ঢাকা, রবিবার, ৪ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১, ১৯ মে ২০২৪, ১০ জিলকদ ১৪৪৫

কৃষি

নড়াইলের ২০ ঋষি পরিবার পেল ৪০টি ছাগল

ডিস্ট্রিক্ট করেসপন্ডেন্ট     | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১৮০৫ ঘণ্টা, সেপ্টেম্বর ২০, ২০২৩
নড়াইলের ২০ ঋষি পরিবার পেল ৪০টি ছাগল

নড়াইল: নড়াইলে অসহায় ও দুস্থ ২০টি ঋষি পরিবারের মধ্যে ৪০টি ছাগল বিতরণ করা হয়েছে।

বুধবার (২০ সেপ্টেম্বর) দুপুরের দিকে জেলা সদর উপজেলার আউড়িয়া ইউনিয়ন পরিষদ (ইউপি) চত্বরে প্রতিজন নারীকে দুইটি করে মোট ৪০টি ছাগল দেওয়া হয়।

বাংলাদেশ এনজিও ফাউন্ডেশনের সহযোগিতায় ও নেবারলি অর্গানাইজেশন ফোর ভলান্টারি অ্যাক্টিভিটি (নোভা) -এর আয়োজনে ছাগল বিতরণ অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন জেলা সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) শারমিন আক্তার।  

ছাগল বিতরণ উপলক্ষে আলোচনা সভা ও ছাগল পালনের ওপর প্রশিক্ষণ অনুষ্ঠানে আউড়িয়া ইউপির চেয়ারম্যান এসএম পলাশের সভাপতিত্বে দিক-নির্দেশনামূলক বক্তব্য দেন বিশেষ অতিথি সদর উপজেলা প্রাণিসম্পদ কর্মকর্তা ডা. মো. রোকনুজ্জামান, ইউপি সদস্য আব্বাস উদ্দিন খান, দীপ্ত সমাজ উন্নয়ন সংস্থার নির্বাহী পরিচালক শরীফ তুকরোল আমিন, প্রগতি মহিলা উন্নয়ন সংস্থার সভানেত্রী ইতিকা মল্লিক প্রমুখ।  

স্বাগত বক্তব্য দেন নোভার নির্বাহী পরিচালক সুবীর কুমার বোস।

বক্তারা বলেন, ‘স্মার্ট বাংলাদেশ গড়ে তুলতে সমাজের পিছিয়ে পড়া জনগোষ্ঠীকে এগিয়ে নিতে সরকার কাজ চালিয়ে যাচ্ছে। সরকারের পাশাপাশি বেসরকারি উন্নয়ন সংস্থাও একইভাবে কাজ করে যাচ্ছে। এরই ধারাবাহিকতায় সুবিধাবঞ্চিত অসহায় ও দুস্থ এসব ২০টি ঋষি পরিবারের আর্থিক সচ্ছলতা ফিরিয়ে আনতে প্রতিটি পরিবারকে দুইটি করে ছাগল দেওয়া হয়েছে। সঠিকভাবে পরিচর্যা করলে এই ছাগল পালনের মাধ্যমে অসহায় এসব পরিবারের মধ্যে সচ্ছলতা ফিরে আসবে।  

এদিকে, দুইটি করে ছাগল পেয়ে ভীষণ খুশি এসব পরিবারের সদস্যরা। আউড়িয়া  গ্রামের লাকি বিশ্বাস, অঞ্জনা বিশ্বা, পারুল বিশ্বাস, স্বপ্না বিশ্বাসসহ একাধিক নারী জানান, তারা ছাগল পালনের মাধ্যমে স্বাবলম্বী হওয়ার স্বপ্ন দেখছেন। ক্ষুদ্র থেকে বড় ধরনের খামার গড়ে তুলতে চান।  

এর আগে উপকারভোগীদের নিয়ে ইউপি ভবনে ছাগল পালন সম্পর্কে প্রশিক্ষণ দেওয়া হয়। প্রশিক্ষণ দেন সদর উপজেলা প্রাণিসম্পদ কর্মকর্তা ডা. মো. রোকনুজ্জামান।

বাংলাদেশ সময়: ১৮০১ ঘণ্টা, সেপ্টেম্বর ২০, ২০২৩
এসআরএস

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।