ঢাকা, শনিবার, ১৯ অগ্রহায়ণ ১৪২৯, ০৩ ডিসেম্বর ২০২২, ০৮ জমাদিউল আউয়াল ১৪৪৪

জাতীয়

মালিক-শ্রমিক দ্বন্দ্বে ভোগান্তিতে যাত্রীরা

ডিস্ট্রিক্ট করেসপন্ডেন্ট  | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১৬৪৮ ঘণ্টা, অক্টোবর ২, ২০২২
মালিক-শ্রমিক দ্বন্দ্বে ভোগান্তিতে যাত্রীরা

কুষ্টিয়া: হঠাৎ করে বাস চলাচল বন্ধ হওয়ায় চরম দুর্ভোগে পড়েছেন কুষ্টিয়া থেকে মেহেরপুরগামী যাত্রীরা। এতে বিকল্প একমাত্র যানবাহন হিসেবে রয়েছে অটোরিকশা।

তাও যাবে না মেহেরপুর।  

গতকাল শনিবার (০১ অক্টোবর) রাতেও স্বাভাবিক ছিল বাস চলাচল।  
হঠাৎ বাস বন্ধ হওয়ায় বিপাকে পড়েছেন যাত্রীরা। তবে কবে নাগাদ এর সুরাহা হবে তাও জানাতে পারেনি বাস ও মিনিবাস মালিক সমিতি।

রোববার (০২ অক্টোবর) সকাল থেকে কুষ্টিয়া বাস টার্মিনাল থেকে মেহেরপুরগামী কোনো বাস ছেড়ে যায়নি। এছাড়া মেহেরপুর থেকে ঢাকাগামী কোনো দূরপাল্লার যাত্রী পরিবহনও ছেড়ে যায়নি বলে জানা গেছে।  

বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন জেলা বাস-মিনিবাস মালিক সমিতির সাধারণ সম্পাদক মকবুল হোসেন লাবলু।

সুমাইয়া খাতুন তার বাচ্চাকে নিয়ে যাবেন মেহেরপুরে। কুষ্টিয়া বাস টার্মিনাল থেকে মেহেরপুরের বাস না চলায় সুমাইয়াকে আসতে হয়েছে ৪০ টাকা রিকশা ভাড়া দিয়ে মজমপুরে। মজমপুর থেকেও কোনো গাড়ি না পেয়ে একমাত্র ভরসা আলফা মোড়ের অটোরিকশা স্ট্যান্ড। সেখানে যেতে আরও ২০ টাকা দিতে হয়েছে তাকে। কিন্তু অটোরিকশা মেহেরপুর পর্যন্ত যাবে না। বামুন্দি পর্যন্ত যাবে তাও ভাড়া ৮০ টাকা।

সুমাইয়া খাতুন বলেন, একদিকে যেমন বৃষ্টি, তার উপরে বাস চলছে না। পদে পদে ভোগান্তি। আর বাস না চলায় ভাড়াও দিতে হচ্ছে বেশি। অন্যদিকে সময়ও লাগছে বেশি।

কুষ্টিয়া-মেহেরপুর সড়কের যাত্রী আমলার সাইফুল ইসলাম। কুষ্টিয়া এসেছিলেন বিআরটিএ অফিসে। কিন্তু বাস না চলায় তার ভরসা অটোরিকশা।

সাইফুল ইসলাম বলেন, একেত বছরের পর বছর ধরে রাস্তা ঠিক হয় না। অন্যদিক বাস চলছে না। কি যে ভোগান্তি, ১০ টাকার ভাড়া ২০ টাকা চাই। কিছুই বলার নাই, বাড়ি তো যেতে হবে।

খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, কুষ্টিয়া এবং মেহেরপুরের বাস মালিক সমিতির দ্বন্দ্ব দীর্ঘদিনের। এরই ফলশ্রুতিতে একাধিকবার এই রুটটিতে বাস চলাচল বন্ধ এবং রুটও ছোট করা হয়।

কুষ্টিয়া জেলা বাস-মিনিবাস মালিক সমিতির সাধারণ সম্পাদক মকবুল হোসেন লাবলু জানান, ঢাকার বাসে যাত্রী তোলা নিয়ে শনিবার (০১ অক্টোবর) মেহেরপুরের বামুন্দি এলাকায় ধাওয়া-পাল্টা ধাওয়ার ঘটনা ঘটে বাস মালিক ও শ্রমিক গ্রুপের মধ্যে। এ ঘটনার প্রতিবাদে চালকরা এ রুটে বাস চলাচল বন্ধ করে দিয়েছেন। আমি মনে করি কেবলমাত্র মেহেরপুরের পরিবহন মালিক সমিতির বাজে আচরণের ফলেই এই সমস্যার সৃষ্টি হয়েছে।  

তিনি বলেন, আশা করছি শিগগিরই এ সমস্যার একটা সমাধান হয়ে বাস চলাচল স্বাভাবিক হবে।

বাংলাদেশ সময়: ১৬৩০ ঘণ্টা, অক্টোবর ০২, ২০২২
আরএ

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa