ঢাকা, সোমবার, ১২ আশ্বিন ১৪২৮, ২৭ সেপ্টেম্বর ২০২১, ১৮ সফর ১৪৪৩

জাতীয়

লঞ্চ চলার খবরে বরিশালে রাজধানীমুখী ভিড়

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট  | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ২১১০ ঘণ্টা, আগস্ট ১, ২০২১
লঞ্চ চলার খবরে বরিশালে রাজধানীমুখী ভিড়

বরিশাল: লঞ্চ চলার খবরে বরিশাল নদীবন্দরে রাজধানীমুখী মানুষের ভিড় বেড়েছে। এরই মধ্যে ঢাকাগামী অ্যাডভেঞ্চার-৯ লঞ্চে যাত্রীরা তাদের আসন খুঁজে নিয়েছেন।

এছাড়া কিছু যাত্রী ঘাটেও অবস্থান করছেন।

বরিশাল অভ্যন্তরীণ নৌপরিবহন কর্তৃপক্ষ (বিআইডব্লিউটিএ) জানায়, ঘাটে তুলনামূলক যাত্রী কম থাকায় লঞ্চ চলাচলের অতিরিক্ত ব্যয়ের কথা বিচেনা করে শনিবার (৩১ জুলাই) রাতে থেকে রোববার (১ আগস্ট) দুপুর পর্যন্ত কোনো লঞ্চই ঢাকার উদ্দেশ্যে ছেড়ে যায়নি। পরবর্তীতে বিআইডব্লিউটিএ কর্তৃপক্ষের বিশেষ অনুরোধ এবং লঞ্চ চলাচলের সময় বাড়ানোয় একটি লঞ্চ যাত্রী নিয়ে ঢাকায় যেতে সম্মত হয়েছে। রাত ৮ টার দিকে সেটি ঢাকার উদ্দেশ্যে যাত্রা করে। তবে যাত্রীদের চাপ বাড়তে থাকলে আরও লঞ্চ বরিশাল থেকে ঢাকার উদ্দেশ্যে ছেড়ে যেতে পারে।

এমভি অ্যাডভেঞ্চার-৯ লঞ্চের সুপার ভাইজার সেলিম আহমেদ জানান, লঞ্চ ছাড়ার কোনো ইচ্ছে ছিলো না। কিন্তু সরকারি নিদের্শ এবং ঘাটে আসা পোশাক শ্রমিকদের কথা বিবেচনা করে মালিক ও কর্তৃপক্ষ যাত্রী নিয়ে ঢাকার উদ্দেশ্যে লঞ্চ ছাড়ার সায় দিয়েছেন। কিন্তু দুপুর পর্যন্ত যে যাত্রী এসেছে তাতে লঞ্চের খরচ ওঠা নিয়ে সংশয় রয়েছে।
বরিশাল বিআইডব্লিউটির উপ-পরিচালক মো. মোস্তাফিজুর রহমান বলেন, কোম্পানির মালিকরা লঞ্চের ব্যয় সংকুলান না হওয়ার তারা চালাতে চাইছিলো না। কিন্তু সরকারি নিদের্শনা ও আমাদের অনুরোধে তারা এখন লঞ্চ চালাতে রাজি হয়েছে। প্রথমিক পর্যায়ের অ্যাডভেঞ্চার-৯ লঞ্চে যাত্রী উঠানো হচ্ছে। যাত্রীদের চাপ বেশি থাকলে হয় আরও দু'একটি লঞ্চ ঢাকার উদ্দেশ্যে ছেড়ে যেতে পরে। রাত ৮টার দিকে যেকোনো সময়ে সেগুলো ঢাকার উদ্দেশ্যে রওনা দেবে।

এদিকে, রোববার দুপুরের পর থেকে লঞ্চ র্টামিনালে পোশাক শ্রমিকসহ রাজধানীমুখী মানুষের ভিড় বাড়তে থাকে। তবে, সকাল থেকে লঞ্চ ছাড়ার কোনো সিদ্ধান্ত না হওয়ায় হতাশ হয়ে পড়েন যাত্রীরা। দুপুরের পর ঢাকার উদ্দেশ্যে লঞ্চ ছাড়ার খবরে যাত্রীরা স্বস্তির নিঃশ্বাস ফেলেন। ঘাটে থাকা এমভি অ্যাডভেঞ্চার-৯ লঞ্চের মূলফটক খেলার সঙ্গে সঙ্গে লঞ্চের ডেকে জায়গা দখলের জন্য হুমড়ি খেয়ে পরেন শতশত পোশাক শ্রমিক। মুহূর্তের মধ্যে লঞ্চটির দু'টি ডেক যাত্রীতে পরিপূর্ণ হয়ে যায়।

পোশাকশ্রমিক খাদিজা আক্তার বলেন, আগামী সোমবার কাজে যোগ দিতে না পরলে চাকরি নিয়ে অসুবিধায় পরতে হবে, তাই আজ যেভাবেই হোক ঢাকায় যেতে হবে। আল্লাহ রহমত করেছে যে লঞ্চ ছাড়বে। আশা করি, নিরাপদেই ঢাকায় পৌঁছাতে পারবো।

আ. করিম নামে অপর এক পোশাক শ্রমিক জানান, শনিবার রাত থেকে ঢাকায় যাওয়ার চেস্টা করছিলাম। বাসে সিট ও জায়গা পাইনি। পরে শুনেছি লঞ্চ ছাড়বে। চলে আসি ঘাটে।

বাংলাদেশ সময়: ২১০০ ঘণ্টা, আগস্ট ০১, ২০২১
এমএস/ওএইচ/

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa