ঢাকা, মঙ্গলবার, ৯ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৯, ২৪ মে ২০২২, ২২ শাওয়াল ১৪৪৩

অর্থনীতি-ব্যবসা

‘শিল্পোন্নত দেশ গড়তে দক্ষ মানবসম্পদের বিকল্প নেই’

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১৮১৫ ঘণ্টা, ফেব্রুয়ারি ৭, ২০২১
‘শিল্পোন্নত দেশ গড়তে দক্ষ মানবসম্পদের বিকল্প নেই’ অনুষ্ঠানে শিল্পমন্ত্রী নূরুল মজিদ মাহমুদ হুমায়ূনসহ অন্যরা

ঢাকা: শিল্পোন্নত দেশ গড়তে শিল্পখাতে দক্ষ মানবসম্পদ তৈরির কোনো বিকল্প নেই বলে জানিয়েছেন শিল্পমন্ত্রী নূরুল মজিদ মাহমুদ হুমায়ূন।  

তিনি বলেন, চতুর্থ শিল্প বিপ্লবের সফলতাকে অর্জন করতে কর্মদক্ষতা উন্নয়নের ওপর সর্বাধিক গুরুত্বারোপ করতে হবে।

শিল্পখাতের ক্রমবর্ধমান উন্নতি ও উৎপাদনশীলতা অর্জনে উপযুক্ত প্রযুক্তির ব্যবহার বৃদ্ধি ও দক্ষ মানবসম্পদ সৃষ্টির মাধ্যমে অধিকতর জনগোষ্ঠীকে শিল্পখাতের সঙ্গে সম্পৃক্ত করতে হবে।

রোববার (৭ ফেব্রুয়ারি) শিল্প মন্ত্রণালয়ের আয়োজনে ও প্রিজম প্রোগ্রামের টেকনিক্যাল অ্যাসিস্ট্যান্স কম্পোনেন্টের সহযোগিতায় ভার্চ্যুয়াল নতুন জাতীয় শিল্পনীতি-২০২১ প্রণয়নের লক্ষ্যে অংশীজন পরামর্শক কর্মমালায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে শিল্পমন্ত্রী এ কথা জানান।

শিল্পসচিব কে এম আলী আজমের সভাপতিত্বে অংশীজন কর্মশালায় বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন শিল্প প্রতিমন্ত্রী কামাল আহমেদ মজুমদার।  

কর্মশালায় উদ্বোধনী বক্তব্য রাখেন শিল্প মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব (নীতি, আইন ও আন্তর্জাতিক) মো. সেলিম উদ্দিন। প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন সিনিয়র সহকারী সচিব (নীতি) সলিম উল্লাহ। উন্মুক্ত আলোচনা ও সুপারিশের সার সংক্ষেপের সঞ্চালনা করেন শিল্পসচিব কে এম আলী আজম। বাংলাদেশ ইনস্টিটিউট অব ম্যানেজমেন্ট (বিআইএম) এ কর্মশালার আয়োজন করা হয়।

শিল্পমন্ত্রী বলেন, টেকসই অর্থনৈতিক উন্নয়নের একটি অপরিহার্য পূর্বশর্ত হচ্ছে পরিবেশবান্ধব শিল্পায়ন। সে লক্ষ্যে সরকার পরিবেশবান্ধব শিল্প কারখানা গড়ে তোলার ওপর গুরুত্ব দিচ্ছে। চতুর্থ শিল্প বিপ্লবের সফলতা অর্জনে সরকারি-বেসরকারি সমন্বিত প্রচেষ্টায় শিল্পায়নের মাধ্যমে প্রবৃদ্ধির লক্ষ্যমাত্রা অর্জন ও দেশে ব্যাপক কর্মসংস্থানের সুযোগ সৃষ্টি ও দক্ষতা বৃদ্ধি করাই এ নতুন জাতীয় শিল্পনীতি-২০২১ প্রণয়নের মূল উদ্দেশ্য। তথ্যপ্রযুক্তি নির্ভর চতুর্থ শিল্প বিপ্লবের সর্বোচ্চ সুফল অর্জন এবং দক্ষ মানবসম্পদ সৃষ্টির মাধ্যমে দারিদ্রতা ও বেকারত্ব হ্রাস করাই এ নীতিমালার লক্ষ্য।  

শিল্প প্রতিমন্ত্রী কামাল আহমেদ মজুমদার বলেন, নতুন জাতীয় শিল্পনীতি-২০২১ প্রণয়নে শ্রমিকদের স্বার্থ ও উদ্যোক্তা উন্নয়নের সর্বাধিক গুরুত্ব দেওয়া হবে। শিল্পায়নে পরিবেশের সুরক্ষার বিষয়টি বিবেচনা করে নির্ধারিত স্থানে শিল্প কারখানা স্থাপন করায় বিষয়টি নিশ্চিত করে শিল্পনীতি প্রণয়ন করা হবে। বিদেশে বিনিয়োগের ক্ষেত্রে দেশীয় উদ্যোক্তাদের শিল্প কারখানা স্থাপনের বিষয়টি শিল্পনীতিতে প্রধান্য/অগ্রাধিকার দেওয়া হবে।

প্রতিমন্ত্রী বলেন, আমাদের দেশে শিল্পখাতে দক্ষ শ্রমিক/কারিগরের অভাব রয়েছে। নতুন শিল্পনীতিতে দক্ষ শ্রমিক/কারিগর তৈরিতে প্রশিক্ষণের বিষয়টি গুরুত্ব আরোপ করতে হবে।

কর্মশালায় অন্যদের মধ্যে এমসিসিআই, ডিসিসিআই, বিডব্লিউসিসিআই, বিসিআই, এফবিসিসিআই-এর সংগঠনের নেতাসহ শিল্প-বাণিজ্য ও বণিক সমিতির প্রতিনিধি, শিল্প মন্ত্রণালয় আওতাধীন দপ্তর/সংস্থার প্রধান, আলী সাবেত টিম লিডার, প্রিজন বাংলাদেশের প্রধানসহ আরও অনেকে এ সময় উপস্থিত ছিলেন।

বাংলাদেশ সময়: ১৮১৩ ঘণ্টা, ফেব্রুয়ারি ০৭, ২০২১
জিসিজি/আরবি

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa