ঢাকা, মঙ্গলবার, ৩ কার্তিক ১৪২৮, ১৯ অক্টোবর ২০২১, ১১ রবিউল আউয়াল ১৪৪৩

রাজনীতি

ভারতের সঙ্গে লুকোচুরির চুক্তি হয়নি: মতিয়া

সিনিয়র করেসপনডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ০৯৩২ ঘণ্টা, আগস্ট ৮, ২০১০
ভারতের সঙ্গে লুকোচুরির চুক্তি হয়নি: মতিয়া

ঢাকা: কৃষিমন্ত্রী মতিয়া চৌধুরী বলেছেন, ভারতের সঙ্গে ঋণ সহায়তা চুক্তি দিনের আলোতেই হয়েছে। এ নিয়ে কোনো লুকোচুরি হয়নি।



রোববার বিকেলে ঢাকা মহানগর আওয়ামী লীগের প্রতিবাদ সমাবেশে তিনি এ কথা বলেন। বিএনপি নেতাদের হুমকির প্রতিবাদে মুক্তাঙ্গনে এ সমাবেশ করে ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগ।

শনিবার ভারতের সঙ্গে ১০০ কোটি ডলারের ঋণ সহায়তা চুক্তি করে বাংলাদেশ। এ চুক্তি নিয়ে বিএনপির বিরোধিতার সমালোচনা করে মতিয়া চৌধুরী বলেন, ‘সারা বিশ্বের গণমাধ্যমে এ চুক্তির বিষয় প্রকাশিত হয়েছে। তাই অযথা এ নিয়ে মানুষকে বিভ্রান্ত করে লাভ হবে না। ’

এ সময় বিরোধী দল বিএনপির প্রতিষ্ঠাতা প্রয়াত রাষ্ট্রপতি জিয়াউর রহমানের পরিবারের সমালোচনাও করেন তিনি।

তিনি বলেন, ‘প্রয়াত রাষ্ট্রপতি জিয়াউর রহমানের পিতা-মাতার কবর এ দেশে নেই। তাদের কবর রয়েছে পাকিস্তানে। আজ তারা মায়াকান্না করছেন বাংলাদেশের জন্য। এরা চিরদিনই পাকিস্তানের এজেন্ট। বাংলাদেশে লুটপাট করে আসছে এবং এখনও করে যাচ্ছে। ’

সমাবেশে আইন প্রতিমন্ত্রী এ্যাডভোকেট কামরুল ইসলাম বিএনপি নেতাদের হুঁশিয়ার করে দিয়ে বলেন, ‘বেশি বাড়াবাড়ি করলে কাউকে ছাড় দেওয়া হবে না। ’

তিনি বলেন, বিএনপি’র দৌড় কতটুকু তা আওয়ামী লীগ নেতা-কর্মীরা জানে। বেশি বাড়াবাড়ি করলে কোনও অবস্থায় কাউকে ছাড় দেওয়া হবে না। আইন হাতে তুলে নিতে দেওয়া হবে না।
জামায়াতে ইসলামীর নতুন প্রজন্মের নেতা-কর্মী ও সমর্থকদের উদ্দেশে তিনি বলেন, ‘আপনারা এ পাপীদের দায়ভার নেবেন না। ঘাতকদের ভ্রান্ত পথে থাকবেন না। ’   

সমাবেশে আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মাহবুব-উল আলম হানিফ ১৫ আগস্ট মিথ্যা জন্মদিন পালন না করতে খালেদা জিয়ার প্রতি আহ্বান জানান।

চার দলীয় জোট  সরকারের পাঁচ বছরে লুটপাটের জন্য তিনি খালেদা জিয়াকে জাতির কাছে ক্ষমা চাওয়ার আহ্বান জানিয়ে তিনি আরও বলেন, ‘ধ্বংসাত্মক ও নেতিবাচক রাজনীতি করলে জনগণ মেনে নেবে না। ’

মহানগর আওয়ামী লীগের ভারপ্রাপ্ত সভাপতি এমএ আজিজের সভাপতিত্বে সমাবেশে আরো বক্তব্য রাখেন আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক বাহাউদ্দিন নাসিম, শ্রম বিষয়ক সম্পাদক হাবিবুর রহমান সিরাজ, নগর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মোফাজ্জল হোসেন চৌধুরী মায়া, নগর নেতা ফয়েজউদ্দিন মিয়া, শেখ বজলুর রহমান, মুকুল চৌধুরী, গাজী লুৎফুর রহমান রেণু, সাংসদ আসাদুজ্জামান খান কামাল, সাংসদ জাহানারা বেগম, হাজী সেলিম, আওলাদ হোসেন, শাহ আলম মুরাদ ও আবদুল হক সবুজ প্রমুখ।

বাংলাদেশ সময়: ২১১৪, আগস্ট ০৮, ২০১০

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa