ঢাকা, বুধবার, ১১ কার্তিক ১৪২৮, ২৭ অক্টোবর ২০২১, ১৯ রবিউল আউয়াল ১৪৪৩

রাজনীতি

আন্দোলনের নামে সহিংসতা ছড়ালে সরকার নির্বিকার থাকতে পারে না : হানিফ

সিনিয়র করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ০৯২৩ ঘণ্টা, আগস্ট ৪, ২০১০
আন্দোলনের নামে সহিংসতা ছড়ালে সরকার নির্বিকার থাকতে পারে না : হানিফ

ঢাকা : আন্দোলনের নামে অপশক্তির জন্ম দিয়ে মানুষ পুড়িয়ে মারা, বাসে আগুন দিয়ে জনগণের সম্পত্তি নষ্ট করার ঘটনায় সরকার নির্বিকার ভূমিকা পালন করতে পারে না বলে মন্তব্য করেছেন আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মাহাবুব-উল-আলম হানিফ।

তিনি বলেন, ‘অশুভ পন্থা ও সহিংসতা ছড়িয়ে জনগণের কাক্সিত উন্নয়ন এবং গণতন্ত্রের অভিযাত্রায় বিঘ্ন সৃষ্টিকারীদের বিরুদ্ধে আইনানুগ কঠোর পদপে গ্রহণ করা গণতন্ত্র পরিপন্থী হতে পারে না।

জনগণের ভোটে নির্বাচিত আওয়ামী লীগ সরকার দেশে সুশাসন প্রতিষ্ঠা, শান্তি-নিরাপত্তা রক্ষা, অর্থনৈতিক সমৃদ্ধি আনা ও রাজনৈতিক স্থিতিশীলতা রায় বদ্ধপরিকর। ’

মাহাবুব-উল-আলম হানিফ ‘দুর্নীতি করবেন নাÑনাকে খত দিন’ প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার দেওয়া এ বক্তব্য এবং বিএনপি নেতাকর্মীদের বিরুদ্ধে তথাকথিত মিথ্যা মামলার প্রতিবাদে আগামীকাল বিকেলে মুক্তাঙ্গনে বিএনপি যে সমাবেশ আহ্বান করেছে তাকে নির্লজ্জ প্রতারণামূলক রাজনৈতিক কর্মসূচি বলে অভিহিত করে এসব কথা বলেন।

আমাদের লোক সমাজে প্রচলিত ‘চুরি আবার সিনাজুরী’ প্রবাদটি বিএনপি নেতৃবৃন্দকে স্মরণ করিয়ে দিয়ে হানিফ বলেন, ‘লজ্জা-শরমের বালাই থাকলে বিএনপি এমন কর্মসূচি গ্রহণ করতো না।

‘ভিত্তিহীন, মনগড়া, মিথ্যাচার, উস্কানিমূলক রাজনৈতিক শিষ্টাচার বহির্ভূত কর্মকাণ্ডের মধ্য দিয়ে বিএনপি তার রাজনৈতিক দৈন্যদশা ঘুঁচাতে পারবে না মন্তব্য করে তিনি বলেন, ‘এখনও সময় আছে আগের কালিমা মুক্ত হয়ে গণতন্ত্রের পথে ফিরে আসুন। নৈরাজ্যের পথে জনগণের সমর্থন আদায় করা যাবে না। ’

বিবৃতিতে তিনি বলেন, ‘সংবিধান ও মৌলিক মানবাধিকার লঙ্ঘন, স্বাধীনতা বিরোধী যুদ্ধাপরাধীদের আশ্রয় ও প্রশ্রয়দান, সাম্প্রদায়িক শক্তির পুনর্বাসন, রাজনীতিতে দুর্বৃত্তায়নকে বিএনপি-জামাত জোট সরকার নীতি হিসেবে গ্রহণ করেছিল। সন্ত্রাস, কালো টাকা, রাষ্ট্রীয় মতার অপব্যবহার, পেশীশক্তির পাশাপাশি লুটপাটের অর্থনীতি কায়েমের মধ্য দিয়ে দেশে দুঃশাসন এবং জনগণের ওপর শোষণ চালানো তাদের দৃশ্যমান সাধারণ বৈশিষ্ট্য ছিল। জননেত্রী শেখ হাসিনা দেশবাসীর আশা-আকাক্সার আলোকে যথার্থরূপেই ‘দুর্নীতি করবেন নাÑনাকে খত দিন’ বলে মন্তব্য করেছেন। ’

খালেদা জিয়ার পুত্র তারেক রহমানের সৃষ্টি করা হাওয়া ভবনকে সরকারের প্যারালাল কেন্দ্রে পরিণত করা হয়েছিল। এই হাওয়া ভবনই দেশের সব দুর্নীতি ও মানবতাবিরোধী জঙ্গিবাদের প্রসূতি কেন্দ্র হিসেবে জনগণের কাছে পরিচিতি অর্জন করেছিল।

বিবৃতিতে তিনি খালেদা জিয়ার বিরুদ্ধে বিভিন্ন মামলার উল্লেখ করে বলেন, ‘তার পুত্র তারেক জিয়া দুর্নীতির দায় স্বীকার করে আর রাজনীতি না করার মুচলেকা দিয়েছে। এখনো তার দুর্নীতির অভিযোগ অনুসন্ধান চলছে। জনগণ ও রাষ্ট্রীয় সম্পদের সীমাহীন লুণ্ঠনের কারণেই দেশের মানুষ অতিষ্ঠ হয়ে বিএনপি-জামাত জোট সরকারকে মতাচ্যুত করেছে। ’

বাংলাদেশ সময় ২০২০, আগস্ট ০৪, ২০১০

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa