গঠন এখনও পিছিয়ে আছে এবং একইসঙ্গে এখানে প্রতিটি নারী-পুরুষ ও শিশুর মৌলিক মানবাধিকারকে শ্রদ্ধা করতে হবে। ’  

লিউর মুক্তির বিষয়ে আহ্বান জানিয়ে মার্কিন পররাষ্ট্রমন্ত্রী হিলারি ক্লিনটন বলেন, ‘সরকারের লিউ জিয়াওবো’র মত নাগরিকের গঠনমূলক ভূমিকা গুরুত্বের সঙ্গে বিবেচনা করা উচিত। ’

চীনের সঙ্গে এর আগে মানবাধিকারের বিষয়টি নিয়ে আলোচনা হলেও অধিকাংশ সময়ই তা ব্যক্তি পর্যায়ে আলোচিত হয়েছে বলে ওবামা প্রশাসন থেকে জানানো হয়।

তবে মানবাধিকার বিষয়টি চীন-যুক্তরাষ্ট্রের সম্পর্কের ক্ষেত্রে জলবায়ু পরিবর্তন ও বৈশ্বিক অর্থনীতির মত বিষয়গুলোতে সমস্যা তৈরি করবেনা বলে দায়িত্ব গ্রহনের পর পর হিলারি মন্তব্য করে সমালোচনা সম্মুখীন হন।

এদিকে কারাবন্দী লিউ জিয়াওবোকে শান্তিতে নোবেল পুরস্কার দিয়ে নরওয়ের কমিটি এটিকে ‘অসম্মানিত ও নিন্দিত’ করেছে। বলে চীন শুক্রবার মন্তব্য করে। এর মধ্য দিয়ে ওসলোর সঙ্গে বিদ্যমান সম্পর্ক ক্ষতিগ্রস্ত হবে বলেও সতর্ক করে দেয় দেশটি।

চীনের পররাষ্ট্রমন্ত্রণালয়ের ওয়েবসাইটে প্রকাশিত এক বিবৃতিতে মুখপাত্র মা জাওঝো বলেন, ‘চীনের আইন লঙ্ঘনের জন্য লিউ দোষী সাব্যস্ত হয়েছেন এবং চীনের বিচারকের রায়ে তাকে কারাদণ্ড দেওয়া হয়েছে। তার কার্যাবলী নোবেল শান্তি পুরস্কারের উদ্দেশ্যের সম্পূর্ণ বিপরীত। এ ব্যক্তিকে এ পুরস্কারে ভূষিত করে নোবেল কমিটি এ পুরস্কারকে অসম্মানিত ও অভিশপ্ত করেছে। ’

একইসঙ্গে সনদ ০৮ এর সহ-লেখক লিউ’র এ পুরস্কার প্রাপ্তির মধ্য দিয়ে চীন-নরওয়ের সম্পর্ক ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে বলেও বিবৃতিতেবলেন মা।

বাংলাদেশ স্থানীয় সময়:১২:১১ ঘণ্টা, অক্টোবর ৯, ২০১০

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa