ঢাকা, বুধবার, ২২ অগ্রহায়ণ ১৪২৯, ০৭ ডিসেম্বর ২০২২, ১২ জমাদিউল আউয়াল ১৪৪৪

বিনোদন

টিকা নিতে গিয়ে কুদ্দুস বয়াতির কাণ্ড!

বিনোদন ডেস্ক | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১৮১২ ঘণ্টা, ফেব্রুয়ারি ১৮, ২০২১
টিকা নিতে গিয়ে কুদ্দুস বয়াতির কাণ্ড! কুদ্দুস বয়াতি

কোভিড ভ্যাকসিন নিতে গিয়ে প্রচণ্ড ব্যথায় কুঁকড়ে গেছেন কুদ্দুস বয়াতি। সামাজিকমাধ্যমে ভাইরাল হয়ে পড়া এমন একটি ছবি প্রসঙ্গে মুখ খুললেন বাংলার লোকসংগীত মহাতারকা।

ফেসবুকে একটি ছবি ছড়িয়ে পড়েছে। যেখানে দেখা যাচ্ছে, করোনা ভ্যাকসিন গ্রহণ করতে গিয়ে প্রচণ্ড ব্যথায় কুঁকড়ে গেছেন জনপ্রিয় লোকসংগীত শিল্পী কুদ্দুস বয়াতি। আর এই ছবিটাই ফেসবুকে ঘুরে বেড়াচ্ছে। তবে ছবিটিকে টিকা নেওয়ার ছবি না, বরং মজা করে অভিনয় করেছেন বলে জানিয়েছেন কুদ্দুস বয়াতি।

কুদ্দুস বয়াতি বলেন, ‘আমি টিকা নিছি, এখন আমি আমার গানের জগতে ফিরব। আমার খুব আনন্দ হচ্ছে। মাননীয় প্রধানমন্ত্রীকে আমি ধন্যবাদ জানাই, তিনি সাধারণ মানুষকে বিনামূল্যে টিকা নেওয়ার ব্যবস্থা করে দিয়েছেন। আমার প্রধানমন্ত্রী আমাদের দুঃখী মানুষদের দুঃখ বোঝেন, আমি কৃতজ্ঞ- আপনারা একটু লেইখা দিবেন। ’

নেত্রকোনার কেন্দুয়ায় কুদ্দুস বয়াতি টিকা নেন। সেই টিকা কেন্দ্র থেকেই কুদ্দুস বয়াতির তোলা ওই ছবিটি ভাইরাল হয়ে যায়। একজন মেডিক্যাল অ্যাসিস্ট্যান্ট ছবিটি তুলেছেন, তিনি যে ছবিটি ফেসবুকে ছেড়ে দেবেন সেটা জানতেন না।

ভাইরাল ছবির ব্যাপারে কুদ্দুস বয়াতি বললেন, ‘আরে না, ভ্যাকসিন নেওয়ার সময় অভিনয় করতাছিলাম। ভ্যাক্সিন আমার আগেই নেওয়া হইছিল। আমি একটুও ব্যথা পাই নাই। ভ্যাকসিন নিতে ব্যথা নাই। বোঝাও যায় না। আমার যে ছবিটা ফেসবুকে ছাড়ছে শুনলাম, ওইটা কামটা ঠিক করে নাই। কেউ যে ছবি তুইল্লা ছাইড়া দিব জানতাম না। আরো ভালো জানতে পারবেন, আমার পোলা আমার টিকা নেওয়ার ভিডিও ছাড়ব ইউটিউবে। ওইটার জন্যই একটু অভিনয়ও করছি। ’

কুদ্দুস বয়াতি সরকারের যেকোনো উদ্যোগকে ইতিবাচকভাবে নেন। গত বছর ধান কাটার সময় যখন লোকজন পাওয়া যাচ্ছিল না, তখন উৎসাহ দিতে ধান কাটতে নেমে পড়েছিলেন, সেই সঙ্গে গান বেঁধে জনগণকে আগ্রহী করেছিলেন ফসল ঘরে তোলার জন্য।  

বাংলাদেশ সময়: ১৮০০ ঘণ্টা, ফেব্রুয়ারি ১৮, ২০২১
এমকেআর

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa