ঢাকা, শুক্রবার, ১২ অগ্রহায়ণ ১৪২৭, ২৭ নভেম্বর ২০২০, ১০ রবিউস সানি ১৪৪২

বিএনপি

নিজেদের সফলতা নেই বলেই অতীতের কাসুন্দি: রিজভী

স্পেশাল করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১৪২৬ ঘণ্টা, জুলাই ১১, ২০২০
নিজেদের সফলতা নেই বলেই অতীতের কাসুন্দি: রিজভী রুহুল কবির রিজভী

ঢাকা: একটানা এক দশকের বেশি ক্ষমতায় থেকেও বর্তমান সরকারের সাফল্যের কিছু নেই, তাই অতীতের কাসুন্দি ঘেটে সাফাই গাইতে হয় বলে মন্তব্য করেছেন বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম-মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী।

শনিবার (১১ জুলাই) দুপুরে নয়াপল্টনে দলীয় কার্যালয় থেকে ভিডিও বার্তায় এ কথা বলেন তিনি।

রিজভী বলেন, একটানা একযুগের বেশি ক্ষমতায় থাকার পর একটি সরকারের জন্য বর্তমান ব্যর্থতা ও অধঃপতনের এমন করুণ পরিণতি যে কতটা লজ্জার— সেই বোধ এই সরকারের আছে বলেও কেউ মনে করে না।

দেশে কারা ডাকাত, কারা ধোঁকাবাজ, কারা দুর্নীতিবাজ, কারা দুর্নীতিতে লিপ্ত, কোন সরকারের আমলে দুর্নীতিবাজদের উত্থান হয়েছে, এটা দেশের মানুষ জানে। স্বাধীনতাত্তোর বাংলাদেশে তৎকালীন প্রধানমন্ত্রী শেখ মুজিবুর রহমান সাহেব নিজেই আক্ষেপ করে বলেছিলেন, তিনি পেয়েছেন চোরের খনি। গত এক দশকের বেশি সময় ধরে সেই চোরের খনি এখন ডাকাতের খনিতে রূপান্তরিত হয়েছে। এটাই হলো আওয়ামী লীগ সরকারের সুমহান কীর্তি।

দেশের উত্তর ও পূর্বাঞ্চলে বন্যা পরিস্থিতির চরম অবনতি ঘটেছে, লাখ লাখ মানুষ পানিবন্দী উল্লেখ করে রিজভী বলেন, ভারী বর্ষণ ও উজান থেকে নেমে আসা পাহাড়ি ঢলে সৃষ্ট বন্যায় সিলেট ও সুমানগঞ্জ জেলায় শত শত কিলোমিটার সড়ক বিপর্যস্ত হয়ে কয়েকশো কোটি টাকার ক্ষতি হয়েছে। নদীর পানি বৃদ্ধি পাওয়ায় চাঁদপুর শহরও এখন বিপজ্জনক অবস্থায়। এছাড়াও ভারতের গজলডোবায় সবকটি গেট খুলে দেয়ায় এবং বর্ষণ ও পাহাড়ি ঢলে তিস্তা নদীর পানি বিপদ সীমার উপর দিয়ে প্রবাহিত হয়ে বাংলাদেশের উত্তরাঞ্চল—কুড়িগ্রাম, নীলফামারী, লালমনিরহাট, রংপুর, গাইবান্ধায় হু হু করে বন্যার পানি ঢুকে বিস্তীর্ণ এলাকা প্লাবিত হয়েছে। উজানের পানিতে ফরিদপুরসহ দেশের মধ্যাঞ্চলের বিভিন্ন এলাকা বন্যার পানিতে প্লাবিত হয়েছে। এসব এলাকায় অসংখ্য মানুষ এখন পানিবন্দী। কিন্তু বন্যাকবলিত এলাকায় সরকার সম্পূর্ণরুপে নির্বিকার। বন্যা উপদ্রুত মানুষের সাহায্যের জন্য সকারের কোন তৎপরতা নেই।

রিজভী বলেন, ক্ষমতাসীন দলের সরকার ও প্রশাসনের প্রশ্রয়ে জেকেজি হেলথ কেয়ার কিংবা আওয়ামী লীগের আন্তর্জাতিক বিষয়ক উপ-কমিটির সদস্য সাহেদ চক্রের দৌরাত্ম্য শুধু নগদ অর্থ কেলেঙ্কারির মধ্যেই সীমাবদ্ধ নয় এরা মানুষের জীবন নিয়েই ব্যবসা শুরু করে দিয়েছিলো করোনা পরীক্ষার নকল সনদ দিয়ে। তাদের এই ব্যবসার বলি হচ্ছে জনগণ। বর্তমান আমলে দুর্নীতি-অনিয়ম-চুরি-বাটপারি এখন যেভাবে নির্বিঘ্নে হয়েছে আওয়ামী শাসন ব্যতিরেকে কখোনোই এমন ছিল না। সাহেদরাই বর্তমান আওয়ামী শাসনের নমুনা। করোনার আঘাতে মানুষ চিকিৎসা বঞ্চিত। জীবন হাতের মুঠোয় নিয়ে কাতরাতে কাতরাতে হাসপাতাল থেকে হাসপাতালে ছুটছেন তারা। প্রতিদিন মানুষ মারা যাচ্ছে। কত মানুষ মারা যাচ্ছে তার সঠিক পরিসংখ্যান নিয়েও জনমনে সন্দেহ রয়েছে। এই দুর্বিসহ সংকটের মধ্যেও চিকিৎসা সরঞ্জাম ক্রয় করার নামে শত-শত কোটি টাকা হাতিয়ে নিচ্ছে সরকারি দলের লোকেরা।

বাংলাদেশ সময়: ১৪২৪ ঘণ্টা, জুলাই ১১, ২০২০
এমএইচ/এমজেএফ

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa