ঢাকা, শুক্রবার, ১৩ মাঘ ১৪২৯, ২৭ জানুয়ারি ২০২৩, ০৪ রজব ১৪৪৪

জাতীয়

শরীয়তপুরে ভূমি অফিসে ডিসির অভিযান: আটক ১

ডিস্ট্রিক্ট করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ২১০৭ ঘণ্টা, নভেম্বর ২৭, ২০২২
শরীয়তপুরে ভূমি অফিসে ডিসির অভিযান: আটক ১

শরীয়তপুর: শরীয়তপুর সদরের পালং ইউনিয়ন ভূমি অফিসে অভিযান চালিয়ে অনিয়মের অভিযোগে এক ব্যক্তিকে আটক করা হয়েছে। আর অনিয়মের অভিযোগে ইউনিয়ন ভূমি সহকারী কর্মকর্তা আবদুস সালাম মিয়াকে কারণ দর্শানোর নোটিশ এবং বদলি করা হয়েছে।

রোববার (২৭ নভেম্বর) সন্ধ্যায় শরীয়তপুর সদর উপজেলার সহকারী কমিশনার (ভূমি) মনিজা খাতুন এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

শরীয়তপুর সদর উপজেলা ভূমি কার্যালয় সূত্রে জানা যায়, জেলা শহরের পালং উত্তর বাজার এলাকায় পালং ইউনিয়ন ভূমি অফিসে পালং ইউনিয়ন ও শরীয়তপুর পৌরসভার ভূমিসংক্রান্ত কার্যক্রম চালানো হয়। গ্রাহকদের ভূমির সেবা অনলাইনে দেওয়ার কার্যক্রম শুরু হয়েছে। এরই ধারাবাহিকতায় অনলাইনে নামজারি করার আবেদন, ভূমি উন্নয়ন কর পরিশোধ, অনলাইনে পরচা ও নকশা পাওয়ার আবেদন করতে হয়। কিন্তু পালং ইউনিয়ন ও পৌর ভূমি অফিসের কর্মকর্তারা অনলাইনে ভূমি উন্নয়ন কর না নিয়ে নিজেরাই নগদে নিচ্ছিলেন। এছাড়াও স্থানীয় যুবক দিদার হোসেনকে অফিসে বসিয়ে গ্রাহকদের কাছ থেকে অনলাইনে নামজারির আবেদন নেওয়া হচ্ছিল।

এসব অভিযোগের পরিপ্রেক্ষিতে রোববার বেলা ১১টার দিকে জেলা প্রশাসক পারভেজ হাসান পালং ইউনিয়ন ও পৌর ভূমি অফিসে অভিযান চালান। এ সময় জিজ্ঞাসাবাদের জন্য ইউনিয়ন ভূমি সহকারী কর্মকর্তা আবদুস সালাম মিয়া, ইউনিয়ন ভূমি উপ-সহকারী কর্মকর্তা মাসুদ চোকদার, অফিস সহায়ক আবদুস সাত্তার ঢালী, নুরুন্নাহার আক্তার, আলাউদ্দিন মোল্লাকে ভূমি অফিস থেকে জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ে নেওয়া হয়। আর দিদার হোসেনকে আটক করা হয়। পরে দুপুর ২টার দিকে দিদার হোসেন ও ইউনিয়ন ভূমি সহকারী কর্মকর্তা আবদুস সালাম মিয়াকে জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ে রেখে বাকিদের ছেড়ে দেওয়া হয়। দুপুর আড়াইর দিকে ভূমি অফিসের কার্যক্রম আবার চালু হয়।

এ ব্যাপারে ইউনিয়ন ভূমি সহকারী কর্মকর্তা আবদুস সালাম মিয়া বলেন, ভূমি অফিসের ভেতরে বসে এক ব্যক্তি গ্রাহকদের কম্পিউটারে অনলাইনে বিভিন্ন আবেদন করতে সহায়তা করেন। এখানে আমার পদায়ন হওয়ার আগে থেকেই তিনি ওই কাজ করছেন। মানুষের উপকার হয় এমনটা ভেবে আমি তার বিষয়ে কোনো পদক্ষেপ নেইনি।

শরীয়তপুর সদর উপজেলার সহকারী কমিশনার (ভূমি) মনিজা খাতুন বলেন, পালং ভূমি অফিসে কিছু অনিয়মের বিষয়ে জেলা প্রশাসকের কাছে তথ্য ছিল। পরে তিনি রোববার ওই অফিসে অভিযান চালান। সেখানে কর্মরত কয়েকজনকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য ডিসি অফিসে নেওয়া হয়। এসময় ৩ ঘণ্টার মতো ওই অফিসের কার্যক্রম বন্ধ ছিল।

এ ব্যাপারে জেলা প্রশাসক মো. পারভেজ হাসান বলেন, ভূমি সেবা ডিজিটালাইজ হয়েছে। গ্রাহকরা অনলাইনে সব সেবা পাবেন এমন সিদ্ধান্ত হওয়ার পরও ইউনিয়ন সহকারী ভূমি কর্মকর্তা নিজেই ভূমি উন্নয়ন করের টাকা নগদে গ্রহণ করছিলেন। আর একজন বেসরকারি লোক অফিসে বসিয়ে ওই কর্মকর্তার আইডি, পাসওয়ার্ড দিয়ে অনলাইনে কাজ করাচ্ছিলেন। সরকারি অফিসের আইডি, পাসওয়ার্ড বাইরের কারও কাছে থাকা ঝুঁকিপূর্ণ। এমন অভিযোগের সত্যতা পেয়ে একজন সহকারী ভূমি কর্মকর্তাকে শোকজ ও বদলি করা হয়েছে। এ ঘটনার তদন্ত করা হবে। প্রয়োজনে তাকে বরখাস্ত করার সুপারিশ করা হবে। আর যে ব্যক্তি সরকারি অফিসে বসে নিজের ব্যবসা করছিলেন, তার বিরুদ্ধেও আইনগত পদক্ষেপ নেওয়া হবে।

বাংলাদেশ সময়: ২১০৬ ঘণ্টা, নভেম্বর ২৭, ২০২২
এমএমজেড

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa