ঢাকা, শুক্রবার, ১৮ অগ্রহায়ণ ১৪২৯, ০২ ডিসেম্বর ২০২২, ০৭ জমাদিউল আউয়াল ১৪৪৪

রাজনীতি

বিএনপি নেতা বুলুর ওপর হামলার ঘটনায় মামলা

ডিস্ট্রিক্ট করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ২১৩৮ ঘণ্টা, সেপ্টেম্বর ২২, ২০২২
বিএনপি নেতা বুলুর ওপর হামলার ঘটনায় মামলা

কুমিল্লা: কুমিল্লার মনোহরগঞ্জের বিপুলাসার এলাকায় বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান ও সাবেক মন্ত্রী বরকত উল্লাহ বুলুর ওপর হামলার ঘটনায় মামলা দায়ের করা হয়েছে।

কুমিল্লার লাকসাম পৌরসভা বিএনপির যুগ্ম আহ্বায়ক মনির হোসেন বাদী হয়ে কুমিল্লার সিনিয়র জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আমলি আদালত-৬ এ মামলাটি দায়ের করেন।

 

বিচারক আবু বকর সিদ্দিক মামলাটি গ্রহণ করে পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশনকে (পিবিআই) তদন্তের নির্দেশ দেন। মামলায় ১৭ জনের নাম উল্লেখ ও ১৫-২০ জনকে অজ্ঞাতনামা আসামি করা হয়। মামলার বাদী পক্ষের আইনজীবী কাইমুল হক রিংকু এসব তথ্য জানান।  

মামলার এজাহার নামীয় আসামিরা হলেন- সাইকচাইল এলাকার রঙ্গু মিয়ার ছেলে মো. সাফায়েত হোসেন (৪৫), মৃত আবু বক্কর ছিদ্দিকের ছেলে মাজহারুল ইসলাম (৪০), তোরাব আলীর ছেলে তাজুল ইসলাম (৪২), ছুট্টি মিয়ার ছেলে মো. সাজু আহাম্মদ (৩০), নূরুন নবীর ছেলে বিজয় (৩২), কেয়ারী এলাকার দেলোয়ার হোসেনের ছেলে ওমর ফারুক (৩৬), জাওড়া (পশ্চিমপাড়া) এলাকার কালা মিয়ার ছেলে আতাউর রহমান শিপন (৩৮), মো. মানিকের ছেলে বাবু (৩২), বড়কাচি এলাকার মজু মিয়ার ছেলে রুবেল হোসেন (৩৮), তোফায়েল মেম্বারের ছেলে সাইফুল ইসলাম (৩৩), আবুল কাশেমের ছেলে ইমন হোসেন (৩৮), জাওড়া এলাকার কাশেম মিয়ার ছেলে হুমায়ুন কবির (৪২), মোতালেব ভূঁইয়ার ছেলে জহিরুল ইসলাম (৩৫), বিপুলাসার এলাকার মৃত মানিকের ছেলে মো. রাকিব (২৮), আব্দুর রবের ছেলে মানিক মিয়া (৩৫), রুদ্রপুর এলাকার আবুল কাশেম আজাদের ছেলে মাসুদ পারভেজ (৩৭), দিশাবন্দ এলাকার কালা মিয়ার ছেলে সেলিম (৩৭)।

মামলার বিবরণ থেকে জানা গেছে, গত ১৭ সেপ্টেম্বর বিএনপির কেন্দ্রীয় ভাইস চেয়ারম্যান বরকত উল্লাহ বুলু স্ত্রীসহ তার নোয়াখালীর সোনাইমুড়ির বাসা থেকে ঢাকায় যাচ্ছিলেন। পথে কুমিল্লার মনোহরগঞ্জ উপজেলার বিপুলাসার বাজারে বিকেল ৫টার দিকে এলে তার গাড়ির চাকার হাওয়া শেষ হয়ে যায়। এ সময় গাড়ির চালক হাওয়া নিতে গেলে বিএনপি নেতা বুলু, তার স্ত্রী ও তার সঙ্গে আসা নেতাকর্মীরা মক্কা ক্যাফে রেস্টুরেন্টে চা খেতে যান। সে সময় স্থানীয় সন্ত্রাসীরা হত্যার উদ্দেশে তাদের ওপর সন্ত্রাসী হামলা করে। হামলায় বিএনপি নেতা বুলু, তার স্ত্রী, মনোহরগঞ্জের স্থানীয় সাবেক ইউপি চেয়ারম্যানসহ দলের ৭-৮ জন গুরুতর আহত হন। বরকত উল্লাহ বুলুর মাথায় ১৮টি সেলাই দেওয়া হয় এবং এখনও তিনি হাসপাতালে চিকিৎসাধীন। তার স্ত্রীকে জিআই পাইপ দিয়ে সারা শরীরে বেধড়ক পেটানো হয় এবং অন্য নেতাকর্মীদেরও দেশীয় অস্ত্র দিয়ে মেরে জখম করা হয়।

মামলার আইনজীবী কাইমুল হক রিংকু বলেন, আমরা মামলার আবেদন করেছি। আদালত গ্রহণ করে তা পিবিআইকে তদন্তের নির্দেশ দিয়েছেন। মামলায় ১৭ জনের নাম উল্লেখ ও ১৫-২০ জনকে অজ্ঞাতনামা আসামি করা হয়েছে।  

১৭ সেপ্টেম্বর বিকেলে কুমিল্লার মনোহরগঞ্জ উপজেলার বিপুলাসার এলাকায় বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান বরকত উল্লাহ বুলু ও তার স্ত্রী শামীমা বরকত লাকিসহ ছয়জনের ওপর হামলার ঘটনা ঘটে। হামলায় বুলুর মাথা ফেটে যায়। তার স্ত্রীর হাত ভাঙে। এছাড়া বিপুলাসার ইউনিয়ন বিএনপির সাবেক সাধারণ সম্পাদক ও সাবেক ইউনিয়ন চেয়ারম্যান শরীফ হোসেন, বেগমগঞ্জ উপজেলা যুবদলের সদস্য সচিব মহিউদ্দিন রাজুও আহত হন।  

>> কুমিল্লায় বিএনপি নেতা বরকত উল্লাহ বুলুর ওপর হামলা

বাংলাদেশ সময়: ২১৩৫ ঘণ্টা, সেপ্টেম্বর ২২, ২০২২
এসআরএস

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa