ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ২১ আশ্বিন ১৪২৯, ০৬ অক্টোবর ২০২২, ০৯ রবিউল আউয়াল ১৪৪৪

রাজনীতি

পুলিশের গুলিতে কর্মী নিহত: দু’দিনের কর্মসূচি দিল বিএনপি

স্পেশাল করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ২০০৫ ঘণ্টা, জুলাই ৩১, ২০২২
পুলিশের গুলিতে কর্মী নিহত: দু’দিনের কর্মসূচি দিল বিএনপি

ঢাকা: বিএনপির সহযোগী সংগঠন জাতীয়তাবাদী স্বেচ্ছাসেবক দলের ভোলা জেলার নেতা আবদুর রহিম পুলিশের গুলিতে নিহত হওয়ার ঘটনায় দু’দিনের কর্মসূচি ঘোষণা করেছে বিএনপি।

রোববার (৩১জুলাই) বিকেলে গুলশানে বিএনপি চেয়ারপারসনের কার্যালয়ে জরুরি সংবাদ সম্মেলনে মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর এই কর্মসূচি ঘোষণা করেন।

তিনি বলেন, ভোলায় স্বেচ্ছাসেবক দলের নেতাকে পুলিশ গুলি করে হত্যা করার প্রতিবাদে সোমবার (১আগস্ট) নয়াপল্টনের দলীয় কার্যালয়ের সামনে বেলা সাড়ে ১১টায় গায়েবানা জানাজা হবে। সারাদেশে একই সঙ্গে জেলা পর্যায়ে গায়েবানা জানাজা হবে। এছাড়া আগামী ২ আগস্ট হত্যার প্রতিবাদে ঢাকায় বিক্ষোভ সমাবেশ হবে এবং সারাদেশে জেলা পর্যায়ে বিক্ষোভ সমাবেশ করা হবে।

মির্জা ফখরুল বলেন, বিদ্যুতের লোডশেডিং ও অবস্থাপনার বিরুদ্ধে রোববার সারাদেশে জেলা পর্যায়ে কর্মসূচি ছিল। অত্যন্ত ক্ষোভ ও বেদনার সঙ্গে জানাচ্ছি যে ভোলাতে শান্তিপূর্ণ সমাবেশে পুলিশের আক্রমণ এবং সেখানে গুলি করে স্বেচ্ছাসেবক দলের একজন নেতাকে হত্যা করা হয়েছে এবং আমাদের প্রশিক্ষণ বিষয়ক সম্পাদক এবিএম মোশারফ, ছাত্রদলের সভাপতিসহ অসংখ্য নেতাকর্মী গুলিতে আহত হয়েছেন। এখনও পুলিশ সেই অফিস ঘেরাও করে রেখেছে। তাদের চিকিৎসারও সুযোগ দেওয়া হচ্ছে না। এ ঘটনা সারাদেশের মানুষকে অত্যন্ত ক্ষুব্ধ করেছে। আমরা মনে সরকার তাদের ফ্যাসিবাদী চরিত্র সামনে নিয়ে এসেছে। পুলিশের গুলিবর্ষণ নতুন নয়। ন্যায্য দাবির ভিত্তিতে যখন শান্তিপূর্ণ কর্মসূচি পালন করা হচ্ছে, তখন তারা এভাবে গুলিবর্ষণ করে আমাদের এক নেতাকে হত্যা করায় তাদের আসল চরিত্র প্রকাশ পেয়েছে।

তিনি বলেন, আপনারা জানেন এই সরকার জোর করে প্রায় ১৫বছর ক্ষমতা দখল করে আছে। এই ১৫ বছরে তারা অসংখ্য নেতাকর্মীকে হত্যা ও গুম করেছে। ৩৫ লাখ নেতাকর্মীর বিরুদ্ধে মামলা দিয়েছে। এই যে ভয়াবহ অবস্থা এ থেকে বাঁচার জন্য জনগণ এখন তাদের সংগ্রামের পথ বেছে নিয়েছে।

বিএনপির মহাসচিব বলেন, আজকে এই লোডশেডিং, জ্বালানি তেলের অব্যবস্থার জন্য স্বতঃস্ফূর্ত আন্দোলন শুরু হয়েছে, সেই আন্দোলনকে দমন  করার জন্য তারা এ ধরনের আক্রমণ করছে। বাংলাদেশের ইতিহাস বলে, গুলি ও হত্যা করে কোনো দিন জনগণের ন্যায়সঙ্গত সংগ্রাম দমন করা সম্ভব নয়। আমরা এই হত্যাকাণ্ডের তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ এবং এই হত্যাকাণ্ডে জড়িতদের অবিলম্বে গ্রেফতার করে আইনের আওতায় আনার দাবি জানাচ্ছি। সেই সঙ্গে যিনি শহীদ হয়েছেন, তার আত্মার মাগফিরাত কামনা ও পরিবারের সদস্যদের প্রতি সহানুভূতি জানাচ্ছি। ভোলা বিএনপির সব স্তরের নেতাকর্মীদের প্রতি সহমর্মিতা জানাচ্ছি।

বাংলাদেশ সময়: ২০০৫ ঘণ্টা, জুলাই ৩১, ২০২২
এমএইচ/এমএমজেড

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa