ঢাকা, শুক্রবার, ১০ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১, ২৪ মে ২০২৪, ১৫ জিলকদ ১৪৪৫

ফুটবল

ইয়ামালকে কটাক্ষ করায় চাকরি খোয়ালেন আর্জেন্টাইন ফুটবল বিশেষজ্ঞ 

স্পোর্টস ডেস্ক  | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ২১১৮ ঘণ্টা, এপ্রিল ১১, ২০২৪
ইয়ামালকে কটাক্ষ করায় চাকরি খোয়ালেন আর্জেন্টাইন ফুটবল বিশেষজ্ঞ 

চ্যাম্পিয়ন লিগে পিএসজি-বার্সেলোনা ম্যাচের আগে লামিনে ইয়ামালকে নিয়ে বিতর্কিত মন্তব্য করেছিলেন আর্জেন্টাইন ফুটবল বিশেষজ্ঞ হেরমান বারগোস। এ নিয়ে একচোট ঝড় বয়ে গেছে ফুটবলবিশ্বে।

যে কারণে এবার চাকরিচ্যুত হলেন বারগোস।  

গতকাল রাতে আসরের কোয়ার্টার ফাইনালের প্রথম লেগের ম্যাচে মুখোমুখি হয়েছিল পিএসজি ও বার্সেলোনা। যেখানে ৩-২ গোলে জিতে প্যারিস থেকে ফিরেছে জাভি হার্নান্দেসের শিষ্যরা। ম্যাচটি শুরুর আগে দুই দলের খেলোয়াড়রা ওয়ার্মআপ করছিলেন। এক পর্যায়ে কিক-আপ করছিলেন স্প্যানিশ উইঙ্গার ইয়ামাল। ওই মুহূর্তের একটি ভিডিও ফুটেজের ব্যাপারে বারগোস স্প্যানিশ টেলিভিশন চ্যানেল ও চ্যাম্পিয়নস লিগের অন্যতম সম্প্রচারকারী মুভিস্টার প্লাসে বিতর্কিত মন্তব্যটি করেন।  
 
ইয়ায়ামালকে নিয়ে বারগোস বলে বসেন, 'সে যদি এটাতে (বড় মাপের ফুটবলার হতে) ব্যর্থ হয়, তাহলে তাকে ট্রাফিক আলোর নিচে (ট্রাফিক সিগনালে) গিয়ে দাঁড়াতে হবে। ’

বারগোসের ব্যাপারে অভিযোগ উঠেছে, ইয়ামালকে ছোট করার জন্যই এমন মন্তব্য করেছেন তিনি। কারণ হিসেবে বলা হচ্ছে- ট্রাফিক লাইটের নিচে যারা পারফর্ম করে এবং চালকদের কাছ থেকে ভিক্ষা চেয়ে নেয়; ইয়ামালকে তাদের সঙ্গে তুলনা করেছেন বারগোস।

বারগোসের এমন মন্তব্য ভালোভাবে নেয়নি বার্সা ও পিএসজি। এমনকি ম্যাচ শেষে মোভিস্টারকে সাক্ষাৎকার দিতেও অস্বীকৃতি জানায় দুই ক্লাবই। পরে এ নিয়ে বিতর্ক ছড়িয়ে পড়ায় টেলিভিশন চ্যানেলটির পক্ষ থেকে বারগোসের মন্তব্যের ব্যাপারে কঠোর প্রতিক্রিয়া দেখানো হয়। এক বিবৃতিতে তারা জানায়, যে কোনো প্রকার বৈষম্যের বিপক্ষে অবস্থান তাদের এবং তাদের কোনো কর্মীর এধরনের মন্তব্য তারা মেনে নেবে না।

চারদিক থেকে ধেয়ে আসা সমালোচনার কারণে শেষ পর্যন্ত নিজের মন্তব্যের জন্য ক্ষমা চান বারগোস। তার দাবি, কাউকে আঘাত করার জন্য মন্তব্য করেননি তিনি। তবে একইসঙ্গে ক্ষমাও চেয়েছেন ইয়ামালের কাছে। যদিও শোনা যাচ্ছিল এই মন্তব্যের কারণে তিনি নিজেই চাকরি ছেড়ে দিয়েছেন। কিন্তু বিবিসি-এর খবরে বলা হয়েছে, তাকে চাকরিচ্যুত করা হয়েছে।

৫৪ বছর বয়সী বারগোস খেলোয়াড়ি জীবনে ছয় বছর স্পেনে কাটিয়েছেন। গোলকিপার হিসেবে খেলেছেন মায়োর্কা ও আতলেতিকো মাদ্রিদের জার্সিতে। আর আন্তর্জাতিক ফুটবল খেলেছেন আর্জেন্টিনার হয়ে। আলবিসেলেস্তেদের হয়ে মোট ৩৫টি ম্যাচে মাঠে নেমেছিলেন তিনি। বর্তমানে ফুটবল বিশেষজ্ঞের ভূমিকায় দেখা যায় তাকে।

তিনি যাকে নিয়ে কটাক্ষ করেছেন, সেই ইয়ামালের বয়স মাত্র ১৬ বছর। এই বয়সেই তিনি স্পেন জাতীয় দলের জার্সিতে ৬ ম্যাচ খেলে ফেলেছেন। গতকাল চ্যাম্পিয়নস লিগের কোয়ার্টার ফাইনালে পিএসজির ঘরের মাঠ পার্ক দে প্রিন্সেসে খেলতে নেমে ইতিহাসে নাম লিখিয়েছেন তিনি। হয়েছেন টুর্নামেন্টের ইতিহাসে কোয়ার্টার ফাইনাল খেলে সর্বকনিষ্ঠ খেলোয়াড়। ম্যাচে বড় ভূমিকা না রাখতে পারলেও বেশ কয়েকবার পিএসজির রক্ষণে হানা দিয়েছেন তিনি।

বাংলাদেশ সময়: ২১১৮ ঘণ্টা, এপ্রিল ১১, ২০২৪
এমএইচএম

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।