ঢাকা, বুধবার, ২২ অগ্রহায়ণ ১৪২৯, ০৭ ডিসেম্বর ২০২২, ১২ জমাদিউল আউয়াল ১৪৪৪

অর্থনীতি-ব্যবসা

‘হুজুগে মেতে বিনিয়োগ নয়’

সিনিয়র করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ০৬৩৮ ঘণ্টা, জানুয়ারি ৮, ২০১৭
‘হুজুগে মেতে বিনিয়োগ নয়’ অনুষ্ঠানে অতিথিদের মাঝে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। ছবি: সংগৃহীত

ঢাকা: জেনে-বুঝে পুঁজিবাজারে বিনিয়োগের আহ্বান জানিয়ে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, যেখানে বিনিয়োগ করবেন, সে প্রতিষ্ঠান সম্পর্কে ভালোভাবে জেনে তারপর বিনিয়োগ করুন, হুজুগে মেতে বিনিয়োগ করবেন না।

রোববার (৮ জানুয়ারি) সকালে রাজধানীর বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক সম্মেলন কেন্দ্রে ‘দেশব্যাপী বিনিয়োগ শিক্ষা কার্যক্রমের উদ্বোধন’ ও বাংলাদেশে সিকিউরিটিজ অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশনের (বিএসইসি) নবনির্মিত ভবনের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে তিনি এ কথা বলেন। এসময় প্রধানমন্ত্রী বিনিয়োগ শিক্ষা বিষয়ক ওয়েবসাইট financialliteracybd.com  এরও উদ্বোধন করেন।


 
প্রধানমন্ত্রী বলেন, সরকারের বিভিন্ন পদক্ষেপে পুঁজিবাজারে স্থিতিশীলতা ফিরে এসেছে। দেশি-বিদেশি বিনিয়োগকারীদের মধ্যে আস্থা ফিরেছে। বিনিয়োগ শিক্ষা অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ। বাঙালি হুজুগে মাতে। হুজুগে মেতে সব শেষ করে,তারপর হায় হায় করে।
 
তিনি বিনিয়োগকারীদের উদ্দেশে বলেন, যেখানে বিনিয়োগ করবেন সে প্রতিষ্ঠান সম্পর্কে জানুন, ভালোভাবে খোঁজখবর নিন। প্রতিষ্ঠানের অর্থনৈতিক সক্ষমতা ও আর্থিক বিবরণীসহ অন্যান্য তথ্য জেনে নিন। কিছু না জেনে বিনিয়োগ করে সব হারাবেন, তারপর সব দোষ অর্থমন্ত্রী আর সরকারের, এটা যেন না হয়। ঝুঁকিটা বিনিয়োগকারীদের নিতে হবে। জেনে-বুঝে সঠিক জায়গায় সঠিক বিনিয়োগ করবেন।
 
ছবি: সংগৃহীতবিএসইসির অর্থনৈতিক শিক্ষা কার্যক্রমে বিনিয়োগ ঝুঁকি কমবে- এমন আশাবাদ ব্যক্ত করে সরকারপ্রধান বলেন, মানুষকে তাদের প্রয়োজন অনুযায়ী বিনিয়োগ শিক্ষায় শিক্ষিত করে তোলার পাশাপাশি সঞ্চয়ের প্রয়োজনীয়তা, সঞ্চয়কে বিনিয়োগে রূপান্তর করার বিভিন্ন পদ্ধতি, বিনিয়োগ ঝুঁকি, সুরক্ষা জ্ঞান দেওয়া হবে।
 
উন্নত অর্থনীতি গড়তে শক্তিশালী পুঁজিবাজারের গুরুত্ব তুলে ধরে প্রধানমন্ত্রী বলেন, দেশের অর্থনৈতিক বিকাশে পুঁজিবাজারের অবদান ধীরে ধীরে বাড়ছে। অর্থনৈতিক প্রবৃদ্ধি ত্বরান্বিত করতে পুঁজিবাজারের সূদৃঢ় অবস্থান প্রয়োজন।
 
পুঁজিবাজারের বিকাশে সরকার অব্যাহতভাবে সর্বাত্মক সহযোগিতা করবে বলেও জানান প্রধানমন্ত্রী।
 
পুঁজিবাজারের স্বচ্ছতা নিশ্চিত করতে আইন প্রণয়ন, সংশ্লিষ্টদের প্রশিক্ষণ, তদারকি ও নজরদারি বৃদ্ধি, ক্ষুদ্র বিনিয়োগকারীদের স্বার্থ সংরক্ষণে বিশেষ প্রণোদনা প্যাকেজ, মামলা দ্রুত নিষ্পত্তিতে স্পেশাল ট্রাইবুনাল গঠন, ক্ষতিগ্রস্ত বিনিয়োগকারীদের সহায়তায় ৯০০ কোটি টাকার তহবিল গঠনসহ বিভিন্ন উদ্যোগের কথা তুলে ধরেন প্রধানমন্ত্রী।  
ছবি: সংগৃহীতবিএনপি এবং তত্ত্বাবধায়ক সরকারকার কথা তুলে ধরে প্রধানমন্ত্রী বলেন, ২০০৮ সালে নির্বাচনের পর আমরা যখন সরকার গঠন করি, তখন ব্যবসায়ীদের মধ্যে ওয়ান-ইলেভেনের আতঙ্ক এবং বিএনপি সরকারের লুটপাটের প্রভাব রয়ে যায়, দেশের মধ্যে এই অবস্থার পাশাপাশি তখন ছিল বৈশ্বিক মন্দাও। আমরা সব চ্যালেঞ্জ মোকাবেলা করে অর্থনীতিকে স্থিতিশীল ও গতিশীল করেছি।
 
স্বাগত বক্তব্যে বহুজাতিক কোম্পানিগুলোকে বাংলাদেশের পুঁজিবাজারে তালিকাভূক্ত করতে প্রধানমন্ত্রীর হস্তক্ষেপ কামনা করেন বিএসইসির চেয়ারম্যান ড. এম খায়রুল হোসেন।
 
অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিত।
 
বাংলাদেশ সময়: ১২৩৪ ঘণ্টা, জানুয়ারি ০৮, ২০১৭/আপডেট ১৮৫৭ ঘণ্টা
এমইউএম/এইচএ/

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa