ঢাকা, শনিবার, ১১ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১, ২৫ মে ২০২৪, ১৬ জিলকদ ১৪৪৫

এভিয়াট্যুর

বিমানের অভ্যন্তরীণ রুট উদ্বোধনে প্রধানমন্ত্রী

স্পেশাল করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ২১৫০ ঘণ্টা, মার্চ ১৫, ২০১৫
বিমানের অভ্যন্তরীণ রুট উদ্বোধনে প্রধানমন্ত্রী

ঢাকা: প্রায় আড়াই বছর পর আগামী ৬ এপ্রিল চালু হতে যাচ্ছে বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্সের অভ্যন্তরীণ রুটের ফ্লাইট। আর ৫ এপ্রিল আনুষ্ঠানিকভাবে এ রুটের উদ্বোধন করবেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

 

৬ এপ্রিল এক সঙ্গে ৫টি অভ্যন্তরীণ রুটে এক সঙ্গে ডানা মেলবে বিমান। হযরত শাহজালাল (রহ.) আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরের ভিভিআইপি টার্মিনালে বেশ ঘটা করেই বিমানের অভ্যন্তরীণ রুটের ফ্লাইটের উদ্বোধন করা হবে।

বিমান সূত্রে এসব তথ্য জানা গেছে।   

এদিকে গত ২৫ ফেব্রুয়ারি থেকে অভ্যন্তরীণ রুটের টিকিট বিক্রি শুরু হয়েছে। এর আগে গত ১৯ ফেব্রুয়ারি বিমান অভ্যন্তরীণ রুটে ফ্লাইট পুনরায় চালুর ঘোষণা দেয়। বেসরকারি এয়ারলাইন্সের অর্ধেক ভাড়ায় দেশের ৭টি রুটে যাওয়ার সুযোগ করে দিতে যাচ্ছে বিমান।  

এজন্য রাষ্ট্রীয় পতাকাবাহী এয়ারলাইন্স ৭৪ আসনের ড্যাশ-৮ কিউ-৪০০ উড়োজাহাজ লিজ নিয়েছে ইজিপ্ট এয়ার থেকে। আগামী ১৭ মার্চ উড়োজাহাজ দু’টি ঢাকা এসে পৌঁছানোর কথা রয়েছে।  

২০১২ সালে বিমানের অভ্যন্তরীণ রুটের জন্য উপযোগী এফ-২৮ উড়োজাহাজ উড্ডয়ন অনুপযোগী ঘোষণা করে। এরপর থেকেই বিমানের অভ্যন্তরীণ সব ফ্লাইট বন্ধ হয়ে যায়। বর্তমানে কানেক্টিং ফ্লাইটের মাধ্যমে বিমানের কিছু যাত্রী সিলেট ও চট্টগ্রাম যেতে পারেন। তবে এটি আদৌ অভ্যন্তরীণ ফ্লাইট নয়।   

বিমানের সেলস অফিস সূত্রে জানা গেছে, ঢাকা-চট্টগ্রাম রুটের ভাড়া হবে মাত্র ৪ হাজার টাকা। ঢাকা-কক্সবাজার ৫ হাজার ৫০০ টাকা, ঢাকা-সিলেট ৩ হাজার ২০০ টাকা, ঢাকা-রাজশাহী, ঢাকা-সৈয়দপুর ও ঢাকা-যশোর রুটের ভাড়া ৩ হাজার ৫০০ টাকা, ঢাকা-বরিশাল ৩ হাজার টাকা, চট্টগ্রাম-কক্সবাজার ২ হাজার ২০০ টাকা। সব ভাড়াই ওয়ানওয়ে এবং ট্যাক্সসহ এ ভাড়া নির্ধারণ করা হয়েছে।  

বিমান চলাচল খাত সংশ্লিষ্টরা বলছেন, অভ্যন্তরীণ রুটগুলোতে বিমান যে ভাড়া ঘোষণা করেছে তা দেশে ফ্লাইট পরিচালনা করা সবগুলো বেসরকারি এয়ারলাইন্সের প্রায় অর্ধেক ভাড়া।  

সপ্তাহে ঢাকা-কক্সবাজার রুটে ৬টি ফ্লাইট, ঢাকা-যশোরে ৫টি, ঢাকা-রাজশাহীতে তিনটি, ঢাকা-সৈয়দপুর ও ঢাকা-বরিশালে দুটি করে ফ্লাইট পরিচালনা করবে জাতীয় পতাকাবাহী এয়ারলাইন্স। এর বাইরে ঢাকা-চট্টগ্রাম ও ঢাকা-সিলেটে সপ্তাহে ২৫টি অতিরিক্ত ফ্লাইট পরিচালনার পরিকল্পনার রয়েছে। এছাড়া ঢাকা-চট্টগ্রাম ও ঢাকা-সিলেটে কানেক্টিং ফ্লাইট যথারীতি চালু থাকবে। প্রয়োজন হলে এসব কানেক্টিং ফ্লাইটের সংখ্যা বাড়ানো হবে।

বাংলাদেশ সময়: ২১৪০ ঘন্টা, মার্চ ১৫, ২০১৫

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।