ঢাকা, শুক্রবার, ৬ মাঘ ১৪২৮, ২১ জানুয়ারি ২০২২, ১৭ জমাদিউস সানি ১৪৪৩

রাজনীতি

শামসুজ্জোহা সভাপতি, সম্রাট সেক্রেটারি: কৃষকদলের নতুন কমিটি অচিরেই

আসাদ জামান, স্টাফ করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১২৫২ ঘণ্টা, সেপ্টেম্বর ২৩, ২০১০
শামসুজ্জোহা সভাপতি, সম্রাট সেক্রেটারি: কৃষকদলের নতুন কমিটি অচিরেই

ঢাকা:  বিএনপির অঙ্গসংগঠন কৃষকদলের নতুন কমিটি অচিরেই ঘোষিত হতে যাচ্ছে।  

জাতীয় নির্বাহী কমিটির কৃষিবিষয়ক সম্পাদক শামসুজ্জোহা খান সভাপতি ও কৃষকদলের বর্তমান সহ-সাধারণ সম্পাদক শাজাহান মিয়া সম্রাটকে কমিটির সাধারণ সম্পাদক করা হবে বলে জানা গেছে।



প্রস্তাবিত এ কমিটির ব্যাপারে লন্ডনে চিকিৎসাধীন দলের সিনিয়র ভাইস চেয়ারম্যান তারেক রহমানের গ্রিন সিগনাল রয়েছে বলে জানিয়েছে দলের একটি সূত্র।

দীর্ঘ এক যুগ পরে কৃষকদলের নতুন কমিটিতে সভাপতি পদের জন্য লড়াই করছেন বর্তমান সাধারণ সম্পাদক ও চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা শামসুজ্জামান দুদু, নির্বাহী কমিটির কৃষিবিষয়ক সম্পাদক শামসুজ্জোহা খান, কৃষকদলের সহ-সভাপতি ব্যারিস্টার নাজমুল আলম লাল ও নব্বইয়ের গণআন্দোলনের সাবেক ছাত্রনেতা নাজিম উদ্দিন আলম।

সাধারণ সম্পাদক পদের জন্য জোর তদবির চালিয়ে যাচ্ছেন শাজাহান মিয়া সম্রাট ও তকদির হোসেন মোহাম্মদ জসিম।

তবে শেষ পর্যন্ত নওগা থেকে দুইবার নির্বাচিত সাবেক সংসদ সদস্য শামসুজ্জোহা খান ও বর্তমান সহ-সাধারণ সম্পাদক শাজাহান মিয়া সম্রাটকেই কৃষকদলের নতুন কমিটিতে সভাপতি সেক্রেটারি হিসেবে দেখা যেতে পারে বলে মনে করছেন সংশ্লিষ্টরা।

সূত্র জানায়, ব্যারিস্টার নাজমুল আলম লালকে সভাপতি ও শাজাহান মিয়া সম্রাটকে সাধারণ সম্পাদক করে একটি এবং শামসুজ্জামান দুদুকে সভাপতি ও তকদির হোসেন মোহাম্মদ জসিমকে সাধারণ সম্পাদক করে মোট দু’টি কমিটি ইতোমধ্যেই চেয়ারপারসনের কার্যালয়ে জমা দেওয়া হয়েছে।

তবে শামসুজ্জামান দুদু প্রস্তাবিত কমিটি জমা দেওয়ার বিষয়টি সম্পূর্ণ অস্বীকার করেন।

তিনি বাংলানিউজকে বলেন, ‘চেয়ারপারসনের কার্যালয়ে এ ধরনের কোনো কমিটি জমা দেওয়া হয়নি। কৃষকদলের সভাপতি মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর এখন অস্ট্রেলিয়ায় আছেন। তিনি ফিরলেই নতুন কমিটির বিষয়ে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে। ’

এদিকে কৃষকদলের কমিটি নিয়েও বিএনপির হাইকমান্ডে চলছে লবিং গ্রুপিং। দলের মহাসচিব খোন্দকার দেলোয়ার হোসেন, স্থায়ী কমিটির সদস্য তরিকুল ইসলাম, সালাউদ্দিন কাদের চৌধুরী, শামসুজ্জোহা খান ও  শাজাহান মিয়া সম্রাটকে সমর্থন দিচ্ছেন।

অপরদিকে, দলের সিনিয়র যুগ্ম-মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর ও তার অনুসারীরা শামসুজ্জামান দুদুকে সমর্থন দিচ্ছেন।     

তবে শেষ পর্যন্ত কৃষকদলের নতুন কমিটিতে তারেক রহমানের ইচ্ছের প্রতিফলনই ঘটবে বলে জানিয়েছে সংশ্লিষ্টরা।

এ ব্যাপারে বিএনপির কৃষি বিষয়ক সম্পাদক ও কৃষকদলের সম্ভাব্য সভাপতি শামসুজ্জোহা খান বাংলানিউজকে বলেন, ‘পদের জন্য দৌড়-ঝাঁপ আমার রাজনৈতিক আদর্শে নেই। কর্মকাণ্ডের ভিত্তিতে দলের পক্ষ থেকে কোনো দায়িত্ব দিলে তা পালন করবো। ’

সূত্র মতে, ১৯৯২ সাল থেকে দীর্ঘ দেড় যুগ সাধারণ সম্পাদকের দায়িত্ব পালন করে আসা সাবেক ছাত্রনেতা শামসুজ্জামান দুদুকেই কৃষকদলের সভাপতি হিসেবে দেখা যাবার সমূহ সম্ভাবনা ছিল।

কিন্তু, ওয়ান ইলেভেনের সময় সদ্যপ্রয়াত বিএনপির সাবেক মহাসচিব মান্নান ভূঁইয়ার দলে যোগ দেওয়া সুবিধাবাদী এ নেতাকে শেষ পর্যন্ত কৃষকদলের সভাপতি পদে না দেখা যাওয়ার সম্ভাবনাই বেশি।
 
সূত্র জানায়, সভাপতি পদের অপর দুই প্রার্থী ব্যারিস্টার নাজমুল আলম লাল ও নাজিম উদ্দিন আলম শেষ পর্যন্ত হাল ছেড়ে দিয়েছেন। প্রথমে তারা এ পদের জন্য দৌড়-ঝাঁপ করলেও এখন অনেকটা নিস্ক্রিয় আছেন।

ব্যারিস্টার নাজমুল আলম লাল বাংলানিউজকে বলেন, ‘এখন বয়স হয়েছে। জিয়ার আদর্শ বুকে ধারণ করে বিএনপির রাজনীতি করি। পদ-পদবি নিয়ে দৌড়-ঝাঁপ করার মতো সময় ও বয়স কোনোটিই আমার নেই। ’

সাধারণ সম্পাদক পদে শাজাহান মিয়া সম্রাট ও তকদির  হোসেন মোহাম্মদ জসিম প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন। এ দু’জনের মধ্যে শাজাহান মিয়া সম্রাটের পাল্লাটাই ভারী বলে মনে করছেন সংশ্লিষ্টরা।

তাদের মতে, ‘বিগত দিনগুলোতে কৃষকদলে সর্বক্ষণ সক্রিয় থাকার পুরস্কার হিসেবে তারেক রহমানের কাছ থেকে সাধারণ সম্পাদকের পদ পেতে যাচ্ছেন শাজাহান মিয়া সম্রাট।

বাংলাদেশ সময় ১২৪০ ঘণ্টা, সেপ্টেম্বর ২৩, ২০১০

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa