ঢাকা, বুধবার, ২১ আষাঢ় ১৪২৯, ০৬ জুলাই ২০২২, ০৬ জিলহজ ১৪৪৩

জাতীয়

সাংবাদিকদের ভণ্ড-মূর্খ বললেন মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান

ডিস্ট্রিক্ট করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১৪২৭ ঘণ্টা, মে ২০, ২০২২
সাংবাদিকদের ভণ্ড-মূর্খ বললেন মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান চিরিরবন্দর উপজেলা পরিষদের মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান লায়লা বানু

দিনাজপুর: দিনাজপুরের চিরিরবন্দর উপজেলা পরিষদের মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান লায়লা বানুর বিরুদ্ধে সাংবাদিকদের ভণ্ড-মূর্খ বলার অভিযোগ উঠেছে। সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ফেসবুকে এক স্ট্যাটাসে তিনি এ মন্তব্য করেন।

লায়লার এ মন্তব্যে ক্ষোভ দেখা দিয়েছে স্থানীয় সাংবাদিকদের মধ্যে। বৃহস্পতিবার (১৯ মে) বিকেলে তার শাস্তি চেয়ে স্থানীয় সরকার বিভাগের উপ-পরিচালকের কাছে অভিযোগ পাঠিয়েছেন ১০ সাংবাদিক। পাশাপাশি চিরিরবন্দর উপজেলার এ মহিলা ভাইস চেয়ারম্যানের সব অনুষ্ঠান বয়কটের ঘোষণা দিয়েছেন তারা।

জানা গেছে, গত মঙ্গলবার (১৭ মে) রাত ৮টার দিকে লায়লা বানু তার ফেসবুক আইডি লায়লা মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান থেকে ‘চিরিরবন্দরের কিছু ভণ্ড এবং মূর্খ সাংবাদিক আছে যারা টাকার লোভে নিউজ করে’ উল্লেখ করে একটি পোস্ট দেন। এতে তিনি আরও লেখেন- তারা যার টাকা পায় তার ছবি এবং নাম পোস্ট দেয়। এরা সাংবাদিক? প্রশ্ন রইল জাতির কাছে?

একটি জাতীয় দৈনিকের উপজেলা প্রতিনিধি মাহফুজুল ইসলাম আসাদসহ স্থানীয় ১০ সাংবাদিক এ মন্তব্যকে সাংবাদিক সমাজকে হেও প্রতিপন্ন করার শামিল বলে উল্লেখ করেছেন। স্থানীয় সরকার বিভাগের উপ-পরিচালকসহ জেলা প্রশাসক বরাবর তারা যে লিখিত অভিযোগ করেছেন তাতে আরও কিছু বিষয় জানিয়েছেন।

অভিযোগে বলা হয়েছে, নারী ভাইস চেয়ারম্যান লায়লা বানু বিভিন্ন সময় সাংবাদিকদের নিয়ে বিভিন্ন জায়গায় কটুক্তি ও অসৌজন্য আচরণ করে আসছেন। এ কারণে চিরিরবন্দর উপজেলা সাংবাদিকরা তার সব কার্যক্রম প্রচার প্রচারণা অনির্দিষ্টকালের জন্য বন্ধ ঘোষণা করেছেন। অভিযোগে লায়লা বানুর শাস্তি ও ক্ষমা চাওয়ার দাবি জানানো হয়েছে।

অভিযোগ কপির অনুলিপি চিরিরবন্দর উপজেলা চেয়ারম্যান, উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা, দিনাজপুর প্রেসক্লাব, দিনাজপুর সাংবাদিক ইউনিয়ন, চিরিরবন্দর উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক বরাবরও পাঠিয়েছেন সাংবাদিকরা।

এ ব্যাপারে মাহফুজুল ইসলাম আসাদ বলেন, তিনি (লায়লা বানু) বহুবার চিরিরবন্দরের সাংবাদিকদের নিয়ে বিভিন্ন অনুষ্ঠানে কটুক্তি করেছেন। এবার তিনি সাংবাদিকদের ভণ্ড ও মুর্খ বলে হেয় করেছেন। আমরা অবিলম্বে সাংবাদিক সমাজের কাছে তার শাস্তি চাই।

অভিযোগের ব্যাপারে কথা হলে লায়লা বানু সাংবাদিকদের ওপর ক্ষোভ ঝাড়েন। তার ভাষ্য, চিরিবন্দরে এমন কিছু সাংবাদিক আছে যারা ক্যামেরা নিয়ে দৌঁড়ায়। সাংবাদিকতার পরিচয় দিয়ে নিউজ এডিট করার সময় কোনো একটি প্রোগ্রাম থেকে বিশেষ অতিথি ও সভাপতিকে বাদ দিয়ে নিজের প্রোফাইল থেকে ছবি শেয়ার ও পোস্ট করেন।

তার প্রশ্ন, এসব কী সাংবাদিকতার মধ্যে পড়ে কিনা। তিনি বলেন, যদি তা না হয়, তাহলে এরা কারা? আমার কাছে হাজার হাজার প্রমাণ আছে।

তিনি জানান, রাজধানী ঢাকা তারা মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান ফোরামের প্রোগ্রাম করেন। সেখানে হাতে হাতে ২০ হাজার টাকা দেন। যারাই গেছে বলেছে, ‘আপা আমি আপনার নিউজ করব। ’ পরে সবাই উধাও।

এ ব্যাপারে তার কাছে প্রমাণ থাকা স্বত্ত্বেও মামলা কেন করেননি জানতে চাওয়া হয়। উত্তরে বাংলাদেশ মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান অ্যাসোসিয়েশন কেন্দ্রীয় কমিটির সাধারণ সম্পাদক লায়লা বলেন, অভিযোগ কেন? তারা কি সাংবাদিক?

বাংলাদেশ সময়: ১৪৩০ ঘণ্টা, ২০ মে, ২০২২

এমজে

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa