ঢাকা, বুধবার, ২৬ শ্রাবণ ১৪২৯, ১০ আগস্ট ২০২২, ১১ মহররম ১৪৪৪

আইন ও আদালত

মানব উন্নয়নে বাংলাদেশের অগ্রযাত্রা ও চ্যালেঞ্জ

মানবাধিকার ডেস্ক | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১৫১৩ ঘণ্টা, জুলাই ২৫, ২০১৪
মানব উন্নয়নে বাংলাদেশের অগ্রযাত্রা ও চ্যালেঞ্জ

জাতিসংঘ উন্নয়ন সংস্থার (ইউএনডিপি) বার্ষিক মানব উন্নয়ন সূচকে গত বছরের চেয়ে এক ধাপ এগিয়েছে বাংলাদেশ। বৃহস্পতিবার প্রকাশিত সংস্থাটির বার্ষিক প্রতিবেদনে এ তথ্য প্রকাশ করা হয়েছে।


   
১৯৯০ সাল থেকে ইউএনডিপি মানব উন্নয়ন সূচকের ওপর নিয়মিত বার্ষিক প্রতিবেদন প্রকাশ করে আসছে। এবছর ২৪ জুলাই  প্রতিবেদনটি প্রকাশ করে।

এবারের প্রতিবেদনে প্রথমেই যে বিষয়টির ওপর গুরুত্ব আরোপ করা হয়েছে তা হলো উন্নয়নের ধারাবাহিকতা। প্রতিবেদনের প্রথমেই বলা হয়েছে যে বৈশ্বিক উন্নয়নের ধারাবাহিকতা এবছরও ইতিবাচকভাবেই বজায় রয়েছে। যদি বিভিন্ন কারণে উন্নয়নের অগ্রযাত্রা বাধাগ্রস্ত হচ্ছে। প্রতিবন্ধকতাগুলো রাষ্ট্রভেদে ভিন্ন।

কোথাও গণতন্ত্র, কোথাও জলবায়ূ ও পরিবেশ আবার কোথাও চলমান ক্ষুধা ও দারিদ্রই উন্নয়ন অগ্রযাত্রার প্রধানতম কারন। পাশাপাশি প্রাকৃতিক ও মানবসৃষ্ট কারণে জীবন, জীবিকা ও উন্নয়ন নানাভাবেই হুমকির সম্মুখিন।

ফলে স্বাভাবিকভাবেই এবছরের প্রতিবেদনে পরিবেশ ও জলবায়ূ বিষয়টি প্রাধান্য পেয়েছে। আর এজন্য এ বছরের প্রতিবেদনের উপশিরোনাম করা হয়েছে: Sustaining Human Progress: Reducing Vulnerabilities and Building Resilience।

তবে বিষয়টি কেবল পরিবেশ ও জলবায়ূ কেন্দ্রিকই নয়, বরং নানাভাবেই এটি দারিদ্র ও উন্নয়নের সাথে সম্পৃক্ত। সক্ষমতা বিষয়টি মানব উন্নয়ন ও টিকে থাকার সাথে ওতোপ্রতোভাবে জড়িত।

সূচকের দিক দিয়ে রাষ্ট্রগুলোকে চারটি পর্যায়ে ভাগ করা হয়। অতি-উচ্চমাত্রা (very very high), উচ্চমাত্রা (very high), মধ্যমাত্রা (medium) ও নিম্নমাত্রা(low)।

উচ্চসূচকের দেশের মধ্যে প্রথমেই আছে নরওয়ে। অর্থাৎ মানব উন্নয়ন সূচকে নরওয়েই প্রথমে অবস্থান করছে। তারপরে আছে অস্ট্রেলিয়া, সুইজারল্যান্ড, নেদারল্যান্ড ও আমেরিকা। অতি উচ্চসূচকের দেশ রয়েছে ৪৯টি। সবার শেষে রয়েছে আর্জেন্টিনা।

উচ্চ সূচকের দেশের তালিকায় প্রথমেই আছে উরুগুয়ে (৫০তম)। এ তালিকায় আছে ৫২টি দেশ।

মধ্যসূচকের দেশগুলোর মধ্যে রয়েছে বাংলাদেশ, মালদ্বীপ, ভারত, ভুটানসহ ৪১টি দেশ। প্র্রথমেই রয়েছে মালদ্বীপের অবস্থান (১০৩)। বাংলাদেশের অবস্থান ১৪২তম।

নেপাল, পাকিস্তান, মায়ানমারসহ ৪২টি রাষ্ট্র রয়েছে নিম্ন সূচকে। এ সারির প্রথমেই আছে নেপাল (১৪৫তম)
এছাড়া আরো কয়েকটি রাষ্ট্র ও অঞ্চল এ তালিকার বাইরে অবস্থান করছে।   উন্নয়নের বিভিন্ন সূচকের মধ্যে আছে নারী-পুরুষের সমতা, শিক্ষা, শিশুমৃত্যু, স্বাস্থ্য ইত্যাদি।

প্রতিবেদন অনুযায়ী এ বছর মানবসম্পদ উন্নয়নে আমাদের অবস্থান ১৪২তম যা গতবছরের তুলনায় এক ধাপ এগিয়ে। শ্রীলঙ্কার অবস্থান ৭৩তম যা দক্ষিণ এশিয়ায় সর্বোচ্চ। ভারত ও পাকিস্তানের অবস্থান যথাক্রমে ১৩৫ ও ১৪৬তম।

প্রতিবেদনে অন্যান্য যে বিষয়গুলোর ওপর গুরুত্ব আরোপ করা হয়েছে তা হচ্ছে নারী-পুরুষ সমতা সূচক। এক্ষেত্রে বাংলাদেশের অবস্থান ১০৭তম। শ্রীলংকার অবস্থান ৬৬তম, ভারতের অবস্থান ১৩২ ও পাকিস্তানের অবস্থান ১৪৫তম।

তবে সাধারণভাবে বাংলাদেশ সূচকের সবগুলো মাপকাঠিতেই অগ্রসরমান। আমাদের ধারাবাহিক উন্নয়ন অব্যাহত আছে। ক্রমহ্রাসমান দারিদ্র ও সক্ষমতা বৃদ্ধির ফলে স্বাভাবিক অগ্রযাত্রা অব্যাহত আছে। যদিও খাদ্য নিরাপত্তা আগামী দিনের একটি বড় চ্যালেঞ্জ। সেজন্য ভবিষ্যৎমুখি টেকসই উন্নয়ন পরিকল্পনা জরুরি।

জলবায়ূ ঝুঁকি বাংলাদেশের আগামী দিনের সবচেয়ে বড় হুমকি। এ হুমকি মোকাবেলায় আমাদের তেমন কোনো স্বল্প, মধ্য ও দীর্ঘমেয়াদি পরিকল্পনা নেই। যেগুলো আছে তা সঠিকভাবে বাস্তবায়নের বিষয়টি এখনো প্রশ্নসাপেক্ষ।

তাই উন্নয়নের অগ্রযাত্রা অব্যাহত রাখতে হলে গণতন্ত্র সুসংহত করার সাথে সাথে দারিদ্র বিমোচন, কর্মসংস্থান সৃষ্টি, জলবায়ূ ঝুঁকি হ্রাস করা, কৃষি ও শিল্পোন্নয়ন ইত্যাদির ওপর সমানভাবেই গুরুত্ব দিতে হবে।

বাংলাদেশ সময়: ১৫১৩ ঘণ্টা, জুলাই ২৫, ২০১৪

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa