ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ২১ আশ্বিন ১৪২৯, ০৬ অক্টোবর ২০২২, ০৯ রবিউল আউয়াল ১৪৪৪

জাতীয়

চকবাজারে আগুন: সেই ভবনটি অবৈধ

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১১২৩ ঘণ্টা, আগস্ট ১৭, ২০২২
চকবাজারে আগুন: সেই ভবনটি অবৈধ ছবি: সংগৃহীত

ঢাকা: রাজধানীর চকবাজারের কামালবাগে দেবিদাস লেনের পুড়ে যাওয়া বরিশাল হোটেলটি যে ভবনে সেটি অবৈধ। ভবনটির ছিল না কারখানা, গ্যাস, পানি লাইনের লাইসেন্স।

এটি মূলত ওয়াকফ এস্টেটের সম্পত্তি। ডিসেম্বরের মধ্যে এ এলাকা থেকে অন্তত ৫০০ কারখানা, গুদাম স্থানান্তর করা হবে।

বুধবার (১৭ আগস্ট) ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের মেয়র ব্যারিস্টার শেখ ফজলে নূর তাপস চকবাজারে অগ্নিকান্ডে ক্ষতিগ্রস্ত স্থান পরিদর্শনকালে এসব কথা বলেন।

তিনি বলেন, নদী অববাহিকার এ এলাকাটি হবে ট্যুরিস্ট স্পট। তা না, এ এলাকায় গুদাম, কারখানা দিয়ে ভরিয়ে ফেলা হয়েছে। আপনারা জানেন, ২০১৮ সাল থেকে এ এলাকায় নতুন ভবনের অনুমোদন বন্ধ আছে।

তাপস বলেন, আমরা চিরুনি অভিযান পরিচালনা করে এখানে অবৈধ ২৪০০-র বেশি ভবন শনাক্ত করেছি। পর্যায়ক্রমে এগুলো এখান থেকে সরানো হবে। যে অগ্নিকাণ্ডের ঘটনা ঘটল, এটি দুর্ভাগ্যজনক।

এ সময়ে সিটি করপোরেশনের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তা, ফায়ার সার্ভিস কর্মকর্তা ও ঢাকা-৭ আসনের ৩০ নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর ইরফান সেলিমসহ অন্যান্যরা উপস্থিত ছিলেন।

প্রসঙ্গত, সোমবার (১৫ আগস্ট) দুপুর পৌনে ১২টায় চকবাজারের দেবীদাস ঘাট লেনে বরিশাল হোটেল অ্যান্ড রেস্টুরেন্টে আগুন লাগে। ধারণা করা হয়, রেস্টুরেন্টে এলপিজি সিলিন্ডার বিস্ফোরণের পর ছড়িয়ে পড়ে আগুন। একই ভবনের ওপর তলায় পলিথিন ও প্লাস্টিক কারখানা থাকায় আগুন মুহূর্তেই তীব্র আকার ধারণ করে। প্রায় আড়াই ঘণ্টার চেষ্টায় আগুন নিয়ন্ত্রণে আনে ফায়ার সার্ভিস। আগুনে ছয়জন পুড়ে মারা গেছেন।

কাংলাদেশ সময়: ১১২৩ ঘণ্টা, আগস্ট ১৭, ২০২২
এমকে/জেডএ

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa