ঢাকা, রবিবার, ১৩ অগ্রহায়ণ ১৪২৮, ২৮ নভেম্বর ২০২১, ২২ রবিউস সানি ১৪৪৩

রাজনীতি

চট্টগ্রামে দুই মামলায় ১২৭ জামায়াত ও শিবিরকর্মী রিমান্ডে

স্টাফ করেসপনডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ০৭২৮ ঘণ্টা, জুলাই ৮, ২০১০

চট্টগ্রাম: হালিশহর বড়পুল ও আগ্রাবাদ এক্সেস সড়কে যানবাহন ভাঙচুরের দুটি মামলায় গ্রেপ্তার জামায়াতে ইসলামী ও শিবিরের ১২৭ জন নেতাকর্মীকে জিজ্ঞাসাবাদে বিভিন্ন মেয়াদে রিমান্ড মঞ্জুর করেছে আদালত।

এর মধ্যে হালিশহর থানার মামলায় ১৮ আসামির তিন দিন এবং ডবলমুরিং থানার মামলায় ১০৯ আসামিকে দুই দিনের রিমান্ডে পাঠানো হয়েছে।



বৃহস্পতিবার বিকেলে চট্টগ্রাম মহানগর হাকিম ফজলুল বারী এ আদেশ দেন।

জামায়াত ইসলামীর তিন শীর্ষ নেতার মুক্তির দাবিতে বের করা এক মিছিল থেকে গত রোববার বিকেলে নগরীর হালিশহর ও আগ্রাবাদে গাড়ি ভাঙচুর করে শিবিরকর্মীরা। এ সময় ঘটনাস্থল থেকে ৪১ জন এবং রাতভর নগরীর ১২টি থানা এলাকায় অভিযান চালিয়ে আরও ১০২ জনসহ পুলিশ মোট ১৪৩ জনকে গ্রেপ্তার করে।

দুটি মামলার মধ্যে হালিশহর থানার মামলায় ১০ দিন এবং ডবলমুরিং থানার মামলার আসামিদের জন্য ৫ দিনের রিমান্ডের আবেদন জানানো হয়।
 
সিএমপির সহকারী কমিশনার (প্রসিকিউশন) নির্মলেন্দু বিকাশ চক্রবর্ত্তী বাংলানিউজটোয়েণ্টিফোর.কম.বিডিকে বলেন, ‘আসামীদের উপস্থিতিতে রিমান্ড শুনানি শেষে আদালত ১৮ জনকে তিন দিন এবং ১০৯ জনকে দুই দিনের রিমান্ডে নেওয়ার আদেশ দিয়েছেন। ’

রিমান্ডে পাঠানো ১২৭ জন ছাড়া বাকিদের মহানগরী আইনের বিভিন্ন ধারায় গ্রেপ্তার দেখিয়ে আদালতের মাধ্যমে জেলহাজতে পাঠানো হয়েছে।

নির্মলেন্দু বিকাশ চক্রবর্ত্তী আরও জানান, ডবলমুরিং থানার আসামিদের রিমান্ড আবেদনে পুলিশ ২০ জন করে আলাদা-আলাভাবে জিজ্ঞাসাবাদের অনুমতি চেয়েছে।

গত রোববারের ভাঙচুরের ঘটনায় হালিশহর থানায় সন্ত্রাস দমন আইনে মামলা দায়ের করা হয়। এতে সুর্নির্দিষ্টভাবে ১০৮ জনের নাম উল্লেখ করে ১০০ থেকে ১৫০ জনকে আসামি করা হয়।

একই ঘটনায় ডবলমুরিং থানায় বিস্ফোরক দ্রব্য আইন এবং বিশেষ মতা আইনে মামলা দায়ের করা মামলায় ১৫৮ জনের নাম উল্লেখ করে ২০০ থেকে ২৫০ জনকে আসামি করা হয়েছে।

বাংলাদেশ সময়: ১৯১১ ঘণ্টা, জুলাই ০৮, ২০১০

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa