ঢাকা, শনিবার, ১১ চৈত্র ১৪২৯, ২৫ মার্চ ২০২৩, ০৩ রমজান ১৪৪৪

চট্টগ্রাম প্রতিদিন

চারুকলার ছাত্র হোস্টেল থেকে ছাত্রী আটক, গাঁজা উদ্ধার 

ইউনিভার্সিটি করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ০৯৩৯ ঘণ্টা, ফেব্রুয়ারি ২, ২০২৩
চারুকলার ছাত্র হোস্টেল থেকে ছাত্রী আটক, গাঁজা উদ্ধার  ...

চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়: মধ্যরাতে চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় (চবি) চারুকলা ইনস্টিটিউটের ছাত্র হোস্টেলের একটি কক্ষ থেকে এক ছাত্রীকে আটক করা হয়েছে। এসময় কিছু গাঁজাও উদ্ধার করা হয়।

বুধবার (১ ফেব্রুয়ারি) দিবাগত রাত সাড়ে বারোটার দিকে চারুকলার দুই পক্ষের শিক্ষার্থীদের পাল্টাপাল্টি আন্দোলনের ফলে অস্থিতিশীল পরিস্থিতি সৃষ্টির আশংকায় পুলিশের সহায়তায় চারুকলা ক্যাম্পাসে অভিযান চালায় প্রক্টরিয়াল বডি।

এসময় শিল্পী রশিদ চৌধুরী হোস্টেলের ১০৫ নম্বর কক্ষ থেকে ইন্সটিটিউটের ২০১৬-১৭ সেশনের এক ছাত্রীকে আটক করা হয়।

পরে মুচলেকা নিয়ে তাকে ছেড়ে দেওয়া হয় বলে জানিয়েছেন বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর ড. রবিউল হাসান ভুঁইয়া।  

জানা গেছে, আটক হওয়া ওই ছাত্রী কোনও অনুমতি ছাড়াই ছাত্র হোস্টেলে অবস্থান করছিলেন। নিয়মানুযায়ী হোস্টেল ওয়ার্ডেনের অনুমতি ব্যতিত রাতে কিংবা দিনে কোনও সময়ই ছাত্রীরা ছাত্রদের হোস্টেলে প্রবেশ করতে পারবেন না।   

তবে পুলিশ ও প্রক্টরিয়াল বডির ভয়ে ওই ছাত্রী হোস্টেলের কক্ষে ঢুকেছেন বলে দাবি করে চারুকলা ইন্সটিটিউটের মাস্টার্সের শিক্ষার্থী সুসময় বড়ুয়া বলেন, এক জুনিয়র ছাত্রীকে রিসিভ করে তার বাসায় নিয়ে যাওয়ার জন্য আমাদের বান্ধবী হোস্টেলের সামনে অবস্থান করছিলেন। এসময় হুট করেই পুলিশ ও প্রক্টরিয়াল বডি প্রবেশ করে সবাইকে যার যার রুমে চলে যেতে বলেন। তখন আমাদের এক বান্ধবী ভয় পেয়ে সামনে যে রুমটি পেয়েছে সে রুমেই ঢুকে পড়েছে।

অভিযানে গাঁজাও উদ্ধার করা হয় বলে জানিয়েছে প্রক্টরিয়াল বডি। এছাড়া অভিযান চলাকালে বহিরাগত এক যুবক মোবাইলে ভিডিও ধারণ করায় তার মোবাইল জব্দ করা হয়।

চবি প্রক্টর ড. রবিউল হাসান ভুঁইয়া বাংলানিউজকে বলেন, অভিযান চলাকালে ছাত্রদের হোস্টেলের একটি কক্ষে এক ছাত্রীকে পাওয়া গেছে। পরে তাকে মুচলেকা নিয়ে ছেড়ে দেওয়া হয়েছে। এছাড়া ১০৪ নম্বর কক্ষ থেকে আমরা স্বল্প পরিমাণ গাঁজা উদ্ধার ও বহিরাগত এক যুবকের মোবাইল ফোন জব্দ করেছি।

চারুকলা ইন্সটিটিউটের শিক্ষার্থীরা ২২ দফা দাবিতে গত বছরের ২ নভেম্বর থেকে ক্লাস বর্জন করে অবস্থান কর্মসূচি শুরু করেন। শুরুতে তাদের আন্দোলন ইনস্টিটিউটের সংস্কার দাবিতে শুরু হলেও পরবর্তীতে তারা ইনস্টিটিউটকে মূল ক্যাম্পাসে স্থানান্তরের দাবি জানাতে থাকেন। টানা ৮২ দিন আন্দোলনের পর গত ২৩ জানুয়ারি শিক্ষার্থীরা ক্লাসে ফিরলেও ৭ দিনের আল্টিমেটাম শেষে আবারও ক্লাস বর্জন করে আন্দোলন শুরু করেন শিক্ষার্থীদের একাংশ।  

অপরদিকে একইদিন ইন্সটিটিউটের মূল ফটকে সংস্কার আন্দোলনকারীদের পুনরায় তালা দেওয়ার প্রতিবাদে অবস্থান কর্মসূচি পালন করেন শিক্ষার্থীদের অপর একটি অংশ। এসময় তারা ক্লাস চালু রাখার দাবি জানান।

বাংলাদেশ সময়: ০৯৩৫ ঘণ্টা, ফেব্রুয়ারি ০২, ২০২৩
এমএ/টিসি

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa