ঢাকা, বুধবার, ১২ মাঘ ১৪২৮, ২৬ জানুয়ারি ২০২২, ২২ জমাদিউস সানি ১৪৪৩

খেলা

ম্যারাডোনার বিদায়

স্পোর্টস ডেস্ক | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ০৮৪১ ঘণ্টা, জুলাই ২৮, ২০১০
ম্যারাডোনার বিদায়

ঢাকা: আর্জেন্টিনা কোচের পদ থেকে দিয়েগো ম্যারাডোনার বিদায় নিশ্চিত করেছে দেশটির ফুটবল অ্যাসোসিয়েশন (এএফএ)। জাতীয় দলের কোচ হিসেবে ম্যারাডোনার জায়গায় দেখা যাবে অন্য একজনকে।



যদিও বিশ্বকাপে দলের ব্যর্থতার অজুহাতে ৮৬’র বিশ্বচ্যাম্পিয়ন অধিনায়ককে চাকরিচ্যুত করা হয়নি। বরং কোচ হিসেবে তাঁকে রেখে দেওয়ার আপ্রাণ চেষ্টা করেছেন এএফএ সভাপতি হুলিয়ো গ্রান্দোনা। কিন্তু ম্যাডারোনার আপসহীন নীতির কাছে শেষে পর্যন্ত হেরে যান এএফএ সভাপতি।

বিশ্বকাপ দলের কোচিং স্টাফদের পরিবর্তনের পক্ষে ছিলেন না ম্যারাডোনা। বিশ্বস্ত সহকারী আলেসান্দ্রো মানকাসোসহ পুরনো সহকর্মীদের নিয়ে কাজ করতে চেয়েছিলেন শতাব্দী সেরা ফুটবলার। কিন্তু এএফএর সাতজন কোচিং সহযোগীকে বাদ দিয়ে দ্বিতীয় মেয়াদে দায়িত্ব দিতে চেয়েছিলেন ম্যারাডোনাকে। সভাপতির এমন প্রস্তাব না মেনে আলোচনার টেবিল ছেড়ে বেরিয়ে যান বিশ্বের সবচেয়ে জনপ্রিয় ফুটবল।

ম্যারাডোনার চলে যাওয়ার দৃশ্য চেয়ে চেয়ে দেখা ছাড়া কিছুই করার ছিলো না হুলিয়োর। এ অবস্থায় ম্যারাডোনাকে দ্বিতীয় মেয়াদে কোচের দায়িত্বে না রাখার পক্ষে মত দেন নির্বাহী কমিটির সদস্যরা। এএফএ মুখোপাত্র আর্নেস্তো শার্কুয়েস গণমাধ্যমকে মঙ্গলবার অ্যাসোসিয়েশনের সিদ্ধান্তের কথা আনুষ্ঠানিকভাবে জানিয়ে দেন ।

আর্জেন্টাই ফুটবল অ্যাসোসিয়েশন ম্যারাডোনার হাতে জাতীয় দলের দায়িত্ব তুলে দিয়েছিলো ২০০৮ সালের নভেম্বরে। অভিজ্ঞতা না থাকলেও কিংবদন্তি ফুটবলারের ওপর আস্থা ছিলো এএফএ কর্মকর্তাদের। ম্যারাডোনা দায়িত্ব নেওয়ার পর দক্ষিণ আফ্রিকার বিশ্বকাপের বাছাই পর্বে একের পর এক হোঁচট খেতে থাকে আর্জেন্টিনা। বলিভিয়ার মতো দলের কাছে ৬-১ গোলে হারের লজ্জাও সইতে হয় ফুটবলপাগল জাতিকে। এরপরেও দিয়েগোর ওপর থেকে আস্থা হারাননি কর্মকর্তারা। ভাগ্যের জোড়ে শেষে বিশ্বকাপে খেলার টিকিট পায় ১৯৮৬ সালের বিশ্বচ্যাম্পিনরা।

লিওনেল মেসি-কার্লোস তেভেসদের নিয়ে ম্যারাডোনা বিশ্বকাপ যাত্রা শুরু হয় দুর্বার গতিতে। টানা ম্যাচ জিতে আর্জেন্টিনা পৌঁছে যায় কোয়ার্টার ফাইনালে। ভাগ্য বিধাতা মুখ ফিরিয়ে নেয়। জার্মানির কাছে ৪-০ গোলে হেরে কোয়ার্টার ফাইনল থেকেই বিদায় নেয় আর্জেন্টিনা।

ব্যর্থ হলেও দেশে ফিরে বীরের সম্মান পান ম্যারাডোনা। কোচ হিসেবে থেকে যাওয়াও আবেদন আসে সাধারণ মানুষের মধ্য থেকে। এরপর রাননৈতিক ব্যক্তিত্ব এবং ফুটবল অ্যাসোসিয়েশন কর্মকর্তারাও তাঁকে কোচ হিসেবে রেখে দেওয়ার প্রস্তাক করে।

অনেক আলোচনা এবং গুঞ্জনের পর গত সপ্তাহে কোচ হিসেবে দ্বিতীয় মেয়াদে দায়িত্ব নেওয়ার আগ্রহ প্রকাশ করেন মহানায়ক। তবে শর্ত জুড়ে দেন তাঁর পছন্দের কোচিং স্টাফই রাখতে হবে । গোলমাল সেখানেই বাঁধে।

বাংলাদেশ সময়: ১৭৩০ ঘন্টা, জুলাই ২০১০

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa