ঢাকা, রবিবার, ২ আষাঢ় ১৪৩১, ১৬ জুন ২০২৪, ০৮ জিলহজ ১৪৪৫

ক্রিকেট

বিশ্বকাপের আগে শিষ্যদের নিয়ে কী বলছেন হাথুরু

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট (স্পোর্টস) | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১৬০৬ ঘণ্টা, মে ১৮, ২০২৪
বিশ্বকাপের আগে শিষ্যদের নিয়ে কী বলছেন হাথুরু

টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ খেলতে ইতোমধ্যেই দেশ ছেড়ে গেছে বাংলাদেশ দল। যুক্তরাষ্ট্রে তিন ম্যাচ টি-টোয়েন্টি সিরিজের পর দুটি প্রস্তুতি ম্যাচ রয়েছে।

এরপরই শুরু হবে বিশ্বকাপের আনুষ্ঠানিকতা।  

দেশ ছাড়ার আগে বিশ্বকাপের স্কোয়াডে থাকা ১৫ ক্রিকেটার সম্পর্কে বলে গেছেন হেড কোচ চন্ডিকা হাথুরুসিংহে। শনিবার ওই ভিডিও প্রকাশ করেছে বিসিবি।  

অধিনায়ক নাজমুল হোসেন শান্তকে নিয়ে হাথুরু বলেন, 'শান্ত আমাদের অধিনায়ক। খুব ভালো নেতা, সামনে থেকে নেতৃত্ব দিতে জানে। ছেলেদের সঙ্গে ড্রেসিংরুমে মিশতে পারে ভালো, আবার মাঠে নেমে খুবই প্রতিদ্বন্দিতাপূর্ণ হয়ে যায়। আমার মনে হয় তার হাতে এবার বিশ্বকাপে বড় দায়িত্ব প্রথমবার অধিনায়ক হিসেবে। এই চ্যালেঞ্জ নেওয়ার জন্য সে যে প্রস্তুত এই ব্যাপারে আমি নিশ্চিত। '

তাসকিন আহমেদ এবার বিশ্বকাপে যাচ্ছেন সহ-অধিনায়ক হিসেবে। দলের তারকা পেসারকে প্রশংসায় ভাসিয়েছেন হাথুরু, 'তাসকিন মানুষ হিসেবে বেশ আবেগী। সে যদি ভালো মুডে থাকে, আমরা তার কাছ থেকে সেরাটা পাই। সতীর্থ ও কোচিং স্টাফের কাছে তার জনপ্রিয়তা অনেক। সব সময় দলের জন্য সেরাটা দেওয়া ও উন্নতির চেষ্টা করে। দলের মধ্যে তাসকিন দারুণ চরিত্র। '

অফ-ফর্মে থাকা ওপেনার লিটন দাসের দলে অন্তর্ভুক্তি নিয়ে অনেক সমালোচনা হয়েছে। তবে দুর্দিনে দলের কোচকে পাশে পাচ্ছেন তিনি। লিটনকে নিয়ে হাথুরুর মূল্যায়ন, 'লিটন আমাদের অন্যতম সেরা ব্যাটার। ব্যাটিংয়ে এই বিশ্বকাপে তার কাছ থেকে আমি বড় কিছু প্রত্যাশা করি। খুবই প্রতিভাবান সহজাত অ্যাথলেট। সে উইকেটকিপিং করতে পারে, অন্যতম সেরা ফিল্ডারও। যেকোনো পজিশনে ফিল্ডিং করতে পারে। সার্কেলের ভেতরে বা বাইরে, যেকোনো জায়গায় থাকে। মাঠের বাইরে খুবই শান্ত। খেলাটা খুব ভালো বুঝে। দলকে টেকটিক্যালিও সাহায্য করে। '

সাবেক অধিনায়ক সাকিব আল হাসান এবার বিশ্বকাপে খেলতে নেমেই নতুন ইতিহাস গড়তে যাচ্ছেন। রেকর্ড নবম বিশ্বকাপ খেলতে যাচ্ছেন এই অলরাউন্ডার। টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের সর্বোচ্চ উইকেটশিকারি সাকিবকে খেলাটির কিংবদন্তি আখ্যা দিয়েছেন হাথুরু, 'খেলাটার কিংবদন্তি। আমরা সবাই জানি সাকিব সবগুলো টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ খেলেছে। আমি আশা করি এই টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ তার সবচেয়ে সেরা আসর হবে । তিন বিভাগেই অবদান রাখবে। ভালো নেতা দলের সঙ্গে থাকে। খেলোয়াড়দের সঙ্গে খুব ভালো মিশতে পারে, তাকে সবাই সম্মান করে। খেলাটাকে খুব ভালো বুঝে। '

অভিজ্ঞ ব্যাটার মাহমুদউল্লাহ রিয়াদকে নিয়ে টাইগার কোচ বলেন, 'মাহমুদউল্লাহ সম্ভবত দলের স্পিরিট। সে দলের মধ্যে শান্ত একটা ভাব নিয়ে আসে। সে যখন কথা বলে, সবাই সেটা শুনে। আমার মনে হয় সে এখন খুব ভালো অবস্থায় আছে মানসিকভাবেও। তার ব্যাটিং সাম্প্রতিক সময়ে ভিন্ন মাত্রায় পৌঁছেছে। তার খেলায় ভয়হীন ব্যাপার আছে। সে দলের জন্য ভালো। চাপের পরিস্থিতি সামলে নিয়ে তরুণদের পরামর্শ দেবে বিশ্বকাপে। '

বিশ্বকাপ দলের অন্যতম চমক সৌম্য সরকারকে নিয়ে লঙ্কান কোচ বলেন, 'তার প্রতিভা সহজাত। আমার মনে হয় সে কম পারফর্ম করেছে। সেরা সময়ে কী করতে পারে, তার কিছু ঝলক আমরা পেয়েছি। তিন সংস্করণেই অবদান রাখতে পারে। তার ব্যাপারেও বলতে হয়, দুর্দান্ত ফিল্ডার। যখন সেরা জায়গায় থাকে, সে ম্যাচ উইনার। আশা করছি সে বিশ্বকাপে আমাদের কয়েকটা ম্যাচ জেতাবে। '

তরুণ ওপেনার তানজিদ হাসান তামিমকে নিয়ে হাথুরু মন্তব্য, 'আমি তামিমকে নিয়ে খুবই রোমাঞ্চিত। ব্যাটার হিসেবে তার সামনে অনেক বড় ভবিষ্যৎ আছে পড়ে আছে বলে মনে হয়। শট খেলায় সময় পায় বেশি। এটা তার মূল ব্যাপার যখন ব্যাট করে। যখন খেলে মনে হয় তার হাতে বাকিদের চেয়ে বেশি সময় আছে। তরুণ ও রোমাঞ্চকর ব্যাটার। তামিমও দুর্দান্ত ফিল্ডার। '

আরেক তরুণ ব্যাটার তাওহিদ হৃদয়কে রোমাঞ্চকর খেলোয়াড় উপাধি দিয়েছেন হাথুরু, 'তরুণ একজন রোমাঞ্চকর খেলোয়াড়। নিজের মতো করে খেলতে পছন্দ করে। এমনিতে সাধারণ খেলোয়াড়দের চেয়ে সে আলাদা। খুবই প্রতিভাবান, খুবই গতিময়। তার সবকিছুই দ্রুত চলে। ফিল্ডিং, কথা বলা, হাঁটা সবকিছুতেই গতি বেশি। দুর্দান্ত টি-টোয়ন্টি খেলোয়াড়। '

উইকেটকিপার-ব্যাটার জাকের আলি অনিককে ভার্সেটাইল খেলোয়াড় মনে করেন হাথুরু, 'জাতীয় দলে জাকের নতুন। আমি এখন পর্যন্ত যা দেখছি তার ব্যাটিংয়ে সময় শান্ত একটা ভাব থাকে। চাপের সময়ে সে নিজের উপর বিশ্বাস রাখতে পারে। ভার্সেটাইল প্লেয়ার। কিপিং করতে পারে, ফিল্ডিং করতে পারে। অনুশীলনের সময় অনেক পরিশ্রম করে। আমার মনে হয় সে এই বিশ্বকাপে চমক হতে পারে। '

নতুন প্রতিভা তানভির ইসলামকে নিয়ে কোচের মন্তব্য, 'তানভির আমাদের দলে একটা দক্ষতা নিয়ে এসেছে। সে নতুন বলে  পাওয়ার প্লের সময় বল করতে পারে। বিপিএল, ডিপিএলে সে লম্বা সময় ভালো করেছে। ঘরোয়া ক্রিকেটে তার পারফরম্যান্স আমাদেরকে বিশ্বাস দিয়েছে খেললে সে এই পর্যায়েও ভালো করতে পারবে। আমি যেমন বলেছি, তার একটা আলাদা ভূমিকা থাকবে খেললে। '

তরুণ স্পিনার শেখ মাহেদীকে নিয়েও বেশ আশাবাদী হাথুরু, 'শেখ মাহেদী আরও একজন ভার্সেটাইল খেলোয়াড়। তার মূল দক্ষতা বোলিং, নতুন বলে সেও বল করতে পারে। চাপের সময়ে সে খুব চালাকি করতে পারে। আমার মনে হয় সে দলের মধ্যে ‘জোকসের’ কেন্দ্রবিন্দুতে থাকে। তাকে নিয়ে সবাই মজা করে ড্রেসিংরুমে। সে নিজের সবকিছু দেয় যখন খেলতে নামে। '

দলের একমাত্র লেগ স্পিনার রিশাদ হোসেন। যার ব্যাট হাতে বড় শট খেলার সামর্থ্য রয়েছে। তার ফিল্ডিং দক্ষতাকেও দলের জন্য বাড়তি পাওনা বলে মত হাথুরুর, 'রিশাদ খেলোয়াড় হিসেবে কীভাবে উন্নতি করছে সেটা দেখার জন্য আমি খুব রোমাঞ্চিত। যখন আমরা তাকে প্রথম দেখি, বাংলাদেশের ক্রিকেটে লেগ স্পিনার খুবই কম। সে ক্ল্যাসিক্ল্যাল লেগ স্পিনার নয় পুরো দুনিয়াতে যেমন দেখা যায়। কিন্তু সে খুবই লম্বা, ভালো অ্যাথলেট। দুর্দান্ত ফিল্ডার, দলের অন্যতম সেরা ফিল্ডার। দ্রুত শিখতে পারে। জানি না তার মাথার ভেতর কী কাজ করে, কিন্তু চাপের সময়ে তাকে নির্ভার লাগে। সে ব্যাটিংয়ে ভালো পারফরম্যান্স দিচ্ছে। আমি চাইবো সে ব্যাটিংয়ে ধারাবাহিক হবে। '

আইপিএল খেলে ফেরা মোস্তাফিজুর রহমানকে নিয়ে হাথুরু বড় স্বপ্ন দেখছেন। বাঁহাতি পেসারকে নিয়ে হাথুরু বলেন, 'তাকে নিয়ে আমি কী বলব? ফিজ হচ্ছে বিশেষ ধরনের পেসার, এমন কাউকে খুঁজে পাওয়া মুশকিল বিশ্ব ক্রিকেটেই। সে তার কব্জি দিয়ে অনেক কিছু করতে পারে, যেটা খুব কম লোকই পারে। অভিজ্ঞতা আছে, আইপিএল খেলেছে। দলের মিটিংয়ে আত্মবিশ্বাসের সঙ্গে কথা বলতে পারে। সে খুব মজার। সে যা বলে আমি অনেক কিছুই বুঝি না। কিন্তু দেখে মনে হয় সবাই খুব উপভোগ করে। সে যখন কিছু বলে, সবাই হাসে। '

বোলিংয়ে আগের চেয়ে বিধ্বংসী রূপে দেখা যাচ্ছে শরিফুল ইসলামকে। উইকেট নেওয়ার বিশেষ ক্ষমতা রয়েছে তার। হাথুরুর চোখে তাই শরিফুল দলের জন্য বিশেষ একজন, '৬ ফুট ৪ ইঞ্চি লম্বা, বাঁহাতি পেসার। খুব গতিতে বল করতে পারে। দারুণ প্রতিভাবান। দলের মধ্যে আগ্রাসী একজন। সে একটা জিনিসই জানে উইকেট নিতে হবে। সে খুবই টাস্ক ওরিয়েন্টেড। সে গোল্ডফিশের মতো, দ্রুত ভুলে যায় কী হয়েছে। সে সব সময় আত্মবিশ্বাসী। দারুণ ফিল্ডার। আমার মনে হয় সে ব্যাটিংয়েও অবদান রাখতে পারে। '

আরেক তরুণ পেসার তানজিম হাসান সাকিবকে নিয়ে হাথুরু বলেন, 'আমার মনে হয় তার সংকল্প হচ্ছে আসল ব্যাপার। খুবই দৃঢ়চেতা মানুষ। চ্যালেঞ্জ নিতে ভয় পায় না। নিজের দক্ষতাকে বাড়াতে চায়। দলকে সাহায্য করে। যখন খেলে না তখনো ভালো সতীর্থ। আপনি বলতে পারেন তার বড় হৃদয় আছে। '

বাংলাদেশ সময়: ১৬০৫ ঘণ্টা, মে ১৮, ২০২৪
এমএইচবি/এমএইচএম

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।