ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ২৩ আষাঢ় ১৪২৯, ০৭ জুলাই ২০২২, ০৭ জিলহজ ১৪৪৩

জাতীয়

ঢাবির সংঘর্ষ সুপ্রিম কোর্ট এলাকায়: রক্তাক্ত ছাত্রদলকর্মী, গাড়ি ভাঙচুর

স্পেশাল করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১৫০৭ ঘণ্টা, মে ২৬, ২০২২
ঢাবির সংঘর্ষ সুপ্রিম কোর্ট এলাকায়: রক্তাক্ত ছাত্রদলকর্মী, গাড়ি ভাঙচুর ছবি: বাংলানিউজ

ঢাকা: ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে ছাত্রদল ও ছাত্রলীগের ধাওয়া-পাল্টা ধাওয়া এবং সংঘর্ষ সুপ্রিম কোর্ট এলাকা পর্যন্ত ছড়িয়েছে।

বৃহস্পতিবার (২৬ মে) দুপুরের দিকে সুপ্রিম কোর্টের ভেতরে আইনজীবী সমিতির ভবনের সামনে ছাত্রদল-ছাত্রলীগের ধাওয়া-পাল্টা ধাওয়া, মারামারি এবং গাড়ি ভাঙচুরের ঘটনা ঘটে।

এ ঘটনায় জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্রদলের কর্মী নাহিদ চৌধুরী গুরুতর আহত হয়েছেন বলে ছাত্রদলের পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে। পরে তাকে অ্যাম্বুলেন্সে করে কাকরাইলের ইসলামী ব্যাংক হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানায়, বিএনপির চেয়ারপারসন খালেদা জিয়াকে নিয়ে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার মন্তব্যের প্রতিবাদে ঘোষিত কর্মসূচি পালন করতে এদিন হাইকোর্ট মাজার গেইট এলাকার আশপাশে জড়ো হতে থাকে ছাত্রদলের নেতাকর্মীরা।

দুপুর ১২টার দিকে তারা একটি মিছিল নিয়ে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের দোয়েল চত্বরের দিকে অগ্রসর হতে থাকলে ছাত্রলীগ নেতাকর্মীদের বাধার মুখে পড়ে। তখন উভয় পক্ষের মধ্যে ধাওয়া-পাল্টা ধাওয়া শুরু হয়। এক পর্যায়ে ছাত্রদলের একটি গ্রুপ পিছু হটে সুপ্রিম কোর্ট এলাকার ভেতরে ঢুকে পড়লে ছাত্রলীগের নেতা-কর্মীরা লাঠিসোঁটা নিয়ে ছাত্রদলকর্মীদের ওপর চড়াও হয়।  

কিছুক্ষণ পর সুপ্রিম কোর্ট আইনজীবী সমিতি ভবনের গ্যাংওয়ের কাছে একজনকে রক্তাক্ত অবস্থায় পড়ে থাকতে দেখা যায়।

ঢাকা মহানগর দক্ষিণ ছাত্রদলের সহ সম্পাদক এস এম মাসুম বিল্লাহ জানান, গুরুতর আহত ব্যক্তি জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রদলের কর্মী নাহিদ চৌধুরী। তাকে কাকরাইলের ইসলামী ব্যাংক হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছিল। তাকে উন্নত চিকিৎসার জন্য অন্য হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হচ্ছে।

ছাত্রদলের এ নেতা বলেন, ছাত্রলীগের হামলায় আমাদের ২০-২৫ জন নেতাকর্মী আহত হয়েছেন।

এদিকে ধাওয়া-পাল্টা ধাওয়ার মধ্যে বিএনপির বহিষ্কৃত নেতা ও সর্বশেষ নারায়ণগঞ্জ সিটি কর্পোরেশন নির্বাচনের স্বতন্ত্র প্রার্থী অ্যাডভোকেট তৈমুর আলম খন্দকারের গাড়ি ভাঙচুর করা হয়।

তৈমুর আলম খন্দকার পরে সাংবাদিকদের বলেন, এদেশে জাতীয় নির্বাচনের আগে একটি রক্তক্ষয়ী সংঘর্ষের যে আলামত, সেটি দেখা যাচ্ছে। সুপ্রিম কোর্টের ভেতরে এসে এভাবে গাড়ি ভাঙচুর এটা কিসের আলামত? আগে তো সুপ্রিম কোর্টের ভেতরে এসে কেউ মারামারি করত না।  

তিনি আরও বলেন, এদেশে বিচার চেয়ে লাভ নাই। সরকার যেটা চাইবে সেটার বিচার হবে। সরকার যেটা চাইবে না, সেটা হবে না। পুলিশ এটার (গাড়ি ভাঙচুরের) এফআইআরই (এজাহার) নেবে না। এটাই চলছে।

বাংলাদেশ সময়: ১৫০৪ ঘণ্টা, মে ২৬, ২০২২
ইএস/এসএ 
 

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa