ঢাকা, শুক্রবার, ২৭ শ্রাবণ ১৪২৯, ১২ আগস্ট ২০২২, ১৩ মহররম ১৪৪৪

বিএনপি

বিএনপিও নির্বাচনে যেতে চায়, তবে...

সিনিয়র করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১২৩৯ ঘণ্টা, জানুয়ারি ১৩, ২০১৭
বিএনপিও নির্বাচনে যেতে চায়, তবে... বক্তব্য রাখছেন মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর। ছবি: বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম

ঢাকা: বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেছেন, আমরা নির্বাচনে যেতে চাই। সেজন্য প্রয়োজন নির্বাচনকালীন নিরপেক্ষ, সাহসী ও যোগ্য নির্বাচন কমিশন। 

বর্তমান সরকারের মেয়াদ শেষে সংবিধানের আলোকে সব দলকে নির্বাচনে যাওয়ার ব্যাপারে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার আহ্বানের জবাবে তিনি এ কথা বলেন।
 
সরকারের তৃতীয় বর্ষপূর্তিতে প্রধানমন্ত্রীর দেওয়া ভাষণের আনুষ্ঠানিক প্রতিক্রিয়া জানাতে শুক্রবার (১৩ জানুয়ারি) বিকেলে রাজধানীর গুলশানে বিএনপির চেয়ারপারসনের রাজনৈতিক কার্যালয়ে সংবাদ সম্মেলনের আয়োজন করে বিএনপি।

 
 
সেখানে লিখিত বক্তব্য রাখেন মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর। তিনি বলেন, প্রধানমন্ত্রী রাজনৈতিক দলগুলোকে নির্বাচনে অংশ নেওয়ার আহ্বান জানিয়েছেন। আমরা তো নির্বাচনে আংশ নিতে চাই। সেজন্য প্রয়োজন নির্বাচনকালীন নিরপেক্ষ, সাহসী ও যোগ্য নির্বাচন কমিশন।  
 
নির্বাচনে যাওয়ার ব্যাপারে কতগুলো শর্তও জুড়ে দেন টানা ১০ বছর ক্ষমতার বাইরে এবং গত ৩ বছর সংসদের বাইরে থাকা বিএনপির মহাসচিব।  
 
শর্তগুলোর মধ্যে রয়েছে- বিরোধীদল নির্মূল প্রক্রিয়া বন্ধ করতে হবে; সকল রাজনৈতিক নেতাকে মুক্তি দিতে হবে; মিথ্যা মামলা প্রত্যাহার করতে হবে; সভা, মিছিল, সমাবেশ করার সুযোগ দিতে হবে; গণমাধ্যমকে স্বাধীনতা দিতে হবে; প্রকৃত গণতান্ত্রিক পরিবেশ নিশ্চিত করতে হবে।  
 
তাহলে কি বর্তমান প্রধানমন্ত্রীর অধীনেই নির্বাচনে যাবে বিএনপি? এক সাংবাদিকের এমন এক প্রশ্নের জবাবে মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেন, আমরা নির্বাচন সহায়ক সরকারের কথা বলেছি।  
 
আগে তত্ত্বাবধায়কের কথা বলেছেন, এখন বলছেন সহায়ক সরকারের কথা। এ দু’টি বিষয়ের মধ্যে কোনো পার্থক্য আছে কি? এমন প্রশ্নের জবাবে মির্জা ফখরুল বলেন, প্যাটার্ন চেঞ্জ হতে পারে না? দু’টি একই বিষয়, শুধু প্যাটার্ন চেঞ্জ হয়েছে।  
 
তিনি বলেন, উন্নয়নের কথা বলে, গণতন্ত্রকে হত্যা করে, এক দলীয় শাসন প্রতিষ্ঠা করার অপচেষ্টা জনগণ কোনো দিনও মেনে নেবে না। আমরা এখনো আশা করি একদলীয় শাসন ব্যবস্থা প্রবর্তনের ভয়ংকর রাস্তা থেকে প্রধানমন্ত্রী গণতন্ত্রের মুক্ত পথে চলবেন।  
 
সংবাদ সম্মেলনে অন্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য নজরুল ইসলাম খান, মির্জা আব্বাস, গয়েশ্বর চন্দ্র রায়, ব্যারিস্টার রফিকুল ইসলাম মিয়া, চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা অধ্যাপক শাহিদা রফিক ও প্রচার সম্পাদক শহীদ উদ্দিন চৌধুরী এ্যানি।
 
বাংলাদেশ সময়: ১৮৩৪ ঘণ্টা, জানুয়ারি ১৩, ২০১৭
এজেড/এইচএ/

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa