ঢাকা, মঙ্গলবার, ১ ভাদ্র ১৪২৯, ১৬ আগস্ট ২০২২, ১৭ মহররম ১৪৪৪

জাতীয়

সহপাঠীদের কাছে এলএসডি বিক্রি করতেন বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষার্থী

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ০০৫২ ঘণ্টা, জুলাই ৭, ২০২২
সহপাঠীদের কাছে এলএসডি বিক্রি করতেন বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষার্থী

ঢাকা: রাজধানীর একটি বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়াকালীন ২০১৭ সালে ভয়ংকর মাদক এলএসডির সংস্পর্শে আসেন নাজমুল ইসলাম বিশ্বাস (২৬)। একপর্যায়ে এলএসডি সেবনকারী থেকে হয়ে যান বিক্রেতা।

নিজ বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদেরকেই অনলাইনে অর্ডার নিয়ে সরবরাহ করতেন এলএসডি।

বিদেশ থেকে অনলাইনে অর্ডার করে কুরিয়ারের মাধ্যমে নিয়ে আসতেন এই মাদক। এরপর ছড়িয়ে দিতেন দেশে। নাজমুলের এলএসডি বিক্রির অন্যতম টার্গেটেই ছিলেন বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা।

মঙ্গলবার (৫ জুলাই) রাতে ভাটারা এলাকা থেকে তাকে ১৩৮ পিস এলএসডিসহ আটক করে মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদপ্তরের (ডিএনসি) ঢাকা মেট্রো দক্ষিণ টিম।

ডিএনসি জানায়, এলএসডি সেবন ও বিক্রির অভিযোগে ২০২১ সালে প্রথমবার নাজমুলকে গ্রেফতার করে পুলিশ। তখন ৪ মাস পর জামিনে বের হয়ে আবারও এলএসডি সেবন ও ব্যবসার সঙ্গে জড়িয়ে পড়েন তিনি।

ডিএনসির ঢাকা বিভাগীয় কার্যালয়ের অতিরিক্ত পরিচালক মো. জাফরুল্ল্যাহ কাজল বলেন, নাজমুল ইন্টারনেট কারেন্সি বিট কয়েন দিয়ে যুক্তরাষ্ট্র থেকে বিভিন্ন আন্তর্জাতিক কুরিয়ারের মাধ্যমে দেশে এলএসডি নিয়ে আসতেন। তার উদ্দেশ্য ছিল বেসরকারি বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষার্থীদের কাছে এলএসডি বিক্রি করা।

ডার্ক ওয়েব ও বিট কয়েন ব্যবহার করে এই মাদক বিদেশ থেকে বাংলাদেশে এনে ব্যবসা শুরু করেন নাজমুল। এ মাদক আন্তর্জাতিক কুরিয়ারের মাধ্যমে তার কাছে পৌঁছাতো। তবে এসব তথ্য যাচাই-বাছাই করে দেখা হচ্ছে বলেও জানান তিনি।

বাংলাদেশ সময়: ০০৫১ ঘণ্টা, জুলাই ০৭, ২০২২
পিএম/এমএমজেড

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa