ঢাকা, শুক্রবার, ৬ মাঘ ১৪২৮, ২১ জানুয়ারি ২০২২, ১৭ জমাদিউস সানি ১৪৪৩

রাজনীতি

সংবিধান প্রণয়ন ও সংশোধনের এখতিয়ার সংসদের: দেলোয়ার

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১৩০৫ ঘণ্টা, অক্টোবর ২, ২০১০
সংবিধান প্রণয়ন ও সংশোধনের এখতিয়ার সংসদের: দেলোয়ার

ঢাকা: সংবিধান প্রণয়ন ও সংশোধনের একমাত্র এখতিয়ার জাতীয় সংসদের বলে মন্তব্য করেছেন বিএনপির মহাসচিব খোন্দকার দেলোয়ার হোসেন।

শনিবার জাতীয় প্রেসকাবের ভিআইপি লাউঞ্জে ন্যাশনাল ডেমোক্রেটিক পার্টির (এনডিপি) ২১তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উপলক্ষে আয়োজিত আলোচনা সভায় তিনি এ মন্তব্য করেন।

সদ্য নিয়োগ পাওয়া প্রধান বিচারপতি এবিএম খায়রুল হক বৃহস্পতিবার তার শপথের দিনে এক অনুষ্ঠানে বলেছেন, ‘পঞ্চম সংশোধনীসংক্রান্ত রায়ের ভিত্তিতে সংবিধান পুনর্মুদ্রণ করতে হবে। ’

এ বক্তব্য প্রসঙ্গে খোন্দকার দেলোয়ার হোসেন বলেন, ‘প্রধান বিচারপতির আসনে বসে বিভিন্ন জন বিভিন্ন কথা বলেন। কিন্তু সংবিধান তৈরি করে সংসদ। সংশোধন ও পুনর্মুদ্রণের দায়িত্বও সংসদের। এর বাইরে কারও কিছু করার এখতিয়ার নেই, তিনি যত বড় পদেই থাকুন না কেন। ’

তিনি বলেন, ‘সংবিধানের কতটুকু সংশোধন বা পুনর্মুদ্রণ হবে তা নির্বাচিত জনপ্রতিনিধিরাই সংসদে বসে নির্ধারণ করবেন। বাইরের কেউ অতিউৎসাহী হয়ে কিছু বললে ধরে নিতে হবে, এর পেছনে কোনও উদ্দেশ্য আছে। ’

আওয়ামী লীগের প্রেসিডিয়াম সদস্য ওবায়দুল কাদেরের একটি বক্তব্যের প্রতিক্রিয়ায় বিএনপি মহাসচিব বলেন, ‘আমি জানতাম তিনি ক্রীড়া প্রতিমন্ত্রী ছিলেন। কিন্তু তিনি যে এত ভালো ধারাভাষ্যকার তা জানা ছিল না। ’

ওবায়দুল কাদেরের উদ্দেশ্যে খোন্দকার দেলোয়ার বলেন, ‘বিএনপিকে নসিহত করার আগে আয়নায় নিজেদের চেহারা একবার দেখে নিন। ১৯৭১, ’৯৬ এবং বর্তমানে ক্ষমতায় এসে আপনারা কী করছেন তা পরিষ্কার হয়ে যাবে। ’

তিনি বলেন, ‘মানুষ মেকাপ করলে যেমন আসল চেহারা বোঝা যায় না, তেমনি ক্ষমতায় থাকলে কারও আসল চেহারা বোঝা যায় না। ক্ষমতার মেকাপ খুলে আয়নার সামনে দাঁড়ান, আপনাদের আসল চেহারা ভেসে উঠবে। ’

উল্লেখ্য, শুক্রবার এক অনুষ্ঠানে ওবায়দুল কাদের বিএনপির উদ্দেশ্যে বলেছিলেন, ‘কাচের ঘরে বসে অন্যকে ঢিল ছুঁড়ে লাভ নেই। আয়নার সামনে দাঁড়ান, নিজেদের অতীত ভেসে উঠবে। ’

প্রশাসনের উদ্দেশ্যে বিএনপি মহাসচিব বলেন, ‘আপনারা তাদের (সরকার) চিনতে পারেননি। তারা যা বলছে তা-ই আপনারা করছেন। তাদের কথার বাইরে গেলে কী পরিণতি হয়, পাবনার প্রশাসন তা বুঝতে পেরেছে। ’

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার দিকে ইঙ্গিত করে খোন্দকার দেলোয়ার হোসেন বলেন, ‘যুবলীগ বা ছাত্রলীগ নয়, মেইন সুইচ হচ্ছেন উনি। বিমানবন্দরে নেমেই তিনি ভাষণ দিলেন, এক হাতে তালি বাজে না। আপনারা (প্রশাসনের কর্মকর্তা) যে সাধু তা-ও বলব না। তবে কার হাতে পড়েছেন, একবার ভেবে দেখুন। ’

এলাহাবাদের রায় প্রসঙ্গে খোন্দকার দেলোয়ার হোসেন বলেন, ‘ভারত নিজেকে সেক্যুলার (ধর্ম নিরপেক্ষ) দাবি করে। অথচ বাবরি মসজিদের জায়গা তারা মন্দিরকে দিয়ে দিলো। এতেই প্রমাণ হয়, তারা কতটা ধর্মনিরপেক্ষ। ’

ন্যাশনাল ডেমোক্রেটিক পার্টির সভাপতি  খোন্দকার গোলাম মোর্ত্তজার সভাপতিত্বে অন্যদের মধ্যে আলোচনায় অংশ নেন জমিয়াতুল ওলামায়ে ইসলামীর নির্বাহী সভাপতি মুহীউদ্দিন খান, খেলাফত মজলিসের সভাপতি মো. ইসহাক, ইসলামী ঐক্যজোটের (একাংশ) মহাসচিব আবদুল লতিফ নেজামী, জাতীয় গণতান্ত্রিক পার্টির (জাগপা) সভাপতি শফিউল আলম প্রধান, ন্যাশনাল পিপলস পার্টির (এনপিপি) চেয়ারম্যান শওকত হোসেন নীলু, এনডিপির মহাসচিব আলমগীর মজুমদার প্রমুখ।

প্রসঙ্গত, ১৯৮৯ সালে ন্যাশনাল ডেমোক্রেটিক পার্টির প্রতিষ্ঠিত হয়। সংগঠনের গঠনতন্ত্র অনুযায়ী, জাতীয় স্বাধীনতা ও রাষ্ট্রীয় সার্বভৌমত্ব, জাতীয় স্বাতন্ত্র্য, গণতান্ত্রিক রাষ্ট্রব্যবস্থা, আত্মনির্ভরশীল জাতীয় অর্থনীতি ও শক্তিশালী জাতীয় প্রতিরক্ষাব্যবস্থা প্রতিষ্ঠা এর লক্ষ্য।

বাংলাদেশ সময়: ১৮২১ ঘণ্টা, ০২ অক্টোবর ২০১০

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa