ঢাকা, রবিবার, ১২ ফাল্গুন ১৪৩০, ২৫ ফেব্রুয়ারি ২০২৪, ১৪ শাবান ১৪৪৫

শিল্প-সাহিত্য

বুক রিভিউ: মাল্টিমিডিয়া জার্নালিজম

মোহাম্মদ হুমায়ূন কবির | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১৮৫১ ঘণ্টা, ফেব্রুয়ারি ১৬, ২০২৩
বুক রিভিউ: মাল্টিমিডিয়া জার্নালিজম

বাংলাদেশের একজন বিশিষ্ট সাংবাদিক সবুজ ইউনুস। গত শতাব্দীর শেষ দশকের শুরুতে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় রির্পোটার হিসেবে তিনি সাংবাদিকতা শুরু করেন নামকরা জাতীয় পত্রিকা দৈনিক বাংলার বাণীতে।

এরপর তিনি পর্যায়ক্রমে কাজ করেন দৈনিক ভোরের কাগজ, দৈনিক মুক্তকণ্ঠ, দৈনিক যুগান্তর পত্রিকায়।

বর্তমানে সবুজ ইউনুস বহুল প্রচারিত দৈনিক সমকালে সহযোগী সম্পাদক হিসেবে দায়িত্ব পালন করছেন। এর আগে একই প্রতিষ্ঠানে তিনি প্রধান প্রতিবেদক ও বার্তা সম্পাদকের গুরু দায়িত্বও পালন করেন।

সবুজ ইউনুসের কর্মদক্ষতা মুগ্ধ হয়ে কর্তপক্ষ তাকে সমকাল অনলাইনের অতিরিক্ত দায়িত্ব অর্পণ করেন। ডিজিটাল সাংবাতিদকায় খুব বেশি জানাশোনা না থাকায় তিনি তা বুঝতে পড়াশোনার তাগিদ বোধ করেন। সেই তাগিদ থেকেই ডিজিটাল সাংবাদিকতার বিভিন্ন বইপত্র, প্রবন্ধ, নিবন্ধ, ফিচার পড়াশোনা করেন। উপলদ্ধি করেন বর্তমান যুগ ডিজিটাল সাংবাদিকতার যুগ। তিনি এই বিষয়টি  পাঠক, দর্শক, শ্রোতা, শিক্ষার্থী ও সাংবাদিকদের সামনে তুলে ধরতে চেয়েছেন ‘মাল্টিমিডিয়া জার্নালিজম’ বইটিতে।

বইটিতে মূলত অনলাইন সাংবাদিকতার মৌলিক বিষয়সমূহ সহজ সরল ভাষায় বলার চেষ্টা করা হয়েছে। মোবাইল সাংবাদিকতা, অনলাইন সাংবাদিকতার সাংগঠনিক কাঠামো, ডাটা জার্নালিজম, পডকাস্ট, সংবাদপত্রে প্রযুক্তির বিবর্তন, আধুনিক সমাজে গণমাধ্যমের প্রভাব ইত্যাদি বিষয়ে সংক্ষেপে তুলে ধরা হয়েছে। যারা সাংবাদিকতায় শিক্ষানবিশ তাদের জন্য সহায়ক হবে বইটি।

সবুজ ইউনুসের শৈশব কেটেছে যশোরের শহরতলী সুজলপুর গ্রামে। পড়াশোনার হাতেখড়ি মুক্তেশ্বরী প্রাথমিক বিদ্যালয়ে। এরপর বাংলাদেশ এয়ারফোর্স শাহীন স্কুল অ্যান্ড কলেজ থেকে এসএসসি পাস করেছেন। লেখাপড়া করেছেন যশোর দাউদ পাবলিক স্কুল অ্যান্ড কলেজ এবং এম এম কলেজে। এরপর ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে অনার্স এবং মাস্টার্স। উন্নয়ন সাংবাদিকতার ওপর ডিপ্লোমা করেছেন ভারতের রাজধানী দিল্লিতে অবস্থিত ইন্ডিয়ান ইনস্টিটিউট অব মাস কমিউনিকেশন (আইআইএমসি) থেকে।

বর্তমান সময়ের সাংবাদিকতার আলোচ্য বিষয় হচ্ছে মোবাইল প্রযুক্তির ব্যবহার ও সোস্যাল মিডিয়ার মাধ্যমে গণমানুষের কাছে সংবাদ প্রচার ও প্রসার।

সাংবাদিকতায় প্রতিদিন নতুন নতুন প্রযুক্তি যুক্ত হলেও সাংবাদিকতার মৌলিক বিষয়সমূহ অভিন্ন ও অপরিবর্তনশীল। যেমন- সংবাদ কি, সংবাদের স্বরূপ ও বৈশিষ্ট্য, সংবাদ চেতনা, সংবাদের উপাদান, সংবাদ সংগ্রহ প্রক্রিয়া ইত্যাদি। তাই এই বইয়ের প্রথমভাগে সংবাদের নানান প্রয়োজনীয় দিক আলোকপাত করা হয়েছে।

অনলাইন সংবাদপত্রের কার্যধারা গতানুগতিক সংবাদমাধ্যমের সংবাদকক্ষের কার্যধারা থেকে অনেকটাই আলাদা। অনলাইন সংবাদকক্ষে নিত্যদিন যুক্ত হচ্ছে নিত্যনতুন প্রযুক্তি।

বইটিতে অত্যন্ত চমৎকারভাবে তুলে ধরা হয়েছে অনলাইন সংবাদপত্রের কার্যধারা-যা নবীন সাংবাদিকদের দারুন কাজে লাগবে।

সাংবাদিকতার অন্যতম একটি মৌলিক বিষয় সংবাদ সম্পাদনা। সংবাদ সম্পাদনার নানান কৌশল অত্যন্ত সুন্দর, প্রাঞ্জল ও মনোজ্ঞ ভাষায় বর্ণিত হয়েছে ‘মাল্টিমিডিয়া জার্নালিজম’ গ্রন্থটিতে।

সাংবাদিকতায় নিউ মিডিয়ার আর্বিভাব ঘটেছে প্রযুক্তির বিবর্তনের হাত ধরে। নিউ মিডিয়া সাংবাদিকতাকে দারুণভাবে নাড়া দিচ্ছে। নিউ মিডিয়ার নতুন নতুন রূপের মধ্যে অন্যতম হচ্ছে মাল্টিমিডিয়া জার্নালিজম, ডাটা জার্নালিজম, পডকাস্ট জার্নালিজম, মোবাইল জার্নালিজম। গণমাধ্যমকর্মী ও অধ্যয়নকারীদের মাথায় রেখে এ গ্রন্থটি নিউ মিডিয়ার নানান ধরনের স্বরূপ সংক্ষেপে তুলে ধরা হয়েছে। অধ্যায়সমূহ পড়ে অনেকটাই উপকৃত হওয়া যাবে।

আগামী দিনের সাংবাদিকতা পুরোপুরিই মোবাইল প্রযুক্তির ওপর ভর করে এগিয়ে যাবে। সাংবাদিকতা পেশায় টিকতে হলে মোবাইল সাংবাদিকতা বুঝতে হবে ও চর্চা করতে হবে। তাই মোবাইল সাংবাদিকতার গুরুত্ব উপলব্ধি করে এর বিভিন্ন দিক সংক্ষিপ্ত পরিসরে আলোকপাত করা হয়েছে।

বইটির পেছনে দেওয়া সহায়ক গ্রন্থপঞ্জী, সংবাদপত্র ও ওয়েবসাইটের নাম পাঠকের জানার আগ্রহকে আরো বেশি জাগিয়ে তুলবে।

এক কথায় বলা যায়, চলমান সাংবাদিকতার নানান সংযোজন, বিয়োজন, বিবর্তন বুঝতে ‘মাল্টিমিডিয়া জার্নালিজম’ গণমাধ্যমকমী ও শিক্ষার্থীদের জন্য একটি প্রয়োজনীয় গ্রন্থ।  

বাংলাদেশ সময়: ১৮৪৭ ঘণ্টা, ফেব্রুয়ারি ১৬, ২০২৩
নিউজ ডেস্ক 

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।