ঢাকা, রবিবার, ৯ আষাঢ় ১৪৩১, ২৩ জুন ২০২৪, ১৫ জিলহজ ১৪৪৫

রাজনীতি

গত নির্বাচনে ১৪ দলকে গুরুত্ব না দেওয়ার অভিযোগ শরিকদের

স্পেশাল করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ০৭৩২ ঘণ্টা, মে ২৪, ২০২৪
গত নির্বাচনে ১৪ দলকে গুরুত্ব না দেওয়ার অভিযোগ শরিকদের

ঢাকা: দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে ১৪ দলের শরিকদের গুরুত্ব দেওয়া হয়নি বলে অভিযোগ করেছেন জোটের নেতারা। জোটকে অল্প কিছু আসন ছেড়ে দেওয়া হলেও ওই প্রার্থীদের জন্য আওয়ামী লীগ কাজ না করে তাদের স্বতন্ত্র প্রার্থীর পক্ষে থেকেছে বলে ওই নেতারা অভিযোগ করেছেন।

বৃহস্পতিবার(২৩ মে) আওয়ামী লীগ সভাপতি ও ১৪ দল নেতা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সঙ্গে বৈঠকে তারা এই অভিযোগ করেছেন। বৈঠক শেষে ১৪ দলের কয়েক জন নেতার সঙ্গে কথা বলে এ সব তথ্য জানা গেছে। রাতে প্রধানমন্ত্রীর সরকারি বাসভবন গণভবনে এ বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়। বৈঠকে সভাপতিত্ব করেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

সূত্র জানায়, সভায় গত নির্বাচনে ১৪ দলের শরিক দলগুলোর বিষয়ে আওয়ামী লীগ উদাসীন ছিল বলে জোটটির নেতারা অভিযোগ করেন। নির্বাচনের পর মন্ত্রী সভায়ও জোটের কাউকে নেওয়া হয়নি। এতে জোটের গুরুত্ব ও মর্যাদা থাকে না বলে তারা মন্তব্য করেছেন। এ সময় জোটের অন্যতম নেতা ও ওয়ার্কার্স পার্টির সভাপতি রাশেদ খান মেনন বলেছেন, গত নির্বাচনে জোটের মূল্যায়ন করা হয়নি। মন্ত্রীয় সভায়ও জোটের কাউকে ঠাই দেওয়া হয়নি। জোটকে গুরুত্বহীনভাবে দেখা হয়েছে। নির্বাচনে যে আসন ছেড়ে দেওয়া হয় সে সব আসনে আওয়ামী নেতাকর্মীরা সমর্থন দিয়ে পুরোপুরিভাবে মাঠে নামেনি। তারা নামলে আমাদের প্রার্থীদের জিতিয়ে আনতে পারতাম। তিনি আরও বলেন, দীর্ঘ দিন ১৪ দলের সভা হয় না। আসন কম দেওয়া হয়েছে আবার মন্ত্রী সভায়ও ১৪ দল নেই এতে জোটের কোনো মর্যাদা, গুরুত্ব থাকে না।

সূত্র আরও জানায়, সভায় জাসদের সভাপতি হাসানুল হক ইনু বলেছেন, জোটর আসন কম দেওয়া হয়েছে। আবারর স্বতন্ত্র প্রার্থী দিয়ে আওয়ামী লীগকে জিতিয়ে আনার চেষ্টা ছিলো। জোটের প্রার্থীর প্রতি কোনো দায়বদ্ধতা ছিল না। বরং উস্কানিমূলক বক্তব্য দেওয়া হয়েছে।

সূত্র জানায়, সভায় জোটের নেতারা সাম্প্রদায়িকতা, জঙ্গিবাদ, দ্রব্য মূল্য বেড়ে যাওয়া নিয়েও কথা বলেছেন। তারা বলেছেন দ্রব্যমূল্য রোধ করতে হবে। সাম্প্রদায়িক, জঙ্গিবাদী শক্তির তৎপরতা বেড়ে চলেছে। এদের প্রতিহত করতে সরকারকে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নিতে হবে। উন্নয়ন অনেক হয়েছে কিন্তু এ সব রোধ করতে না পারলে উন্নয়ন ধরে রাখা যাবে না। যে উদ্দেশ্যে ১৪ দল গঠিত হয়েছিলো সে উদ্দেশ্য সফল হবে না।

এ সময় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ১৪ দলকে ঐক্যবদ্ধ থেকে এই পরিস্থিতি মোকাবিলা করার আহ্বান জানিয়েছেন। তিনি বলেছেন, আমাদেরকে অনেক ষড়যন্ত্র মোকাবিলা করতে হয়েছে, করছি। গত নির্বাচনে অনেক ষড়যন্ত্র হয়েছে। আমরা সবাই এক সঙ্গে ছিলাম বলে মোকাবিলা করতে পেরেছি। আগামীতে আমরা ১৪ দল ঐক্যবদ্ধ থেকে সকল ষড়যন্ত্র মোকাবিলা করবো। ১৪ দল আছে, থাকবে, ১৪ দলের ঐক্যকে আরও দৃঢ় করতে হবে।
 
বাংলাদেশ সময়: ০৭৩২ ঘণ্টা, মে ২৪, ২০২৩
এসকে/এমইউএম/এমএম

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।